ইপেপার । আজশুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চুয়াডাঙ্গা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির ভোটার তালিকা নিয়ে আপত্তি

তফসিল বাতিল করে নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবি

সমীকরণ প্রতিবেদন
  • আপলোড টাইম : ০৮:১৫:৫৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ জুন ২০২৪
  • / ৩০ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক:

চুয়াডাঙ্গা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির আসন্ন দ্বিবার্ষিক নির্বাচনের প্রকাশিত খসড়া ভোটার তালিকায় গরমিল ও ভুয়া ভোটার রয়েছে দাবি করে আপত্তি জানানো হয়েছে। গতকাল বুধবার চেম্বারের নির্বাচনী আপিল বোর্ড বরাবর এ আপত্তি দাখিল করেন কয়েকজন সাধারণ ভোটার। আপত্তিপত্রে দাবি করা হয়, মোট ৯৪৯ জন ভোটারের মধ্যে ৪১৪ জন ভোটারের দাখিলকৃত কাগজপত্রে গরমিল রয়েছে। তাই অবিলম্বে ঘোষিত তফসিল বাতিল এবং খসড়া ভোটার তালিকা সংশোধন করে নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবি জানানো হয়। সাধারণ ও সহযোগী ভোটারের খসড়া তালিকার বিষয়ে দুটি আলাদা আপত্তিপত্র দাখিল করা হয়েছে। আপত্তিপত্রে স্বাক্ষর করেছেন সাইফুল হাসান জোয়ার্দ্দার (ভোটার নম্বর ৭২), মো. আলাউদ্দীন হেলা (ভোটার নম্বর ৭৬), মুন্সি আলমগীর হান্নান (ভোটার নম্বর ২৬১), মো. আরেফিন আলম রঞ্জু (ভোটার নম্বর ৭৪), সালমান হাসান জোয়ার্দ্দার (ভোটার নম্বর ১১) এবং রোকনুল হাসান (ভোটার নম্বর ৩৭)।

নির্বাচনী আপিল বোর্ড বরাবর দাখিল করা আপত্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে, ২০২৪-২৫ ও ২০২৫-২৬ মেয়াদের নির্বাচনে গত ৩ জুন যে খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে, তাতে অসঙ্গতিপূর্ণ ভোটার ও ভুয়া ভোটার অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। প্রকাশিত ভোটার তালিকা অনুযায়ী ৬৯৯ জন সাধারণ ভোটারের মধ্যে ২৬৭ জন অসঙ্গতিপূর্ণ ও ভুয়া ভোটারের নাম রয়েছে। এছাড়া ২৫০ জন সহযোগী ভোটারের মধ্যে ১৪৭ জন অসঙ্গতিপূর্ণ ও ভুয়া ভোটারের নাম রয়েছে। এ অবস্থায় সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয় বলে আপত্তি উত্থাপনকারীরা দাবি করেছেন।

আপত্তিকারীদের অন্যতম সাইফুল হাসান জোয়ার্দ্দার বলেন, ‘অবিলম্বে প্রকাশিত খসড়া ভোটার তালিকা সংশোধন এবং প্রশাসক নিয়োগের মাধ্যমে সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজন আমাদের দাবি। গত ৩ জুন যে খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ হয়েছে, তাতে অসঙ্গতিপূর্ণ ভোটার ও ভুয়া ভোটার অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। আগামীকালের (আজ) শুনানিতে আমাদের বিজ্ঞ আইনজীবীরা অংশ নেবেন। প্রয়োজনে আমরা মানববন্ধন বা সংবাদ সম্মেলনের মতো বৃহত্তর কর্মসূচি দেব।’

এ বিষয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার অ্যাড. মো. আশরাফ আলী বলেন, আপত্তি থাকতেই পারে। আপত্তি নিষ্পত্তির জন্য নির্ধারিত সময় দেয়া আছে। নিশ্চয় বিষয়গুলো গুরুত্বের সাথে দেখা হবে। যাচাই-বাছাই করে চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে।

উল্লেখ্য, গত ১৫ মে চুয়াডাঙ্গা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির দ্বিবার্ষিক সাধারণ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। তফসিলে গত ৩ জুন খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ এবং ৫ জুন খসড়া ভোটার তালিকার ওপর আপত্তি দাখিলের সময় নির্ধারণ করা হয়। ৬ তারিখ সন্ধ্যা পর্যন্ত আপত্তির ওপর শুনানি নিষ্পত্তি করা হবে। তফসিলে আগামী ৩ আগস্ট নির্বাচন অনুষ্ঠানের দিন নির্ধারণ করা হয়েছে।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

চুয়াডাঙ্গা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির ভোটার তালিকা নিয়ে আপত্তি

তফসিল বাতিল করে নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবি

আপলোড টাইম : ০৮:১৫:৫৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ জুন ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক:

চুয়াডাঙ্গা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির আসন্ন দ্বিবার্ষিক নির্বাচনের প্রকাশিত খসড়া ভোটার তালিকায় গরমিল ও ভুয়া ভোটার রয়েছে দাবি করে আপত্তি জানানো হয়েছে। গতকাল বুধবার চেম্বারের নির্বাচনী আপিল বোর্ড বরাবর এ আপত্তি দাখিল করেন কয়েকজন সাধারণ ভোটার। আপত্তিপত্রে দাবি করা হয়, মোট ৯৪৯ জন ভোটারের মধ্যে ৪১৪ জন ভোটারের দাখিলকৃত কাগজপত্রে গরমিল রয়েছে। তাই অবিলম্বে ঘোষিত তফসিল বাতিল এবং খসড়া ভোটার তালিকা সংশোধন করে নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবি জানানো হয়। সাধারণ ও সহযোগী ভোটারের খসড়া তালিকার বিষয়ে দুটি আলাদা আপত্তিপত্র দাখিল করা হয়েছে। আপত্তিপত্রে স্বাক্ষর করেছেন সাইফুল হাসান জোয়ার্দ্দার (ভোটার নম্বর ৭২), মো. আলাউদ্দীন হেলা (ভোটার নম্বর ৭৬), মুন্সি আলমগীর হান্নান (ভোটার নম্বর ২৬১), মো. আরেফিন আলম রঞ্জু (ভোটার নম্বর ৭৪), সালমান হাসান জোয়ার্দ্দার (ভোটার নম্বর ১১) এবং রোকনুল হাসান (ভোটার নম্বর ৩৭)।

নির্বাচনী আপিল বোর্ড বরাবর দাখিল করা আপত্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে, ২০২৪-২৫ ও ২০২৫-২৬ মেয়াদের নির্বাচনে গত ৩ জুন যে খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে, তাতে অসঙ্গতিপূর্ণ ভোটার ও ভুয়া ভোটার অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। প্রকাশিত ভোটার তালিকা অনুযায়ী ৬৯৯ জন সাধারণ ভোটারের মধ্যে ২৬৭ জন অসঙ্গতিপূর্ণ ও ভুয়া ভোটারের নাম রয়েছে। এছাড়া ২৫০ জন সহযোগী ভোটারের মধ্যে ১৪৭ জন অসঙ্গতিপূর্ণ ও ভুয়া ভোটারের নাম রয়েছে। এ অবস্থায় সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয় বলে আপত্তি উত্থাপনকারীরা দাবি করেছেন।

আপত্তিকারীদের অন্যতম সাইফুল হাসান জোয়ার্দ্দার বলেন, ‘অবিলম্বে প্রকাশিত খসড়া ভোটার তালিকা সংশোধন এবং প্রশাসক নিয়োগের মাধ্যমে সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজন আমাদের দাবি। গত ৩ জুন যে খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ হয়েছে, তাতে অসঙ্গতিপূর্ণ ভোটার ও ভুয়া ভোটার অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। আগামীকালের (আজ) শুনানিতে আমাদের বিজ্ঞ আইনজীবীরা অংশ নেবেন। প্রয়োজনে আমরা মানববন্ধন বা সংবাদ সম্মেলনের মতো বৃহত্তর কর্মসূচি দেব।’

এ বিষয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার অ্যাড. মো. আশরাফ আলী বলেন, আপত্তি থাকতেই পারে। আপত্তি নিষ্পত্তির জন্য নির্ধারিত সময় দেয়া আছে। নিশ্চয় বিষয়গুলো গুরুত্বের সাথে দেখা হবে। যাচাই-বাছাই করে চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে।

উল্লেখ্য, গত ১৫ মে চুয়াডাঙ্গা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির দ্বিবার্ষিক সাধারণ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। তফসিলে গত ৩ জুন খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ এবং ৫ জুন খসড়া ভোটার তালিকার ওপর আপত্তি দাখিলের সময় নির্ধারণ করা হয়। ৬ তারিখ সন্ধ্যা পর্যন্ত আপত্তির ওপর শুনানি নিষ্পত্তি করা হবে। তফসিলে আগামী ৩ আগস্ট নির্বাচন অনুষ্ঠানের দিন নির্ধারণ করা হয়েছে।