ইপেপার । আজশুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রতিবন্ধীর বাড়ির রাস্তা বন্ধ করে প্রাচীর দেওয়ার অভিযোগ

প্রতিবেদক, মুবিজনগর:
  • আপলোড টাইম : ০৮:৪৭:১৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১০ জুন ২০২৪
  • / ৭ বার পড়া হয়েছে

মুজিবনগরের বিদ্যারপুর গ্রামে প্রতিবন্ধীর বাড়ির রাস্তা বন্ধ করে প্রাচীর দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে একই গ্রামের মৃত মওলা বক্সের ছেলে মো. শাহাবুদ্দিনের বিরুদ্ধে। গত শনিবার সকালে শাহাবদ্দিন প্রতিবন্ধীর বাড়ির রাস্তা বন্ধ করে প্রাচীর দেওয়া শুরু করলে প্রতিবন্ধীর মা যোবাইদা খাতুন ৯৯৯-এ ফোন করেন। পরে মুজিবনগর থানা-পুলিশের সদস্যরা এসে প্রাচীর দেওয়ার কাজ বন্ধ করে উভয় পক্ষকে থানায় ডাকেন।

স্থানীয়রা জানায়, আমির হোসেনের পত্নী যোবাইদা খাতুন ১২ শতক জমি কিনে তার ওপর দোতালা বাড়ি করে দীর্ঘ ৪০ বছর ধরে বসবাস করছেন। যোবাইদা খাতুনের এক ছেলে ও এক মেয়ে প্রতিবন্ধী। তার পড়শি শাহাবদ্দিন হঠাৎ এসে তাদের চলাচলের রাস্তাটা নিজের বলে দাবি করেন। যোবাইদা খাতুন আদালতে মামলা করেছেন। মামলা বর্তমান মেহেরপুর আদালতে চলমান। তারপরেও শাহাবদ্দিন প্রাচীর দিয়ে রাস্তাটা বন্ধ করে দেন।

যোবাইদা খাতুন বলেন, ‘আমি ক্রয় সূত্রে ১২ শতক জমির মালিক। আমার জমি মাপজোগ করে যদি ১২ শতকের চেয়ে বেশি হয় বা তার জমি আমার মধ্যে থাকে, তাহলে অবশ্যই সেই জমি আমি ছেড়ে দেব। অথবা আমার চলার রাস্তা যেটা ১২ বছর ধরে ব্যবহার করছি, সেটা তাদের হলেও। সেই জমির পরিবর্তে জমি অথবা টাকা দিয়ে দেব। আমাদের চলার পথ বন্ধ করলে আমরা কীভাবে চলবো?’

মুজিবনগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) উজ্জল কুমার দত্ত বলেন, নালিশি জায়গার ওপর মেহেরপুর আদালতের একটি ১৪৪ জারি ছিল। সেটা ভ্যাকেট করে জমিতে প্রাচীর দিচ্ছে। নতুন করে আদালতের আদেশ না আনলে আমরা কাজ বন্ধ করতে পারি না।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

প্রতিবন্ধীর বাড়ির রাস্তা বন্ধ করে প্রাচীর দেওয়ার অভিযোগ

আপলোড টাইম : ০৮:৪৭:১৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১০ জুন ২০২৪

মুজিবনগরের বিদ্যারপুর গ্রামে প্রতিবন্ধীর বাড়ির রাস্তা বন্ধ করে প্রাচীর দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে একই গ্রামের মৃত মওলা বক্সের ছেলে মো. শাহাবুদ্দিনের বিরুদ্ধে। গত শনিবার সকালে শাহাবদ্দিন প্রতিবন্ধীর বাড়ির রাস্তা বন্ধ করে প্রাচীর দেওয়া শুরু করলে প্রতিবন্ধীর মা যোবাইদা খাতুন ৯৯৯-এ ফোন করেন। পরে মুজিবনগর থানা-পুলিশের সদস্যরা এসে প্রাচীর দেওয়ার কাজ বন্ধ করে উভয় পক্ষকে থানায় ডাকেন।

স্থানীয়রা জানায়, আমির হোসেনের পত্নী যোবাইদা খাতুন ১২ শতক জমি কিনে তার ওপর দোতালা বাড়ি করে দীর্ঘ ৪০ বছর ধরে বসবাস করছেন। যোবাইদা খাতুনের এক ছেলে ও এক মেয়ে প্রতিবন্ধী। তার পড়শি শাহাবদ্দিন হঠাৎ এসে তাদের চলাচলের রাস্তাটা নিজের বলে দাবি করেন। যোবাইদা খাতুন আদালতে মামলা করেছেন। মামলা বর্তমান মেহেরপুর আদালতে চলমান। তারপরেও শাহাবদ্দিন প্রাচীর দিয়ে রাস্তাটা বন্ধ করে দেন।

যোবাইদা খাতুন বলেন, ‘আমি ক্রয় সূত্রে ১২ শতক জমির মালিক। আমার জমি মাপজোগ করে যদি ১২ শতকের চেয়ে বেশি হয় বা তার জমি আমার মধ্যে থাকে, তাহলে অবশ্যই সেই জমি আমি ছেড়ে দেব। অথবা আমার চলার রাস্তা যেটা ১২ বছর ধরে ব্যবহার করছি, সেটা তাদের হলেও। সেই জমির পরিবর্তে জমি অথবা টাকা দিয়ে দেব। আমাদের চলার পথ বন্ধ করলে আমরা কীভাবে চলবো?’

মুজিবনগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) উজ্জল কুমার দত্ত বলেন, নালিশি জায়গার ওপর মেহেরপুর আদালতের একটি ১৪৪ জারি ছিল। সেটা ভ্যাকেট করে জমিতে প্রাচীর দিচ্ছে। নতুন করে আদালতের আদেশ না আনলে আমরা কাজ বন্ধ করতে পারি না।