চুয়াডাঙ্গা ০৫:৫৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ৯ আশ্বিন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
কালিদাসপুর স্টুডিও’র মধ্যে অনৈতিক কর্মকাণ্ডের অভিযোগে গণধোলাই নাগদাহ ও খাসকররা ইউনিয়ন আ.লীগের কর্মী সভায় এমপি ছেলুন জোয়ার্দ্দার কলেজিয়েট স্কুলের উপাধ্যক্ষ শামিম রেজার ৫২তম জন্মবার্ষিকী পালন বারাদী ইউনিয়নে গণসংযোগ, পথসভা ও লিফলেট বিতরণকালে দিলীপ কুমার আগরওয়ালা হাসপাতালের জরুরি বিভাগে স্বেচ্ছাসেবকদের বিরুদ্ধে রোগীর স্বজনের অভিযোগ আলমডাঙ্গায় পুত্রবধূর বটির কোপে শাশুড়ি জখম বাংলাদেশিদের ওপর মার্কিন ভিসা নিষেধাজ্ঞা নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া নিউজিল্যান্ডের কাছে বড় ব্যবধানে হারলো বাংলাদেশ মার্কিন ভিসানীতি নিয়ে পুলিশ-আমলা-বিচারাঙ্গন সবার মধ্যে আতঙ্ক আইনজীবী ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা

শুটিং ফেলে কলকাতায় সায়ন্তিকা, অনিশ্চয়তায় জায়েদ খানের সিনেমা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:১০:২৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ২৯ বার পড়া হয়েছে
সময়ের সমীকরণ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

বিনোদন প্রতিবেদন:
আলোচিত নায়ক জায়েদ খানের সঙ্গে জুটি বেঁধে ‘ছায়াবাজ’ সিনেমায় কাজ করতে প্রথমবার বাংলাদেশে আসেন সায়ন্তিকা ব্যানার্জি। ঢাকায় পা রেখেই কক্সবাজারে সিনেমার শুটিংয়ে অংশ নেন জায়েদ-সায়ন্তিকা। কিন্তু তাজু কামরুল পরিচালিত সিনেমার শুটিং পুরোপুরি শেষ না করেই হঠাৎ কলকাতায় ফিরে ভারতীয় বাংলা সিনেমার এই নায়িকা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নৃত্য পরিচালকের সঙ্গে দ্বন্দ্বের জেরে শুটিং বন্ধ করে দেশে ফিরে গেছেন সায়ন্তিকা। এতে অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছে ‘ছায়াবাজ’।

সায়ন্তিকার দাবি, ‘ছায়াবাজ’র সিনেমার নৃত্য পরিচালক মাইকেল বাবুকে পরিবর্তন করতে হবে। তাকে পরিবর্তন না করলে এই সিনেমায় তিনি আর কাজ করবেন না বলে জানিয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে মাইকেল বলেন, সায়ন্তিকার হাত ধরে নাচের স্টেপ দেখানো হচ্ছিল। এ সময় তিনি বলেন, হাত ধরো না, মুখে বুঝিয়ে দাও। কথা না বাড়িয়ে সেভাবেই তাকে বুঝিয়ে দিয়েছি আমি। বিষয়টি নিয়ে তার সঙ্গে কোনো তর্ক-বিতর্কও হয়নি আমার।

কিন্তু কাজ শেষে পরিচালক ও প্রযোজককে সায়ন্তিকা জানান, আমি এই সিনেমার সঙ্গে যুক্ত থাকলে কাজ করবেন না তিনি। ঘটনা শুনে পরিচালক ও প্রযোজক আমার সঙ্গে কাজ শেষ করার সিদ্ধান্ত নিলে সায়ন্তিকা কলকাতায় চলে যান। আমার সঙ্গে আসলে সায়ন্তিকার কী সমস্যা সেটাই বুঝতে পারছি না।

এদিকে, পুরো ঘটনা জানার পর মাইকেলকে দিয়েই কাজ শেষ করতে চান সিনেমার প্রযোজক মনিরুল ইসলাম। এমনকি এখন পর্যন্ত এই সিদ্ধান্তেই অটল রয়েছেন তিনি। মূলত এ কারণেই শুটিং না করার সিদ্ধান্ত জানিয়ে কলকাতায় ফিরে গেছেন সায়ন্তিকা।

মনিরুল ইসলাম বলেন, সায়ন্তিকা আমাদের কাছে অভিযোগ জানায় মাইকেল নাকি তার হাত ধরেছেন। সিনেমা থেকে মাইকেলকে বাদ দিতে হবে। অভিযোগ শোনার পর খোঁজ নিয়ে জানলাম, এই ঘটনায় মাইকেলের কোনো দোষ নেই। কাজের স্বার্থেই সায়ন্তিকার হাত ধরেছিলেন তিনি। তাই আমি সায়ন্তিকাকে জানিয়েছি কাজ করতে হলে মাইকেলের সঙ্গেই করতে হবে। না হলে কাজ করার প্রয়োজন নেই। পরের দিন সকালে সেট ছেড়ে চলে যান সায়ন্তিকা।

প্রযোজক আরও বলেন, সায়ন্তিকা যদি মাইকেলের সঙ্গে কাজ করতে রাজি হন, তাহলে আবার ‘ছায়াবাজ’র শুরু হবে শুটিং। কিন্তু আমার দেশের শিল্পীদের ছোট করে কাজ করতে চাই না আমি। এতে আমার ক্ষতি হলেও কোনো সমস্যা নেই। প্রয়োজন হলে ভবিষ্যতে নায়ক-নায়িকা পরিবর্তন করে সিনেমার কাজ আবারও শুরু করতে পারি।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

শুটিং ফেলে কলকাতায় সায়ন্তিকা, অনিশ্চয়তায় জায়েদ খানের সিনেমা

আপডেট সময় : ১০:১০:২৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩

বিনোদন প্রতিবেদন:
আলোচিত নায়ক জায়েদ খানের সঙ্গে জুটি বেঁধে ‘ছায়াবাজ’ সিনেমায় কাজ করতে প্রথমবার বাংলাদেশে আসেন সায়ন্তিকা ব্যানার্জি। ঢাকায় পা রেখেই কক্সবাজারে সিনেমার শুটিংয়ে অংশ নেন জায়েদ-সায়ন্তিকা। কিন্তু তাজু কামরুল পরিচালিত সিনেমার শুটিং পুরোপুরি শেষ না করেই হঠাৎ কলকাতায় ফিরে ভারতীয় বাংলা সিনেমার এই নায়িকা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নৃত্য পরিচালকের সঙ্গে দ্বন্দ্বের জেরে শুটিং বন্ধ করে দেশে ফিরে গেছেন সায়ন্তিকা। এতে অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছে ‘ছায়াবাজ’।

সায়ন্তিকার দাবি, ‘ছায়াবাজ’র সিনেমার নৃত্য পরিচালক মাইকেল বাবুকে পরিবর্তন করতে হবে। তাকে পরিবর্তন না করলে এই সিনেমায় তিনি আর কাজ করবেন না বলে জানিয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে মাইকেল বলেন, সায়ন্তিকার হাত ধরে নাচের স্টেপ দেখানো হচ্ছিল। এ সময় তিনি বলেন, হাত ধরো না, মুখে বুঝিয়ে দাও। কথা না বাড়িয়ে সেভাবেই তাকে বুঝিয়ে দিয়েছি আমি। বিষয়টি নিয়ে তার সঙ্গে কোনো তর্ক-বিতর্কও হয়নি আমার।

কিন্তু কাজ শেষে পরিচালক ও প্রযোজককে সায়ন্তিকা জানান, আমি এই সিনেমার সঙ্গে যুক্ত থাকলে কাজ করবেন না তিনি। ঘটনা শুনে পরিচালক ও প্রযোজক আমার সঙ্গে কাজ শেষ করার সিদ্ধান্ত নিলে সায়ন্তিকা কলকাতায় চলে যান। আমার সঙ্গে আসলে সায়ন্তিকার কী সমস্যা সেটাই বুঝতে পারছি না।

এদিকে, পুরো ঘটনা জানার পর মাইকেলকে দিয়েই কাজ শেষ করতে চান সিনেমার প্রযোজক মনিরুল ইসলাম। এমনকি এখন পর্যন্ত এই সিদ্ধান্তেই অটল রয়েছেন তিনি। মূলত এ কারণেই শুটিং না করার সিদ্ধান্ত জানিয়ে কলকাতায় ফিরে গেছেন সায়ন্তিকা।

মনিরুল ইসলাম বলেন, সায়ন্তিকা আমাদের কাছে অভিযোগ জানায় মাইকেল নাকি তার হাত ধরেছেন। সিনেমা থেকে মাইকেলকে বাদ দিতে হবে। অভিযোগ শোনার পর খোঁজ নিয়ে জানলাম, এই ঘটনায় মাইকেলের কোনো দোষ নেই। কাজের স্বার্থেই সায়ন্তিকার হাত ধরেছিলেন তিনি। তাই আমি সায়ন্তিকাকে জানিয়েছি কাজ করতে হলে মাইকেলের সঙ্গেই করতে হবে। না হলে কাজ করার প্রয়োজন নেই। পরের দিন সকালে সেট ছেড়ে চলে যান সায়ন্তিকা।

প্রযোজক আরও বলেন, সায়ন্তিকা যদি মাইকেলের সঙ্গে কাজ করতে রাজি হন, তাহলে আবার ‘ছায়াবাজ’র শুরু হবে শুটিং। কিন্তু আমার দেশের শিল্পীদের ছোট করে কাজ করতে চাই না আমি। এতে আমার ক্ষতি হলেও কোনো সমস্যা নেই। প্রয়োজন হলে ভবিষ্যতে নায়ক-নায়িকা পরিবর্তন করে সিনেমার কাজ আবারও শুরু করতে পারি।