চুয়াডাঙ্গা শুক্রবার , ১৪ জানুয়ারি ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

অভাবনীয় আয়োজন আমাকে আজীবন মায়ার বাঁধনে বেধে রাখবে:বিদায়ী জেলা প্রশাসক

চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবে নজরুল ইসলাম সরকার রেফারেন্স কর্নার উদ্বোধন
সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
জানুয়ারি ১৪, ২০২২ ১০:০৬ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

সমীকরণ প্রতিবেদন:

চুয়াডাঙ্গার বিদায়ী জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার যখন একের পর এক বিদায় সংবর্ধনা নিয়ে ব্যস্ত, তখন চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাব তাঁকে নিয়ে করল ব্যতিক্রম আয়োজন। উদ্বোধন করা হলো নজরুল ইসলাম সরকার রেফারেন্স কর্নারের উদ্বোধন।

চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের এক কোনে ‘নজরুল ইসলাম সরকার রেফারেন্স কর্নার’ নামক গ্রন্থাগার উদ্বোধনকালে বিদায়ী জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার আবেগি কণ্ঠে বলেন, ‘অভাবনীয় এ আয়োজন আমাকে আজীবন মায়ার বাঁধনে বেধে রাখবে। যেখানে থাকি, যেভাবেই থাকি চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাব আমার আত্মার সাথে লেপ্টে থাকবে এই নজরুল ইসলাম সরকার রেফারেন্স কর্নারের মাধ্যমে। এই লাইব্রেরি সর্বাত্মক সমৃদ্ধ করার সর্বাত্মক চেষ্টা থাকবে।’

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে নজরুল ইসলাম সরকার চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসকের দায়িত্বভার হস্তান্তর করেন। এর আগে তিনি বেলা ১১টার দিকে চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবে রেফারেন্স কর্নার উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত হন। ফিতে কেটে উদ্বোধনের পর লাইব্রেরিতে রাখা নতুন বই-পুস্তকের পাতা উল্টে দেখেন। সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, জনসাধারণের অতিব জরুরি প্রয়োজনীয় কিছু উন্নয়নের কাজ হাতে নিয়েছিলাম। এর মধ্যে শহীদ আবুল কাশেম সড়কের রেললেবেল ক্রসিংয়ের ওভার ব্রিজ। কয়েক দফা সংশোধনের পর আবারও বিষয়টি একনেকে। আশা করি অল্প কিছুদিনের মধ্যেই অনুমোদন মিলবে। এছাড়াও যেসব উন্নয়ন প্রকল্প ছিল, তার মধ্যে জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনতায়তনসহ সবগুলোই বাস্তবায়নের দ্বারপ্রান্তে। এসব কাজের পাশাপাশি রাষ্ট্রের প্রতিনিধি হিসেবে চুয়াডাঙ্গায় যতদিন কাজ করেছি, সর্বস্তরের সাধারণ মানুষের জন্য দরজা উন্মুক্ত রেখে সর্বোচ্চ সেবা দেয়ারও চেষ্টা করেছি। করোন মাহামারিকালে সরকারি নিদের্শনা প্রতিপালনে আন্তরিক চেষ্টা করেছি। সাধারণ মানুষ যখন ঘরবন্দি, তখন আমার সুযোগ হয়েছে জনগণের জন্য অনেক কিছু করার, করেছি। এসব সম্ভব হয়েছে চুয়াডাঙ্গায় কর্মরত সাংবাদিকমহলসহ রাজনৈতিক সামাজিক নেতৃবৃন্দের সহযোগিতার ফলে। বিশেষ করে সাংবাদিক সমাজ যে সহযোগিতা করেছে, তা কৃতজ্ঞচিত্তে মনে থাকবে।’ চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সভাপতি সরদার আল আমিন, সাধারণ সম্পাদক রাজীব হাসান কচি, বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি চুয়াডাঙ্গা ইউনিটের সভাপতি নাজমুল হক স্বপন, সাবেক সভাপতি আজাদ মালিতাসহ প্রেসক্লাব এবং সাংবাদিক সমিতির সদস্য ও নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় নজরুল ইসলাম সরকার বলেন, ‘চুয়াডাঙ্গার সাংবাদিকমহল আমার সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখলে মনে হবে, চুয়াডাঙ্গাতেই আছি। প্রতিদিন সকালে চুয়াডাঙ্গার সংবাদপত্রগুলোতে চোখ বুলিয়ে দিন শুরু হতো। আজ থেকে আর তেমনটি হবে না। তবে অনলাইন সংস্করণে দেখে মনের ক্ষুধা মিটিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করব। আড়াই বছরের বেশি সময় জেলা প্রশাসক হিসেবে দায়িত্বপালনে কোথায় কতটুকু ত্রুটি জানি না, সবসময় চেষ্টা করেছি স্বচ্ছ্বতার সাথে নিরপেক্ষভাবে সকলকে সমান দৃষ্টিতে দেখে কাজ করা। বিদায় বেলায় চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাব আমাকে যেভাবে মূল্যায়ন করল, তা ভুলবার নয়। ক্লাবের উন্নয়নে কখনোই কার্পণ্য থাকবে না।’ সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা শেষে নজরুল ইসলাম সরকার চুয়াডাঙ্গার স্থানীয় সংবাদপত্র বিক্রয় প্রতিনিধিদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।