ইপেপার । আজশনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের উদ্যোগে বৃক্ষরোপন কর্মসূচির উদ্বোধন

চুয়াডাঙ্গা শহরে লাগানো হবে ৯ হাজার গাছের চারা

নিজস্ব প্রতিবেদক:
  • আপলোড টাইম : ১১:১২:২৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪
  • / ১৫ বার পড়া হয়েছে

‘গাছ লাগান, পরিবেশ বাঁচান’ স্লোগানে চুয়াডাঙ্গায় ৯ হাজার বৃক্ষরোপণ অভিযান শুরু হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে শহরের শহিদ হাসান চত্বরের মুক্তমঞ্চ থেকে এ কর্মসূচি শুরু করে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ। পৌর এলাকার ৯টি ওয়ার্ডের বসত বাড়িতে ধাপে ধাপে ৯ হাজার গাছ লাগানোর কথা জানান আয়োজকরা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রত্যেককে গাছ লাগানোর আহ্বানের আলোকে এ আয়োজন করে সংগঠনটি। বৃক্ষরোপন ও বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বৃক্ষের চারা পৌরবাসীর মধ্যে তুলে দেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক আহ্বায়ক ও সাবেক পৌর মেয়র ওবাইদুর রহমান চৌধুরী জিপু।

গাছের চারা বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওবাইদুর রহমান চৌধুরী জিপু বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে প্রকৃতি দিন দিন কঠোর হয়ে উঠছে। চুয়াডাঙ্গার তাপমাত্রা সহ্য ক্ষমতার বাইরে চলে যাচ্ছে। তাপমাত্রা ঠিক রাখতে বারবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গাছ লাগানোর আহ্বান জানাচ্ছেন। বারবার তিনি পরিবেশ বাঁচাতে সকলে কাজ করার আহ্বান জানাচ্ছেন। আমাদের আওয়ামী লীগসহ সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ গাছ লাগাতে তৎপর। প্রতিবছরই আমরা গাছ লাগাই। তিনি আরও বলেন, গাছ লাগানোর ব্যাপারে ইতোমধ্যে স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগ ওয়ার্ড পর্যায়েও বৃক্ষরোপন করছে। আমরা চাই, যে গাছটি লাগাবো, সেটি যেন বড় হয়। ফল দেয়। প্রচুর অক্সিজেন দেয়। খেয়াল রাখতে হবে পরিচর্যার অভাবে যেন গাছ না মরে। যত্ন নিতে হবে। জলবায়ু পরিবর্তনে চুয়াডাঙ্গার তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণে কাজ করতে হবে। তবেই আমাদের উদ্দেশ্য সফল হবে। চুয়াডাঙ্গাকে সবুজে ভরা শহর হিসেবে দেখতে চাই। ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য ভালো কিছু দেখতে চাই।

জিপু চৌধুরী আরও বলেন, যেহেতু গাছগুলো বাড়ন্ত ফলজ এবং বনজ, তাই অনেক মানুষ আছেন যারা আগ্রহের সাথে আমাদের গাছের চারা সংগ্রহ করছেন। সেই চাহিদার প্রেক্ষিতে এই কর্মসূচি আগামীতে আরও বিস্তরভাবে ছড়িয়ে পড়বে। যা সবুজ বনায়ন গড়তে ভূমিকা রাখবে।

অনুষ্ঠানে প্রতিটি ওয়ার্ডের নেতা-কর্মীদের মধ্যে গাছের চারা বিতরণ করা হয়। চুয়াডাঙ্গা পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আব্দুল হালিম ভুলনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু হোসেন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সৈয়দ ফরিদ আহম্মেদ ও সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান। পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক সেক সামি তাপুর সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মাফিজুর রহমান মাফি, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. জানিফসহ দলীয় নেতা-কর্মীরা।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের উদ্যোগে বৃক্ষরোপন কর্মসূচির উদ্বোধন

চুয়াডাঙ্গা শহরে লাগানো হবে ৯ হাজার গাছের চারা

আপলোড টাইম : ১১:১২:২৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪

‘গাছ লাগান, পরিবেশ বাঁচান’ স্লোগানে চুয়াডাঙ্গায় ৯ হাজার বৃক্ষরোপণ অভিযান শুরু হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে শহরের শহিদ হাসান চত্বরের মুক্তমঞ্চ থেকে এ কর্মসূচি শুরু করে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ। পৌর এলাকার ৯টি ওয়ার্ডের বসত বাড়িতে ধাপে ধাপে ৯ হাজার গাছ লাগানোর কথা জানান আয়োজকরা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রত্যেককে গাছ লাগানোর আহ্বানের আলোকে এ আয়োজন করে সংগঠনটি। বৃক্ষরোপন ও বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বৃক্ষের চারা পৌরবাসীর মধ্যে তুলে দেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক আহ্বায়ক ও সাবেক পৌর মেয়র ওবাইদুর রহমান চৌধুরী জিপু।

গাছের চারা বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওবাইদুর রহমান চৌধুরী জিপু বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে প্রকৃতি দিন দিন কঠোর হয়ে উঠছে। চুয়াডাঙ্গার তাপমাত্রা সহ্য ক্ষমতার বাইরে চলে যাচ্ছে। তাপমাত্রা ঠিক রাখতে বারবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গাছ লাগানোর আহ্বান জানাচ্ছেন। বারবার তিনি পরিবেশ বাঁচাতে সকলে কাজ করার আহ্বান জানাচ্ছেন। আমাদের আওয়ামী লীগসহ সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ গাছ লাগাতে তৎপর। প্রতিবছরই আমরা গাছ লাগাই। তিনি আরও বলেন, গাছ লাগানোর ব্যাপারে ইতোমধ্যে স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগ ওয়ার্ড পর্যায়েও বৃক্ষরোপন করছে। আমরা চাই, যে গাছটি লাগাবো, সেটি যেন বড় হয়। ফল দেয়। প্রচুর অক্সিজেন দেয়। খেয়াল রাখতে হবে পরিচর্যার অভাবে যেন গাছ না মরে। যত্ন নিতে হবে। জলবায়ু পরিবর্তনে চুয়াডাঙ্গার তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণে কাজ করতে হবে। তবেই আমাদের উদ্দেশ্য সফল হবে। চুয়াডাঙ্গাকে সবুজে ভরা শহর হিসেবে দেখতে চাই। ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য ভালো কিছু দেখতে চাই।

জিপু চৌধুরী আরও বলেন, যেহেতু গাছগুলো বাড়ন্ত ফলজ এবং বনজ, তাই অনেক মানুষ আছেন যারা আগ্রহের সাথে আমাদের গাছের চারা সংগ্রহ করছেন। সেই চাহিদার প্রেক্ষিতে এই কর্মসূচি আগামীতে আরও বিস্তরভাবে ছড়িয়ে পড়বে। যা সবুজ বনায়ন গড়তে ভূমিকা রাখবে।

অনুষ্ঠানে প্রতিটি ওয়ার্ডের নেতা-কর্মীদের মধ্যে গাছের চারা বিতরণ করা হয়। চুয়াডাঙ্গা পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আব্দুল হালিম ভুলনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু হোসেন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সৈয়দ ফরিদ আহম্মেদ ও সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান। পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক সেক সামি তাপুর সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মাফিজুর রহমান মাফি, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. জানিফসহ দলীয় নেতা-কর্মীরা।