ইপেপার । আজরবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গাংনীতে গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

প্রতিবেদক, গাংনী:
  • আপলোড টাইম : ১০:১৪:৫৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১ জুলাই ২০২৪
  • / ৩২ বার পড়া হয়েছে

মেহেরপুরের গাংনী থেকে আয়েশা খাতুন (৫৩) নামের এক গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল রোববার ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে গাংনী উপজেলার কাথুলী ইউনিয়নের লক্ষীনারায়ণপুর গ্রামে নিজ বাড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। আয়েশা লক্ষীনারায়ণপুর গ্রামের আব্দুল ওহাবের স্ত্রী। জানা যায়, ভোরে ফজরের সালাত পড়েন আয়েশা খাতুন। এরপর ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে তাকে ঝুলতে দেখে পরিবারের লোকজন। মেয়ে শিউলীর সাথে কলহের কারণেই তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে গুঞ্জন রয়েছে।

নিহতের মেয়ে শিউলী জানান, শারীরিক অসুস্থতার কারণেই তিনি আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন। নিহতের স্বামী আব্দুল ওহাব বলেন, স্ট্রোকজনিত কারণে তার স্ত্রী মারা গেছেন। স্থানীয় ইউপি সদস্য আজমাইন হোসেন টুটুল জানান, শারীরিক অসুস্থতা ও মাননিক যন্ত্রণার কারণে তিনি আত্মহত্যা করতে পারেন। তবে এ বিষয়ে দ্বিমত রয়েছে। গ্রামের লোকজনের যদিও মুখ খুলতে নারাজ।

গাংনী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তাজুল ইসলামকে ফোন করা হলে তিনি প্রথমে শারীরিক অসুস্থতার কারণে আত্মহত্যা করেছেন বলে জানান। তবে ঘটনাস্থলে পুলিশ রয়েছে এবং তদন্ত চলমান বলে জানান ওসি।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

গাংনীতে গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

আপলোড টাইম : ১০:১৪:৫৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১ জুলাই ২০২৪

মেহেরপুরের গাংনী থেকে আয়েশা খাতুন (৫৩) নামের এক গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল রোববার ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে গাংনী উপজেলার কাথুলী ইউনিয়নের লক্ষীনারায়ণপুর গ্রামে নিজ বাড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। আয়েশা লক্ষীনারায়ণপুর গ্রামের আব্দুল ওহাবের স্ত্রী। জানা যায়, ভোরে ফজরের সালাত পড়েন আয়েশা খাতুন। এরপর ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে তাকে ঝুলতে দেখে পরিবারের লোকজন। মেয়ে শিউলীর সাথে কলহের কারণেই তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে গুঞ্জন রয়েছে।

নিহতের মেয়ে শিউলী জানান, শারীরিক অসুস্থতার কারণেই তিনি আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন। নিহতের স্বামী আব্দুল ওহাব বলেন, স্ট্রোকজনিত কারণে তার স্ত্রী মারা গেছেন। স্থানীয় ইউপি সদস্য আজমাইন হোসেন টুটুল জানান, শারীরিক অসুস্থতা ও মাননিক যন্ত্রণার কারণে তিনি আত্মহত্যা করতে পারেন। তবে এ বিষয়ে দ্বিমত রয়েছে। গ্রামের লোকজনের যদিও মুখ খুলতে নারাজ।

গাংনী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তাজুল ইসলামকে ফোন করা হলে তিনি প্রথমে শারীরিক অসুস্থতার কারণে আত্মহত্যা করেছেন বলে জানান। তবে ঘটনাস্থলে পুলিশ রয়েছে এবং তদন্ত চলমান বলে জানান ওসি।