ইপেপার । আজরবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ট্রান্সফরমার লাগাতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে লাইনম্যানের মৃত্যু

ঝিনাইদহ অফিস:
  • আপলোড টাইম : ১১:১৬:২৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪
  • / ২৩ বার পড়া হয়েছে

বিদ্যুৎ চালু থাকাবস্থায় ট্রান্সফরমার মেরামত করতে গিয়ে ঝিনাইদহের শৈলকুপায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে আব্দুল খালেক নামের এক লাইনম্যানের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন সোহেল রানা নামে আরেক লাইনম্যান। গতকাল রোববার দুপুরে উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের সাধুখালি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত আব্দুল খালেক কুষ্টিয়া সদর উপজেলার কুমারগাড়া গ্রামের নাজিম উদ্দিনের ছেলে। এ ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে ঝিনাইদহ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি।

শৈলকুপা পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম মিজানুর রহমান বলেন, শৈলকুপার সাধুখালী গ্রামের বিদ্যুতের ট্রান্সফরমার লাগানোর কাজ করছিলেন শেখপাড়া বিদ্যুৎ অফিসে কর্মরত লাইনম্যান সোহেল রানা ও আব্দুল খালেক। মেরামতের সময় বিদ্যুতের কন্ট্রোলরুমে ফোন দিয়ে ওপরে ওঠেন লাইনম্যান সোহেল রানা। কিন্তু বিদ্যুৎ বন্ধ না থাকায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন সোহেল। নিচে দাঁড়িয়ে থাকা লাইনম্যান আব্দুল খালেক কন্ট্রোল রুমে ফোন করে আবারো বিদ্যুৎ বন্ধ করতে বলে ওপরে উঠে যান আহত সোহেলকে উদ্ধার করতে। কিন্তু কন্ট্রোল রুম বিদ্যুৎ বন্ধ না করায় আব্দুল খালেক ঘটনাস্থলেই মারা যান। আহত সোহেল রানাকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হলেও তার শারীরিক অবস্থা গুরুতর বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

এ ব্যাপারে পল্লী বিদ্যুতের জিএম ওমর আলী জানান, লাইন বন্ধ করে কাজ চলছিল। কিন্তু কীভাবে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হলো, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তিনি বলেন, কন্ট্রোল রুমের দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিদের অবহেলা পাওয়া গেলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তবে বারবার কন্ট্রোল রুমে ফোন করে লাইন বন্ধ রাখার জন্য বলা হলেও তারা কেন বন্ধ করেনি, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

শৈলকুপা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সফিকুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, বিদ্যুৎস্পৃষ্টে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির একজন লাইনম্যান মারা গেছেন। এ বিষয়ে সমিতির পক্ষ থেকে এখনো কিছুই জানানো হয়নি।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

ট্রান্সফরমার লাগাতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে লাইনম্যানের মৃত্যু

আপলোড টাইম : ১১:১৬:২৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪

বিদ্যুৎ চালু থাকাবস্থায় ট্রান্সফরমার মেরামত করতে গিয়ে ঝিনাইদহের শৈলকুপায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে আব্দুল খালেক নামের এক লাইনম্যানের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন সোহেল রানা নামে আরেক লাইনম্যান। গতকাল রোববার দুপুরে উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের সাধুখালি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত আব্দুল খালেক কুষ্টিয়া সদর উপজেলার কুমারগাড়া গ্রামের নাজিম উদ্দিনের ছেলে। এ ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে ঝিনাইদহ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি।

শৈলকুপা পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম মিজানুর রহমান বলেন, শৈলকুপার সাধুখালী গ্রামের বিদ্যুতের ট্রান্সফরমার লাগানোর কাজ করছিলেন শেখপাড়া বিদ্যুৎ অফিসে কর্মরত লাইনম্যান সোহেল রানা ও আব্দুল খালেক। মেরামতের সময় বিদ্যুতের কন্ট্রোলরুমে ফোন দিয়ে ওপরে ওঠেন লাইনম্যান সোহেল রানা। কিন্তু বিদ্যুৎ বন্ধ না থাকায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন সোহেল। নিচে দাঁড়িয়ে থাকা লাইনম্যান আব্দুল খালেক কন্ট্রোল রুমে ফোন করে আবারো বিদ্যুৎ বন্ধ করতে বলে ওপরে উঠে যান আহত সোহেলকে উদ্ধার করতে। কিন্তু কন্ট্রোল রুম বিদ্যুৎ বন্ধ না করায় আব্দুল খালেক ঘটনাস্থলেই মারা যান। আহত সোহেল রানাকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হলেও তার শারীরিক অবস্থা গুরুতর বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

এ ব্যাপারে পল্লী বিদ্যুতের জিএম ওমর আলী জানান, লাইন বন্ধ করে কাজ চলছিল। কিন্তু কীভাবে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হলো, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তিনি বলেন, কন্ট্রোল রুমের দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিদের অবহেলা পাওয়া গেলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তবে বারবার কন্ট্রোল রুমে ফোন করে লাইন বন্ধ রাখার জন্য বলা হলেও তারা কেন বন্ধ করেনি, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

শৈলকুপা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সফিকুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, বিদ্যুৎস্পৃষ্টে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির একজন লাইনম্যান মারা গেছেন। এ বিষয়ে সমিতির পক্ষ থেকে এখনো কিছুই জানানো হয়নি।