ইপেপার । আজরবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চুয়াডাঙ্গায় কৃতী শিক্ষার্থী ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা-নবীনবরণ

মূল্যবোধ ও নৈতিক মানুষ হিসেবে গড়ে ওঠার আহ্বান

নিজস্ব প্রতিবেদক:
  • আপলোড টাইম : ০৯:১৬:৩২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪
  • / ৪০ বার পড়া হয়েছে

চুয়াডাঙ্গায় জমকালো আয়োজনে ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্সপ্রাপ্ত শিক্ষার্থী, একাদশ শ্রেণির নবীনবরণ ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার সকাল ১০টায় চুয়াডাঙ্গা ফার্স্ট ক্যাপিটাল ইউনিভার্সিটি ক্যাম্পাসে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ব্যতিক্রম শিক্ষা একাডেমি।

অনুষ্ঠান শুরুর আগেই শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখর হয়ে ওঠে ক্যাম্পাস। একাদশ শ্রেণির নবীন শিক্ষার্থীরা যেমন আনন্দ-আড্ডায় মেতে ওঠেন, বিপরীতে এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের চোখে-মুখে ছিল বিদায়ের করুণ ছাপ। তবে তাদের মলিন মুখ উজ্জ্বল ও সাহস যোগাতে মোটিভেশনাল বক্তব্য দেন বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্সপ্রাপ্ত একঝাঁক মেধাবী শিক্ষার্থী।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই পবিত্র কুরআন থেকে তিলাওয়াত করেন ব্যতিক্রম শিক্ষা একাডেমির পরিচালক ও অনুষ্ঠানের সভাপতি সাইদুর রহমান। এরপর বিদায়ী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে মানপত্র পাঠ করেন ব্যতিক্রম শিক্ষা একাডেমির শিক্ষার্থী মুশফিকা শাহরিয়া মৌলি। এসময় একাদশ শ্রেণির নবীন শিক্ষার্থী ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান কোচিংয়ের শিক্ষার্থীরা। ব্যতিক্রম শিক্ষা একাডেমির পরিচালক খাইরুল বাশারের প্রাণবন্ত সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফার্স্ট ক্যাপিটাল ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ, চুয়াডাঙ্গার ভাইস চেয়ারম্যান রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, শিক্ষার্থীরা আগামী দিনের কর্ণধার ও দেশের ভবিষ্যৎ। তাদের চেতনায় থাকবে মনুষ্যত্ব বোধের দীক্ষা, মন মানসিকতা হবে সুন্দর। শিক্ষা মানব সমাজের অমূল্য সম্পদ। শিক্ষাকে পাশ কাটিয়ে উন্নত মেধাসম্মত দেশ গড়ে তোলা সম্ভব নয়। শিক্ষার্থীদের মানবিক মূল্যবোধ ও নৈতিক মানুষ হিসেবে গড়তে হবে। মানুষের অন্তর্নিহিত পরিপূর্ণ বিকাশই হলো শিক্ষা। আর তার পথ প্রদর্শক হলেন শিক্ষক। শিক্ষক হলেন জাতির মেরুদণ্ড গড়ার প্রধান কারিগর। একজন শিক্ষকের ভূমিকা ব্যতিত কোনো জাতিই শিক্ষিত জাতিতে পরিণত হতে পারে না।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষার্থীদের এই বিদায় নেওয়াটা যোগ্যতা, মেধা ও পরিশ্রম দিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়ার অমিত সম্ভাবনা মেলে ধরার বিদায়। ভবিষ্যতে এ শিক্ষার্থীরা দেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ আসনে অধিষ্ঠিত হয়ে দেশের সেবায় ভূমিকা রাখবে। শিক্ষার্থীদের উচিত নিজেদের ক্যারিয়ার গঠনে আরও বেশি মনোযোগী হওয়া। এসময় ভালো ফলাফল অর্জনের মাধ্যমে নিজেদের যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে সুখি, সমৃদ্ধ, স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার আহ্বান জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা সরকারি আদর্শ মহিলা কলেজের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাসুদ পারভেজ, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আব্দুর রতন, চুয়াডাঙ্গা সরকারি আদর্শ মহিলা কলেজের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের প্রভাষক জাহাঙ্গীর আলম, ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক রুবেল হোসাইন, দর্শনা সরকারি কলেজের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক নজরুল ইসলাম শিমুল, দৈনিক সময়ের সমীকরণ-এর ডেস্ক ইনচার্জ ও বার্তা২৪.কমের চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রতিনিধি ফেরদৌস ওয়াহিদ এবং নীলমণিগঞ্জ তরুণ কোচিং সেন্টারের পরিচালক আব্দুল হান্নান।

অনুষ্ঠানে বিদায়ী শিক্ষার্থীদের পক্ষে বক্তব্য দেন জয়নবুন্নেছা। এছাড়া উপস্থিত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য দেন ব্যতিক্রম শিক্ষা একাডেমি থেকে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ে চান্স পাওয়া শিক্ষার্থী খালিদ হাসান নীরব, ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষার্থী আলিফ হাসান, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সাদিক বিন আজিজ ও পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মাহবুবা ইসলাম বৃষ্টি।

আলোচনা সভা ও শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা প্রদান শেষে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও প্রীতিভোজ অনুষ্ঠিত হয়। টাঙ্গাইল থেকে আগত আরণ্যক ব্যান্ডের সংগীত পরিবেশনায় শিক্ষার্থীরা মেতে ওঠে আনন্দ-উল্লাসে। হৈ-হুল্লোড় আর হাসি-তামাশায় মুহূর্তেই উৎসবে রূপ নেয় অনুষ্ঠানস্থল।

চুয়াডাঙ্গা ব্যতিক্রম শিক্ষা একাডেমির পরিচালক খাইরুল বাশার জানান, এ বছর এই কোচিং সেন্টার থেকে ১৭৩ জন এইচএসসি পরীক্ষার্থী, ১৩৩ জন নবীন শিক্ষার্থী, এবং বিভিন্ন বিশ^বিদ্যালয়ে চান্সপ্রাপ্ত ৯০ জন কৃতী শিক্ষার্থীকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

চুয়াডাঙ্গায় কৃতী শিক্ষার্থী ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা-নবীনবরণ

মূল্যবোধ ও নৈতিক মানুষ হিসেবে গড়ে ওঠার আহ্বান

আপলোড টাইম : ০৯:১৬:৩২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪

চুয়াডাঙ্গায় জমকালো আয়োজনে ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্সপ্রাপ্ত শিক্ষার্থী, একাদশ শ্রেণির নবীনবরণ ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার সকাল ১০টায় চুয়াডাঙ্গা ফার্স্ট ক্যাপিটাল ইউনিভার্সিটি ক্যাম্পাসে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ব্যতিক্রম শিক্ষা একাডেমি।

অনুষ্ঠান শুরুর আগেই শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখর হয়ে ওঠে ক্যাম্পাস। একাদশ শ্রেণির নবীন শিক্ষার্থীরা যেমন আনন্দ-আড্ডায় মেতে ওঠেন, বিপরীতে এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের চোখে-মুখে ছিল বিদায়ের করুণ ছাপ। তবে তাদের মলিন মুখ উজ্জ্বল ও সাহস যোগাতে মোটিভেশনাল বক্তব্য দেন বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্সপ্রাপ্ত একঝাঁক মেধাবী শিক্ষার্থী।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই পবিত্র কুরআন থেকে তিলাওয়াত করেন ব্যতিক্রম শিক্ষা একাডেমির পরিচালক ও অনুষ্ঠানের সভাপতি সাইদুর রহমান। এরপর বিদায়ী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে মানপত্র পাঠ করেন ব্যতিক্রম শিক্ষা একাডেমির শিক্ষার্থী মুশফিকা শাহরিয়া মৌলি। এসময় একাদশ শ্রেণির নবীন শিক্ষার্থী ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান কোচিংয়ের শিক্ষার্থীরা। ব্যতিক্রম শিক্ষা একাডেমির পরিচালক খাইরুল বাশারের প্রাণবন্ত সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফার্স্ট ক্যাপিটাল ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ, চুয়াডাঙ্গার ভাইস চেয়ারম্যান রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, শিক্ষার্থীরা আগামী দিনের কর্ণধার ও দেশের ভবিষ্যৎ। তাদের চেতনায় থাকবে মনুষ্যত্ব বোধের দীক্ষা, মন মানসিকতা হবে সুন্দর। শিক্ষা মানব সমাজের অমূল্য সম্পদ। শিক্ষাকে পাশ কাটিয়ে উন্নত মেধাসম্মত দেশ গড়ে তোলা সম্ভব নয়। শিক্ষার্থীদের মানবিক মূল্যবোধ ও নৈতিক মানুষ হিসেবে গড়তে হবে। মানুষের অন্তর্নিহিত পরিপূর্ণ বিকাশই হলো শিক্ষা। আর তার পথ প্রদর্শক হলেন শিক্ষক। শিক্ষক হলেন জাতির মেরুদণ্ড গড়ার প্রধান কারিগর। একজন শিক্ষকের ভূমিকা ব্যতিত কোনো জাতিই শিক্ষিত জাতিতে পরিণত হতে পারে না।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষার্থীদের এই বিদায় নেওয়াটা যোগ্যতা, মেধা ও পরিশ্রম দিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়ার অমিত সম্ভাবনা মেলে ধরার বিদায়। ভবিষ্যতে এ শিক্ষার্থীরা দেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ আসনে অধিষ্ঠিত হয়ে দেশের সেবায় ভূমিকা রাখবে। শিক্ষার্থীদের উচিত নিজেদের ক্যারিয়ার গঠনে আরও বেশি মনোযোগী হওয়া। এসময় ভালো ফলাফল অর্জনের মাধ্যমে নিজেদের যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে সুখি, সমৃদ্ধ, স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার আহ্বান জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা সরকারি আদর্শ মহিলা কলেজের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাসুদ পারভেজ, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আব্দুর রতন, চুয়াডাঙ্গা সরকারি আদর্শ মহিলা কলেজের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের প্রভাষক জাহাঙ্গীর আলম, ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক রুবেল হোসাইন, দর্শনা সরকারি কলেজের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক নজরুল ইসলাম শিমুল, দৈনিক সময়ের সমীকরণ-এর ডেস্ক ইনচার্জ ও বার্তা২৪.কমের চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রতিনিধি ফেরদৌস ওয়াহিদ এবং নীলমণিগঞ্জ তরুণ কোচিং সেন্টারের পরিচালক আব্দুল হান্নান।

অনুষ্ঠানে বিদায়ী শিক্ষার্থীদের পক্ষে বক্তব্য দেন জয়নবুন্নেছা। এছাড়া উপস্থিত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য দেন ব্যতিক্রম শিক্ষা একাডেমি থেকে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ে চান্স পাওয়া শিক্ষার্থী খালিদ হাসান নীরব, ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষার্থী আলিফ হাসান, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সাদিক বিন আজিজ ও পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মাহবুবা ইসলাম বৃষ্টি।

আলোচনা সভা ও শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা প্রদান শেষে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও প্রীতিভোজ অনুষ্ঠিত হয়। টাঙ্গাইল থেকে আগত আরণ্যক ব্যান্ডের সংগীত পরিবেশনায় শিক্ষার্থীরা মেতে ওঠে আনন্দ-উল্লাসে। হৈ-হুল্লোড় আর হাসি-তামাশায় মুহূর্তেই উৎসবে রূপ নেয় অনুষ্ঠানস্থল।

চুয়াডাঙ্গা ব্যতিক্রম শিক্ষা একাডেমির পরিচালক খাইরুল বাশার জানান, এ বছর এই কোচিং সেন্টার থেকে ১৭৩ জন এইচএসসি পরীক্ষার্থী, ১৩৩ জন নবীন শিক্ষার্থী, এবং বিভিন্ন বিশ^বিদ্যালয়ে চান্সপ্রাপ্ত ৯০ জন কৃতী শিক্ষার্থীকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে।