ইপেপার । আজবৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সর্বশেষ অবস্থান ছিল উত্তর প্রদেশে, গাড়ি উদ্ধার, জানাল ডিবি

ভারতে গিয়ে লাপাত্তা এমপি আজিম!

সমীকরণ প্রতিবেদন
  • আপলোড টাইম : ০৮:১৬:৩২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪
  • / ১৭ বার পড়া হয়েছে

ভারতে চিকিৎসা নিতে যাওয়া ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনারকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তিনদিন ধরে তাকে ফোনে বা কোনো মাধ্যমে না পেয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন তার পরিবারের সদস্যরা। এ ঘটনায় শনিবার কলকাতার বরাহনগর থানায় একটি জিডি করা হয়েছে। এদিকে তার ব্যবহৃত ভারতীয় নম্বরের সর্বশেষ অবস্থান মুজাফফরাবাদ অর্থাৎ উত্তর প্রদেশে ছিল বলে জানিয়েছে ঢাকা মহানগর গোয়ন্দা পুলিশ (ডিবি)। ডিবি জানিয়েছে, ঘটনাটি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে। প্রতিনিয়ত ভারতীয় পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা হচ্ছে। গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর মিন্টো রোডের ডিবি কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন ডিবিপ্রধান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ।
সংসদ সদস্যের মেয়ে মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন গতকাল বলেন, ‘আমার আব্বুর সঙ্গে কোন যোগাযোগ করতে পারছিনা। আমরা দুশ্চিন্তায় আছি। তবে সব ধরনের চেষ্টা করছি। সরকারের ঊর্ধ্বতন পর্যায়ে জানানো হয়েছে।’ গত ১১ মে সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনার কানের চিকিৎসার জন্য ভারতের কলকাতায় যান বলে জানিয়েছে তার পরিবার। বিষয়টি নিশ্চিত করে সংসদ সদস্যের ব্যক্তিগত সহকারী (পিএস) আব্দুর রউফ জানান, দর্শনার গেদে বর্ডার হয়ে ভারতে যান তিনি (এমপি)। সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবার কথা হয়েছে। এরপর থেকে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।
পারিবারিক সূত্র জানায়, কলকাতায় গিয়ে বরাহনগর মন্ডলপাড়ায় পূর্বপরিচিত এইচএমভি জুয়েলার্সের মালিক গোপাল বিশ্বাসের বাড়িতে ওঠেন এমপি আনার। ১৩ মে সকালে ডাক্তার দেখানোর কথা বলে বাড়ি থেকে বের হন। এরপর বরাহনগর বিধান পার্কের সামনে থেকে ট্যাক্সিতে করে রওনা দেন। যাওয়ার সময় বলে রাতে ফিরে এসে খাবেন। তারপর আর ফিরে আসেননি। তবে হোয়াট্স অ্যাপে ম্যাসেজ দেন বিশেষ কাজে দিল্লী যাচ্ছি। পরের ম্যাসেজে বলেন, ‘দিল্লী পৌঁছেছি। সাথে ভিআইপিরা আছেন।’ তারপর থেকে আর কোন ফোন বা ম্যাসেজ করেননি। শনিবার গোপাল বিশ্বাস বরাহনগর থানায় একটি জিডি করেছেন।
এ প্রসঙ্গে ডিবি প্রধান হারুন অর রশীদ বলেন, আমি বিষয়টি দুদিন আগেই জানতে পারি। ভারতীয় একজন ভদ্রলোক এমপিরও পরিচিত, তিনি আমাকে টেলিফোন করে তাকে না পাওয়ার বিষয়টি জানান। জানার পর ভারতীয় বিশেষ টাস্কফোর্স-এসটিএফ’র সঙ্গে যোগাযোগ করি। ভারতীয় থানা পুলিশসহ ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গেও কথা বলেছি। ডিবিপ্রধান বলেন, আনোয়ারুল আজিমের একটি বাংলাদেশি ও আরেকটি ভারতীয় নম্বর ছিল।
১৬ মে সকাল ৭টার দিকে তার নম্বর থেকে দুটি কল আসে। একটি আসে তার এপিএসের নম্বরে, আরেকটি ফোনকল আসে ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম মিন্টুর নম্বরে। কিন্তু তখন দুজনের কেউই কল ধরতে পারেননি। আমরা ভারতীয় পুলিশের সহযোগিতায় জানতে পেরেছি, আনোয়ারুল আজিমের ভারতীয় নম্বরের লোকেশন মুজাফফরাবাদ, অর্থাত্ উত্তর প্রদেশ। সবকিছু মিলিয়ে আমরাও খোঁজখবর রাখছি।
হারুন অর রশীদ আরও বলেন, সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনারের মেয়ে আমাদের কাছে এসেছিলেন। আনোয়ারুল আজিম তার ব্যবহূত নম্বরটি মাঝে মাঝে খুলছেন আবার মাঝে মাঝে বন্ধ করছেন। তিনি কোনো ব্ল্যাকমেইলের শিকার হয়েছেন কি না- তা গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে। প্রসঙ্গত, আনোয়ারুল আজিম আনার ঝিনাইদহ-৪ আসন থেকে ২০১৪, ২০১৮ ও ২০২৪ সালে টানা ৩ বার আওয়ামী লীগ থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

সর্বশেষ অবস্থান ছিল উত্তর প্রদেশে, গাড়ি উদ্ধার, জানাল ডিবি

ভারতে গিয়ে লাপাত্তা এমপি আজিম!

আপলোড টাইম : ০৮:১৬:৩২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪

ভারতে চিকিৎসা নিতে যাওয়া ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনারকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তিনদিন ধরে তাকে ফোনে বা কোনো মাধ্যমে না পেয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন তার পরিবারের সদস্যরা। এ ঘটনায় শনিবার কলকাতার বরাহনগর থানায় একটি জিডি করা হয়েছে। এদিকে তার ব্যবহৃত ভারতীয় নম্বরের সর্বশেষ অবস্থান মুজাফফরাবাদ অর্থাৎ উত্তর প্রদেশে ছিল বলে জানিয়েছে ঢাকা মহানগর গোয়ন্দা পুলিশ (ডিবি)। ডিবি জানিয়েছে, ঘটনাটি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে। প্রতিনিয়ত ভারতীয় পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা হচ্ছে। গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর মিন্টো রোডের ডিবি কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন ডিবিপ্রধান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ।
সংসদ সদস্যের মেয়ে মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন গতকাল বলেন, ‘আমার আব্বুর সঙ্গে কোন যোগাযোগ করতে পারছিনা। আমরা দুশ্চিন্তায় আছি। তবে সব ধরনের চেষ্টা করছি। সরকারের ঊর্ধ্বতন পর্যায়ে জানানো হয়েছে।’ গত ১১ মে সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনার কানের চিকিৎসার জন্য ভারতের কলকাতায় যান বলে জানিয়েছে তার পরিবার। বিষয়টি নিশ্চিত করে সংসদ সদস্যের ব্যক্তিগত সহকারী (পিএস) আব্দুর রউফ জানান, দর্শনার গেদে বর্ডার হয়ে ভারতে যান তিনি (এমপি)। সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবার কথা হয়েছে। এরপর থেকে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।
পারিবারিক সূত্র জানায়, কলকাতায় গিয়ে বরাহনগর মন্ডলপাড়ায় পূর্বপরিচিত এইচএমভি জুয়েলার্সের মালিক গোপাল বিশ্বাসের বাড়িতে ওঠেন এমপি আনার। ১৩ মে সকালে ডাক্তার দেখানোর কথা বলে বাড়ি থেকে বের হন। এরপর বরাহনগর বিধান পার্কের সামনে থেকে ট্যাক্সিতে করে রওনা দেন। যাওয়ার সময় বলে রাতে ফিরে এসে খাবেন। তারপর আর ফিরে আসেননি। তবে হোয়াট্স অ্যাপে ম্যাসেজ দেন বিশেষ কাজে দিল্লী যাচ্ছি। পরের ম্যাসেজে বলেন, ‘দিল্লী পৌঁছেছি। সাথে ভিআইপিরা আছেন।’ তারপর থেকে আর কোন ফোন বা ম্যাসেজ করেননি। শনিবার গোপাল বিশ্বাস বরাহনগর থানায় একটি জিডি করেছেন।
এ প্রসঙ্গে ডিবি প্রধান হারুন অর রশীদ বলেন, আমি বিষয়টি দুদিন আগেই জানতে পারি। ভারতীয় একজন ভদ্রলোক এমপিরও পরিচিত, তিনি আমাকে টেলিফোন করে তাকে না পাওয়ার বিষয়টি জানান। জানার পর ভারতীয় বিশেষ টাস্কফোর্স-এসটিএফ’র সঙ্গে যোগাযোগ করি। ভারতীয় থানা পুলিশসহ ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গেও কথা বলেছি। ডিবিপ্রধান বলেন, আনোয়ারুল আজিমের একটি বাংলাদেশি ও আরেকটি ভারতীয় নম্বর ছিল।
১৬ মে সকাল ৭টার দিকে তার নম্বর থেকে দুটি কল আসে। একটি আসে তার এপিএসের নম্বরে, আরেকটি ফোনকল আসে ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম মিন্টুর নম্বরে। কিন্তু তখন দুজনের কেউই কল ধরতে পারেননি। আমরা ভারতীয় পুলিশের সহযোগিতায় জানতে পেরেছি, আনোয়ারুল আজিমের ভারতীয় নম্বরের লোকেশন মুজাফফরাবাদ, অর্থাত্ উত্তর প্রদেশ। সবকিছু মিলিয়ে আমরাও খোঁজখবর রাখছি।
হারুন অর রশীদ আরও বলেন, সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনারের মেয়ে আমাদের কাছে এসেছিলেন। আনোয়ারুল আজিম তার ব্যবহূত নম্বরটি মাঝে মাঝে খুলছেন আবার মাঝে মাঝে বন্ধ করছেন। তিনি কোনো ব্ল্যাকমেইলের শিকার হয়েছেন কি না- তা গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে। প্রসঙ্গত, আনোয়ারুল আজিম আনার ঝিনাইদহ-৪ আসন থেকে ২০১৪, ২০১৮ ও ২০২৪ সালে টানা ৩ বার আওয়ামী লীগ থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।