ইপেপার । আজবৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

৫০ বছর ধরে পানি খেয়েই বেঁচে আছেন!

সমীকরণ প্রতিবেদন
  • আপলোড টাইম : ১১:২০:৫৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০২৩
  • / ১৩৮ বার পড়া হয়েছে

বিস্ময়কর প্রতিবেদন:

শক্ত কোনো খাবারই খেতে পারেন না। সেই কারণে শুধু পানি খেয়েই ৫০ বছর পার করেছেন ভিয়েতনামের নাগরিক বুই তি লোই। বর্তমানে বুই তি লোইয়ের বয়স ৭৫ বছর। তার দাবি- তিনি নাকি গত ৫০ বছর ধরে কেবল পানি ও কোমল পানীয় ছাড়া কিছুই খাননি। ঘটনার শুরু ১৯৬৩ সালে, যুদ্ধের সময়। খারাপ আবহাওয়ার মধ্যে অন্য নারীদের সঙ্গে পাহাড়ে উঠছিলেন তিনি। তখনই শুরু হয় বজ্রপাত। তার জেরে জ্ঞান হারান বুই তি লোই। জ্ঞান ফিরলেও বজ্রপাতের ভয়ংকর মানসিক ট্রমা থেকে বেরোতে পারছিলেন না কিছুতেই। তখন শক্ত কোনো খাবারই খেতে পারছিলেন না তিনি। তখন তার সঙ্গীরা মিষ্টি পানীয় খাওয়াতে শুরু করেন বুই তি লোইকে। যা ম্যাজিকের মতো কাজ করে। সুস্থ হয়ে ওঠেন তিনি। এরপর ফল খান বুই। তবে কিছুতেই শক্ত খাবার মুখে তুলতে পারছিলেন না। সেই শুরু আজব কাণ্ডের। আর কখনো শক্ত খাবার খাননি বলেই দাবি ভিয়েতনামের ৭৫ বছরের বৃদ্ধার। ১৯৭০ সাল থেকে তিনি শক্ত খাবার খাওয়া পুরোপুরি ছেড়ে দেন। নরম পানীয়ে চিনি থাকে, সেই থেকেই নারীর শরীরে শক্তির সঞ্চার হয়। তিনি দাবি করেছেন, এতদিন পরেও শক্ত খাবারের গন্ধে বমি পায় তার। এতে দারুণ সুবিধাও হয়েছে। বাড়িতে রান্নাঘর থাকলেও রান্নার পাট নেই। শুধু ফ্রিজ ভর্তি পানি ও ঠান্ডা পানীয় থরে থরে সাজানো। সূত্র: ইন্ডিয়া টাইমস।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

৫০ বছর ধরে পানি খেয়েই বেঁচে আছেন!

আপলোড টাইম : ১১:২০:৫৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০২৩

বিস্ময়কর প্রতিবেদন:

শক্ত কোনো খাবারই খেতে পারেন না। সেই কারণে শুধু পানি খেয়েই ৫০ বছর পার করেছেন ভিয়েতনামের নাগরিক বুই তি লোই। বর্তমানে বুই তি লোইয়ের বয়স ৭৫ বছর। তার দাবি- তিনি নাকি গত ৫০ বছর ধরে কেবল পানি ও কোমল পানীয় ছাড়া কিছুই খাননি। ঘটনার শুরু ১৯৬৩ সালে, যুদ্ধের সময়। খারাপ আবহাওয়ার মধ্যে অন্য নারীদের সঙ্গে পাহাড়ে উঠছিলেন তিনি। তখনই শুরু হয় বজ্রপাত। তার জেরে জ্ঞান হারান বুই তি লোই। জ্ঞান ফিরলেও বজ্রপাতের ভয়ংকর মানসিক ট্রমা থেকে বেরোতে পারছিলেন না কিছুতেই। তখন শক্ত কোনো খাবারই খেতে পারছিলেন না তিনি। তখন তার সঙ্গীরা মিষ্টি পানীয় খাওয়াতে শুরু করেন বুই তি লোইকে। যা ম্যাজিকের মতো কাজ করে। সুস্থ হয়ে ওঠেন তিনি। এরপর ফল খান বুই। তবে কিছুতেই শক্ত খাবার মুখে তুলতে পারছিলেন না। সেই শুরু আজব কাণ্ডের। আর কখনো শক্ত খাবার খাননি বলেই দাবি ভিয়েতনামের ৭৫ বছরের বৃদ্ধার। ১৯৭০ সাল থেকে তিনি শক্ত খাবার খাওয়া পুরোপুরি ছেড়ে দেন। নরম পানীয়ে চিনি থাকে, সেই থেকেই নারীর শরীরে শক্তির সঞ্চার হয়। তিনি দাবি করেছেন, এতদিন পরেও শক্ত খাবারের গন্ধে বমি পায় তার। এতে দারুণ সুবিধাও হয়েছে। বাড়িতে রান্নাঘর থাকলেও রান্নার পাট নেই। শুধু ফ্রিজ ভর্তি পানি ও ঠান্ডা পানীয় থরে থরে সাজানো। সূত্র: ইন্ডিয়া টাইমস।