চুয়াডাঙ্গা রবিবার , ২২ জুলাই ২০১৮
আজকের সর্বশেষ সবখবর

জামিনে মুক্ত হয়ে আকন্দবাড়িয়ার মাদক সম্রাজ্ঞী হামিদা আবারো ফেনসিডিলসহ আটক

সমীকরণ প্রতিবেদন
জুলাই ২২, ২০১৮ ১১:২৯ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

Girl in a jacket

নিজস্ব প্রতিবেদক: মাদকের স্বর্গরাজ্য খ্যাত আকন্দবাড়ীয়ার আলোচিত মাদকব্যবসায়ী ৪ বোনের মধ্যে সেজো বোন হামিদা কয়েকদিন আগে জামিনে বের হয়ে আবারও ফেনসিডিলসহ বেগমপুর ক্যাম্প পুলিশের হাতে আটক হয়েছে। আকন্দবাড়ীয়া গাঙ পাড়ার নিজ বাড়ির উঠান থেকে বাজার করা ব্যাগে ১০ বোতল ফেনসিডিল নিয়ে পালানোর সময় পুলিশ তাকে আটক করে। পরে আটককৃত আসামীর বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলাসহ চুয়াডাঙ্গা সদর থানা হেফাজতে সোপর্দ করা হয়। গতকাল শনিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে আকন্দবাড়িয়া গাঙ পাড়া এলাকা আসামীর নিজ বসত বাড়ি থেকে তাকে আটক করা হয়।
এদিকে আকন্দবাড়িয়া এলাকার আলোচিত ৪ বোনের মাদক ব্যবসার কারনে অতিষ্ঠ সংশ্লিষ্ট এলাকার সাধারণ জনগণ। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত এসকল মাদক ব্যবসায়ীরা এলাকায় পুনরায় যেন মাদক ব্যবসা করতে না পারে সে ব্যাপারে প্রশাসন কঠোর ব্যবস্থা নেবে বলে তারা আশা প্রকাশ করেন। উক্ত ৪ বোন জেলে থাকার কারনে সংশ্লিষ্ট এলাকার মাদক ব্যবসা অনেকটা কম ছিলো বলে অনেকে ধারনা করেন। গত প্রায় দু’মাস আগে পর্যায়ক্রমে মাদক ও মাদক ব্যবসার টাকাসহ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে আটক হয় এরা ৪ বোন। রহিমা, রশিদা, হামিদাসহ ছোটবুড়ি। ছোটবুড়ি এখনো জামিন না পেলেও এদের মধ্যে দু’তিনদিন আগে মাদক মামলা থেকে জামিনে মুক্ত হয়ে জেল থেকে বাড়ি ফিরেছে রহিমা ও রশিদা। হামিদা তার কয়েকদিন আগে জামিন পেয়ে বাড়ি ফিরে আবার পুরো দমে শুরু করে মাদক ব্যবসা। পুলিশ সুত্রে জানা যায়, বেগমপুর ক্যাম্প পুলিশের ইনচার্জ এসআই আব্দুস সায়েম, এএসআই জাহিদসহ সঙ্গীয় ফোর্স গোপন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারেন আকন্দবাড়িয়া গাঙ পাড়ার আলোচিত মাদকব্যবসায়ী হামিদা কয়েকদিন পূর্বে মাদক মামলায় জামিন পেয়ে জেল থেকে বের হয়ে পুনরায় ফেনসিডিল নিয়ে তার বসত বাড়িতে অবস্থান করছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে তার বাড়িতে অভিযানাকালে উঠানে রাখা একটি বাজার করা ব্যাগে রাখা ফেনসিডিল নিয়ে দৌড়ে পালানোর সময় পুলিশ তাকে আটক করে। এসময় তার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় ১০ বোতল ফেনসিডিল। আটক হামিদা একই এলাকার লাল মিয়ার স্ত্রী। পরে আটককৃত আসামীর বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলাসহ সদর থানা হেফাজতে সোপর্দ করা হয়। আজ তাকে আদালতে প্রেরণ করা হবে বলে জানায় পুলিশ।

Girl in a jacket

Girl in a jacket

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।