ইপেপার । আজ রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

দামুড়হুদা কার্পাসডাঙ্গার কুতুবপুর সড়কে পুনরায় ছিনতাইয়ের প্রস্তুতি পুলিশের সফল অভিযানে অস্ত্রসহ ৩ ছিনতাইকারী গ্রেফতার

সমীকরণ প্রতিবেদন
  • আপলোড টাইম : ১১:০৫:০৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর ২০১৬
  • / ৩৪৭ বার পড়া হয়েছে

20161005_104528

কার্পাসডাঙ্গা অফিস:  জেলার দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা কুতুবপুর- মুন্সিপুর সড়কের খ্রীষ্টান গোরস্থানের বাঁশতলা নামকস্থানে গত সোমবার রাতে ছিনতাই এর জন্য কয়েকজন মুখোশধারী ছিনতাইকারী সাধারন পাবলিক ভেবে ছিনতাইয়ের উদ্দ্যেশে পুলিশের গাড়ি থামানোর চেষ্টাকালে এএসআই মুহিতের  ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে গেলেও পুনরায় গত মঙ্গলবার রাত আনুমানিক ১০ টার দিকে আবারো ছিনতাইকারী দল ছিনতাইয়ের উদ্দ্যেশে একইস্থানে প্রস্তুতি নিয়েছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু জিহাদ ফখরুল আলম খানের নেতৃত্বে কার্পাসডাঙ্গা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই জিয়াউল হক ও এএসআই মুহিত সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ছিনতাইকারীদের ঘিরে ফেললে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ছিনতাইকারী চক্রটি পালানোর চেষ্টা করলে তাদের পিছু পিছু ধাওয়া দিয়ে কার্পাসডাঙ্গা গ্রামের শওকত মাষ্টারের ছেলে মিঠু, কলোনীপাড়ার ইয়াজের ছেলে আলামিন ও পীরপুরকুল্লা গ্রামের আয়নালের ছেলে চিহ্নিত চোর মফিকে আটক করতে সক্ষম হয় পুলিশ। গ্রেফতারকৃতদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক  কার্পাসডাঙ্গা এলাকার জনসাধারন কে সাথে নিয়ে তাদের সম্মুখে ছিনতাইয় কাজে ব্যবহৃত অস্ত্রসস্ত্র খ্রীষ্টান গোরস্থান থেকে অস্ত্র উদ্ধার করে পুলিশ। এরা তিনজনই পুলিশের কাছে দীর্ঘদিন ধরে  ছিনতাই কাজে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে। এরা তিন জন ধরা পড়লেও পীরপুরকুল্লার নাজিমের ছেলে তরিকুল, ফকিরপাড়ার কেসমতের ছেলে মুক্তার, সুলতানের ছেলে জব্বার পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থল থেকে  ১ টি ওয়ান স্যুটার গান, ৩ রাউন্ড গুলি, ১ টি রামদা ও ১ টি ছোরা উদ্ধার করে পুলিশ। ছিনতাইকারী আটক ও অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু জিহাদ ফখরুল আলম খান, কার্পাসডাঙ্গা পুলিশ ফাঁড়ির এসআই জিয়াউল হক এএসআই মুহিত কে সাধুবাদ জানিয়েছেন এলাকাবাসীসহ সচেতন মহল।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

দামুড়হুদা কার্পাসডাঙ্গার কুতুবপুর সড়কে পুনরায় ছিনতাইয়ের প্রস্তুতি পুলিশের সফল অভিযানে অস্ত্রসহ ৩ ছিনতাইকারী গ্রেফতার

আপলোড টাইম : ১১:০৫:০৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর ২০১৬

20161005_104528

কার্পাসডাঙ্গা অফিস:  জেলার দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা কুতুবপুর- মুন্সিপুর সড়কের খ্রীষ্টান গোরস্থানের বাঁশতলা নামকস্থানে গত সোমবার রাতে ছিনতাই এর জন্য কয়েকজন মুখোশধারী ছিনতাইকারী সাধারন পাবলিক ভেবে ছিনতাইয়ের উদ্দ্যেশে পুলিশের গাড়ি থামানোর চেষ্টাকালে এএসআই মুহিতের  ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে গেলেও পুনরায় গত মঙ্গলবার রাত আনুমানিক ১০ টার দিকে আবারো ছিনতাইকারী দল ছিনতাইয়ের উদ্দ্যেশে একইস্থানে প্রস্তুতি নিয়েছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু জিহাদ ফখরুল আলম খানের নেতৃত্বে কার্পাসডাঙ্গা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই জিয়াউল হক ও এএসআই মুহিত সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ছিনতাইকারীদের ঘিরে ফেললে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ছিনতাইকারী চক্রটি পালানোর চেষ্টা করলে তাদের পিছু পিছু ধাওয়া দিয়ে কার্পাসডাঙ্গা গ্রামের শওকত মাষ্টারের ছেলে মিঠু, কলোনীপাড়ার ইয়াজের ছেলে আলামিন ও পীরপুরকুল্লা গ্রামের আয়নালের ছেলে চিহ্নিত চোর মফিকে আটক করতে সক্ষম হয় পুলিশ। গ্রেফতারকৃতদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক  কার্পাসডাঙ্গা এলাকার জনসাধারন কে সাথে নিয়ে তাদের সম্মুখে ছিনতাইয় কাজে ব্যবহৃত অস্ত্রসস্ত্র খ্রীষ্টান গোরস্থান থেকে অস্ত্র উদ্ধার করে পুলিশ। এরা তিনজনই পুলিশের কাছে দীর্ঘদিন ধরে  ছিনতাই কাজে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে। এরা তিন জন ধরা পড়লেও পীরপুরকুল্লার নাজিমের ছেলে তরিকুল, ফকিরপাড়ার কেসমতের ছেলে মুক্তার, সুলতানের ছেলে জব্বার পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থল থেকে  ১ টি ওয়ান স্যুটার গান, ৩ রাউন্ড গুলি, ১ টি রামদা ও ১ টি ছোরা উদ্ধার করে পুলিশ। ছিনতাইকারী আটক ও অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু জিহাদ ফখরুল আলম খান, কার্পাসডাঙ্গা পুলিশ ফাঁড়ির এসআই জিয়াউল হক এএসআই মুহিত কে সাধুবাদ জানিয়েছেন এলাকাবাসীসহ সচেতন মহল।