ইপেপার । আজ রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ মেহেরপুর ও ঝিনাইদহে প্রভাষককে কুপিয়ে জখম

সমীকরণ প্রতিবেদন
  • আপলোড টাইম : ০২:০১:৫৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ৫ অক্টোবর ২০১৬
  • / ৩০১ বার পড়া হয়েছে

05মেহেরপুর প্রতিনিধি: জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মুজিবনগর ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক মোরাদ হোসেনকে পিটিয়েছে জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপরে মেহেরপুর-মুজিবনগর সড়কের চকশ্যামনগর মাঠের পাশে আইনজীবি শাহিনুর রহমানসহ তার লোকজন এ হামলা চালায়। এ ব্যাপারে সদর থানায় আহত শিক্ষক বাদি হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। তার বাড়ি গাংনীর ধানখোলা গ্রামে। মামলার এজহার সূত্রে জানা গছে, প্রভাষক মোরাদ হোসেন মোটরসাইকেলযোগে কলেজ শেষে বাড়ি ফিরছিলেন। মেহেরপুর-মুজিবনগর সড়কের চকশ্যামনগর গ্রামের মাঠের কাছে পৌঁছালে আইনজীবি শাহিনুর রহমানসহ আরো দুই জন তার মোটরসাইকেল রোধ করে। পরে তার মাথায় থাকা হেলমেট খুলে তাকে এলোপাতাড়ি আঘাত করে। তার চিৎকার শুনে আশাপাশের লোকজন ছুটে আসে। এ সময় তাকে উদ্ধার করে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়। হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে বাড়ি ফিরে যান তিনি। তবে অভিযুক্ত আইনজীবি শাহিনুর রহমান হামলার কথা অস্বীকার করেছে। মেহেরপুর সদর থানার ওসি তদন্ত মেহিদী হাসান জানান, এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে আহত প্রভাষক। তদন্তপূর্বক দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
ঝিনাইদহ অফিস জানিয়েছে, ঝিনাইদহ শহরের কালিকাপুরে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে সনজের আলী নামে এক কলেজ শিক্ষককে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষরা। তিনি হরিণাকুন্ডু উপজেলার কাপাশহাটিয়া হাজী আরশাদ আলী ডিগ্রী কলেজের অর্থনীতি বিভাগে প্রভাষক হিসেবে কর্মরত। তাকে গুরুতর অবস্থায় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে। প্রভাষকের মেয়ে মিম জানান, তাদের গ্রামের বাড়ি সদর উপজেলার লেবুতলা গ্রামে। তারা ঝিনাইদহ শহরের কালিকাপুরে বসবাস করেন। বাড়ীর পাশের জমি নিয়ে প্রতিবেশী আনোয়ার, মনোয়ার ও হাফিজদের সাথে বিরোধ চলে আসছিল। এ ঘটনার জের ধরে সোমবার দুপুরে তারা শিক্ষক সনজের আলীকে বাড়ীর পাশের ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাতে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হরেন্দ্রনাথ সরকার জানান, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে একটি ঘটনা ঘটেছে। বিষয়টি তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এদিকে কলেজ শিক্ষককে কুপিয়ে জখম করার ঘটনায় আজ বুধবার কাপাশহাটিয়া হাজী আরশাদ আলী ডিগ্রী কলেজে এক প্রতিবাদ সমাবেশ ও সাংবাদিক সম্মেলন আহবান করা হয়েছে।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ মেহেরপুর ও ঝিনাইদহে প্রভাষককে কুপিয়ে জখম

আপলোড টাইম : ০২:০১:৫৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ৫ অক্টোবর ২০১৬

05মেহেরপুর প্রতিনিধি: জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মুজিবনগর ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক মোরাদ হোসেনকে পিটিয়েছে জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপরে মেহেরপুর-মুজিবনগর সড়কের চকশ্যামনগর মাঠের পাশে আইনজীবি শাহিনুর রহমানসহ তার লোকজন এ হামলা চালায়। এ ব্যাপারে সদর থানায় আহত শিক্ষক বাদি হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। তার বাড়ি গাংনীর ধানখোলা গ্রামে। মামলার এজহার সূত্রে জানা গছে, প্রভাষক মোরাদ হোসেন মোটরসাইকেলযোগে কলেজ শেষে বাড়ি ফিরছিলেন। মেহেরপুর-মুজিবনগর সড়কের চকশ্যামনগর গ্রামের মাঠের কাছে পৌঁছালে আইনজীবি শাহিনুর রহমানসহ আরো দুই জন তার মোটরসাইকেল রোধ করে। পরে তার মাথায় থাকা হেলমেট খুলে তাকে এলোপাতাড়ি আঘাত করে। তার চিৎকার শুনে আশাপাশের লোকজন ছুটে আসে। এ সময় তাকে উদ্ধার করে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়। হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে বাড়ি ফিরে যান তিনি। তবে অভিযুক্ত আইনজীবি শাহিনুর রহমান হামলার কথা অস্বীকার করেছে। মেহেরপুর সদর থানার ওসি তদন্ত মেহিদী হাসান জানান, এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে আহত প্রভাষক। তদন্তপূর্বক দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
ঝিনাইদহ অফিস জানিয়েছে, ঝিনাইদহ শহরের কালিকাপুরে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে সনজের আলী নামে এক কলেজ শিক্ষককে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষরা। তিনি হরিণাকুন্ডু উপজেলার কাপাশহাটিয়া হাজী আরশাদ আলী ডিগ্রী কলেজের অর্থনীতি বিভাগে প্রভাষক হিসেবে কর্মরত। তাকে গুরুতর অবস্থায় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে। প্রভাষকের মেয়ে মিম জানান, তাদের গ্রামের বাড়ি সদর উপজেলার লেবুতলা গ্রামে। তারা ঝিনাইদহ শহরের কালিকাপুরে বসবাস করেন। বাড়ীর পাশের জমি নিয়ে প্রতিবেশী আনোয়ার, মনোয়ার ও হাফিজদের সাথে বিরোধ চলে আসছিল। এ ঘটনার জের ধরে সোমবার দুপুরে তারা শিক্ষক সনজের আলীকে বাড়ীর পাশের ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাতে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হরেন্দ্রনাথ সরকার জানান, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে একটি ঘটনা ঘটেছে। বিষয়টি তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এদিকে কলেজ শিক্ষককে কুপিয়ে জখম করার ঘটনায় আজ বুধবার কাপাশহাটিয়া হাজী আরশাদ আলী ডিগ্রী কলেজে এক প্রতিবাদ সমাবেশ ও সাংবাদিক সম্মেলন আহবান করা হয়েছে।