ইপেপার । আজ মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

আলমডাঙ্গার গোবিন্দপুরে বাল্যবিয়ের আয়োজনে ইউএনওর হস্তক্ষেপ বয়স না হওয়ায় বন্ধ হলো বিয়ে : রক্ষা পেল ৯ম শ্রেণীর ছাত্রী

সমীকরণ প্রতিবেদন
  • আপলোড টাইম : ১০:১৬:২৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৩ সেপ্টেম্বর ২০১৬
  • / ৪২০ বার পড়া হয়েছে

edrfed

আলমডাঙ্গা অফিস: আলমডাঙ্গায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ের অভিশাপ থেকে রক্ষা পেল ৯ম শ্রেণির ছাত্রী আলেয়া খাতুন। গতকাল শুক্রবার ধুমধামের সাথে আলমডাঙ্গা পৌর এলাকার গোবিন্দপুর গ্রামে বিয়ের আয়োজন করা হয়। সংবাদ পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার উপস্থিত হয়ে আলেয়ার জেএসসি সার্টিফিকেট দেখে বয়স না হওয়ার কারণে বিয়ে বন্ধ করে দেন।  জানাগেছে, আলমডাঙ্গা পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ড গোবিন্দপুর গ্রামের আলী হোসেনের ৯ম শ্রেণিতে পড়–য়া মেয়ে আলেয়া খাতুনের বিয়ের আয়োজন করে ৭ নং ওয়ার্ড গোবিন্দপুর গ্রামের আব্দুস সুবহানের ছেলে শামীম হোসেনের সাথে। গতকাল শুক্রবার বিকেলে বিয়ের সম্পন্ন হওয়ার কথা ছিল। বাল্য বিয়ের সংবাদ শুনে দুপুরে আলী হোসেনের বাড়িতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আজাদ জাহান আলমডাঙ্গা থানার এসআই সাখাওয়াতসহ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে হাজির হন । উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলী হোসেনকে মেয়ের বিয়ের বয়স হয়েছে কি না জিজ্ঞাসা করলে সে পৌর সভা থেকে নিয়ে আসা জন্ম নিবন্ধনের কাগজ দেখান। সেখানে রীতি মত আলেয়ার বয়স ১৮ বছর এক মাস করা আছে। তখন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলেয়ার জেএসসি পরীক্ষার সার্টিফিকেট দেখতে চান। আলেয়ার জেএসসি পরীক্ষার সাটিফিকেটে বয়স না হওয়ার কারণে বিয়ে বন্ধ করে দেন। আলেয়া এম সবেদ আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেনীর ছাত্রী তার প্রকৃত জন্ম ২০০০ সালে ১৭ সেপ্টেম্বর। এসময় উপজেলা লোকমর্চার সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

আলমডাঙ্গার গোবিন্দপুরে বাল্যবিয়ের আয়োজনে ইউএনওর হস্তক্ষেপ বয়স না হওয়ায় বন্ধ হলো বিয়ে : রক্ষা পেল ৯ম শ্রেণীর ছাত্রী

আপলোড টাইম : ১০:১৬:২৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৩ সেপ্টেম্বর ২০১৬

edrfed

আলমডাঙ্গা অফিস: আলমডাঙ্গায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ের অভিশাপ থেকে রক্ষা পেল ৯ম শ্রেণির ছাত্রী আলেয়া খাতুন। গতকাল শুক্রবার ধুমধামের সাথে আলমডাঙ্গা পৌর এলাকার গোবিন্দপুর গ্রামে বিয়ের আয়োজন করা হয়। সংবাদ পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার উপস্থিত হয়ে আলেয়ার জেএসসি সার্টিফিকেট দেখে বয়স না হওয়ার কারণে বিয়ে বন্ধ করে দেন।  জানাগেছে, আলমডাঙ্গা পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ড গোবিন্দপুর গ্রামের আলী হোসেনের ৯ম শ্রেণিতে পড়–য়া মেয়ে আলেয়া খাতুনের বিয়ের আয়োজন করে ৭ নং ওয়ার্ড গোবিন্দপুর গ্রামের আব্দুস সুবহানের ছেলে শামীম হোসেনের সাথে। গতকাল শুক্রবার বিকেলে বিয়ের সম্পন্ন হওয়ার কথা ছিল। বাল্য বিয়ের সংবাদ শুনে দুপুরে আলী হোসেনের বাড়িতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আজাদ জাহান আলমডাঙ্গা থানার এসআই সাখাওয়াতসহ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে হাজির হন । উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলী হোসেনকে মেয়ের বিয়ের বয়স হয়েছে কি না জিজ্ঞাসা করলে সে পৌর সভা থেকে নিয়ে আসা জন্ম নিবন্ধনের কাগজ দেখান। সেখানে রীতি মত আলেয়ার বয়স ১৮ বছর এক মাস করা আছে। তখন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলেয়ার জেএসসি পরীক্ষার সার্টিফিকেট দেখতে চান। আলেয়ার জেএসসি পরীক্ষার সাটিফিকেটে বয়স না হওয়ার কারণে বিয়ে বন্ধ করে দেন। আলেয়া এম সবেদ আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেনীর ছাত্রী তার প্রকৃত জন্ম ২০০০ সালে ১৭ সেপ্টেম্বর। এসময় উপজেলা লোকমর্চার সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।