ইপেপার । আজ রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

চুয়াডাঙ্গার জীবননগর ও মেহেরপুরের পৃথক স্থানে সড়ক দুর্ঘটনা

এলজিইডির কর্মচারীর মৃত্যু, আহত অন্তত ১১

সমীকরণ প্রতিবেদন
  • আপলোড টাইম : ০৯:১৮:৫২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৩ বার পড়া হয়েছে

সমীকরণ প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গার জীবননগর ও মেহেরপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় একজন নিহত এবং ১১ জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। গতকাল বুধবার বেলা আড়াইটার দিকে জীবননগরে এবং সন্ধ্যায় মেহেরপুর পৌরসভার সামনে এই সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে।

জীবননগর:
জীবননগর উপজেলার পেয়ারাতলায় পাওয়ার টিলার উল্টে চালকসহ ১০ জন শ্রমিক আহত হয়েছেন। আহতদের উদ্ধার করে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। গতকাল বুধবার বেলা আড়াইটার দিকে চুয়াডাঙ্গা-জীবননগর আঞ্চলিক মহাসড়কের পেয়ারাতলা নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহত সবাই ঢালাই শ্রমিক বলে জানা গেছে।
আহতেরা হলেন- জীবননগর উপজেলার সীমান্ত ইউনিয়নের গঙ্গাদাসপুর গ্রামের নুর হোসেন মণ্ডলের ছেলে কালু (৪৫), একই গ্রামের মুলামিনের ছেলে শামীম (২৫), মিজানুরের ছেলে হাসান (২৩), খোকনের ছেলে কাজল (২৩), নাসিরের ছেলে সোহাগ (২৮), মণ্টুর ছেলে আব্দুল মান্নান (৩০), হজো মিয়ার ছেলে ওমিদুল ইসলাম (৩১) ও শাহা আলীর ছেলে রাশেদুল (৩০)। অন্য দুজনের নাম জানা যায়নি।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বুধবার বেলা আড়াইটার দিকে চুয়াডাঙ্গা-জীবননগর সড়কের পেয়ারাতলা নামক স্থানে ঢালাই মেশিন বহনকারী একটি পাওয়ার টিলার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায়। এসময় ওই পাওয়ার টিলারে থাকা ১০ জন শ্রমিক আহত হন। পরে তাদের উদ্ধার করে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। আহত শামীম জানান, তারা জীবননগর উপজেলার উথলীতে ঢালাইয়ের কাজ শেষ করে পাওয়ার টিলারে করে বাড়ি ফিরছিলেন। এসময় দর্শনার দিক থেকে আসা একটি লাটাহাম্বার তাদের গাড়ি সড়কের এক পাশে চাপিয়ে দেয়। এসময় তাদের পাওয়ার টিলারটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায়।
জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক আফরিন রহমান জানান, আহতদের মধ্যে কালু নামের একজনের ডান পা একেবারে ভেঙে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে, মাথায়ও গুরুতর আঘাত পেয়েছেন। তার অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে যশোর মেডিকেলে রেফার্ড করা হয়েছে। বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ভর্তি রাখা হয়েছে।

মেহেরপুর:
মেহেরপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় এলজিইডির অফিস সহায়ক মোজাম্মেল হক নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন রিকশা চালক আব্দুল আলিম। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় মেহেরপুর পৌরসভার সামনে এ সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে। মোজাম্মেল হক মেহেরপুর সদর উপজেলার গোভিপুর গ্রামের আব্দুল মোতালেবের ছেলে। তিনি মেহেরপুর এলজিইডির অফিস সহায়ক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। আহত রিকশা চালক আব্দুল আলিম মেহেরপুর শহরের বোষপাড়ার মৃত জসীম উদ্দীনের ছেলে।
জানা গেছে, স্যালো ইঞ্জিন চালিত একটি লাটাহাম্বার বাঁশের গুড়ি বোঝাই করে শহরের হোটেল বাজারের দিক থেকে বেপরোয়া গতিতে বড় বাজারের দিকে যাচ্ছিল। মেহেরপুর পৌরসভার সামনে স্পিড ব্রেকার পার হওয়ার সময় লাটাহাম্বারের একটি চাকা খুলে গেলে উল্টে যায়। এসময় বিপরীতগামী মোটরসাইকেল চালক মোজাম্মেল হক এবং রিকশা চালক আব্দুল আলিম লাটাহাম্বার বহন করা বাঁশের গুড়ির নিচে চাপা পড়ে। খবর পেয়ে মেহেরপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সদস্য এবং পুলিশের একাধিক দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে বাঁশের গুড়ি সরিয়ে তাদের উদ্ধার করে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মোজাম্মেলকে মৃত ঘোষণা করেন। আব্দুল আলিম গুরুতর আহত অবস্থায় মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
মেহেরপুর সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ কনি মিয়া বলেন, মেহেরপুর পৌরসভার সামনে একটি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে। এসময় একজন নিহত এবং একজন আহত হয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এখন পর্যন্ত কোনো লিখিত অভিযোগ পাইনি। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

চুয়াডাঙ্গার জীবননগর ও মেহেরপুরের পৃথক স্থানে সড়ক দুর্ঘটনা

এলজিইডির কর্মচারীর মৃত্যু, আহত অন্তত ১১

আপলোড টাইম : ০৯:১৮:৫২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

সমীকরণ প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গার জীবননগর ও মেহেরপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় একজন নিহত এবং ১১ জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। গতকাল বুধবার বেলা আড়াইটার দিকে জীবননগরে এবং সন্ধ্যায় মেহেরপুর পৌরসভার সামনে এই সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে।

জীবননগর:
জীবননগর উপজেলার পেয়ারাতলায় পাওয়ার টিলার উল্টে চালকসহ ১০ জন শ্রমিক আহত হয়েছেন। আহতদের উদ্ধার করে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। গতকাল বুধবার বেলা আড়াইটার দিকে চুয়াডাঙ্গা-জীবননগর আঞ্চলিক মহাসড়কের পেয়ারাতলা নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহত সবাই ঢালাই শ্রমিক বলে জানা গেছে।
আহতেরা হলেন- জীবননগর উপজেলার সীমান্ত ইউনিয়নের গঙ্গাদাসপুর গ্রামের নুর হোসেন মণ্ডলের ছেলে কালু (৪৫), একই গ্রামের মুলামিনের ছেলে শামীম (২৫), মিজানুরের ছেলে হাসান (২৩), খোকনের ছেলে কাজল (২৩), নাসিরের ছেলে সোহাগ (২৮), মণ্টুর ছেলে আব্দুল মান্নান (৩০), হজো মিয়ার ছেলে ওমিদুল ইসলাম (৩১) ও শাহা আলীর ছেলে রাশেদুল (৩০)। অন্য দুজনের নাম জানা যায়নি।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বুধবার বেলা আড়াইটার দিকে চুয়াডাঙ্গা-জীবননগর সড়কের পেয়ারাতলা নামক স্থানে ঢালাই মেশিন বহনকারী একটি পাওয়ার টিলার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায়। এসময় ওই পাওয়ার টিলারে থাকা ১০ জন শ্রমিক আহত হন। পরে তাদের উদ্ধার করে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। আহত শামীম জানান, তারা জীবননগর উপজেলার উথলীতে ঢালাইয়ের কাজ শেষ করে পাওয়ার টিলারে করে বাড়ি ফিরছিলেন। এসময় দর্শনার দিক থেকে আসা একটি লাটাহাম্বার তাদের গাড়ি সড়কের এক পাশে চাপিয়ে দেয়। এসময় তাদের পাওয়ার টিলারটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায়।
জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক আফরিন রহমান জানান, আহতদের মধ্যে কালু নামের একজনের ডান পা একেবারে ভেঙে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে, মাথায়ও গুরুতর আঘাত পেয়েছেন। তার অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে যশোর মেডিকেলে রেফার্ড করা হয়েছে। বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ভর্তি রাখা হয়েছে।

মেহেরপুর:
মেহেরপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় এলজিইডির অফিস সহায়ক মোজাম্মেল হক নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন রিকশা চালক আব্দুল আলিম। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় মেহেরপুর পৌরসভার সামনে এ সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে। মোজাম্মেল হক মেহেরপুর সদর উপজেলার গোভিপুর গ্রামের আব্দুল মোতালেবের ছেলে। তিনি মেহেরপুর এলজিইডির অফিস সহায়ক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। আহত রিকশা চালক আব্দুল আলিম মেহেরপুর শহরের বোষপাড়ার মৃত জসীম উদ্দীনের ছেলে।
জানা গেছে, স্যালো ইঞ্জিন চালিত একটি লাটাহাম্বার বাঁশের গুড়ি বোঝাই করে শহরের হোটেল বাজারের দিক থেকে বেপরোয়া গতিতে বড় বাজারের দিকে যাচ্ছিল। মেহেরপুর পৌরসভার সামনে স্পিড ব্রেকার পার হওয়ার সময় লাটাহাম্বারের একটি চাকা খুলে গেলে উল্টে যায়। এসময় বিপরীতগামী মোটরসাইকেল চালক মোজাম্মেল হক এবং রিকশা চালক আব্দুল আলিম লাটাহাম্বার বহন করা বাঁশের গুড়ির নিচে চাপা পড়ে। খবর পেয়ে মেহেরপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সদস্য এবং পুলিশের একাধিক দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে বাঁশের গুড়ি সরিয়ে তাদের উদ্ধার করে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মোজাম্মেলকে মৃত ঘোষণা করেন। আব্দুল আলিম গুরুতর আহত অবস্থায় মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
মেহেরপুর সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ কনি মিয়া বলেন, মেহেরপুর পৌরসভার সামনে একটি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে। এসময় একজন নিহত এবং একজন আহত হয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এখন পর্যন্ত কোনো লিখিত অভিযোগ পাইনি। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।