ইপেপার । আজ রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ইমরান খানকে দশ বছরের জেল দিয়েছে পাকিস্তানের আদালত

সমীকরণ প্রতিবেদন
  • আপলোড টাইম : ০৯:২৩:০২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৪
  • / ১ বার পড়া হয়েছে

সমীকরণ প্রতিবেদন:
পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের ১০ বছরের জেল দিয়েছে দেশটির আদালত। দেশের গোপন তথ্য পাচার করার অভিযোগ এনে তার বিরুদ্ধে এই রায় দেওয়া হয়। মি. খানকে ২০২২ সালে তার বিরোধীপক্ষ ক্ষমতাচ্যুত করেছিলেন। দুর্নীতির দায়ে দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর ইতোমধ্যে তিন বছরের কারাদণ্ডও ভোগ করছেন তিনি। তবে, সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী তার বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগকেই রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে দাবি করেছেন।
আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের সাধারণ নির্বাচন। এই নির্বাচনের মাত্র সপ্তাহ খানেক আগে ‘অফিসিয়াল গোপনীয়তা রক্ষা আইনের অধীনে মি. খানের বিরুদ্ধে এই রায় দেওয়া হলো। গতকাল মঙ্গলবার এই সংক্রান্ত মামলার শুনানি ছিল পাকিস্তানের বিশেষ আদালতে। সেখানেই ইমরান এবং তার দল পাকিস্তান তেহরিক ই ইনসাফের (পিটিআই) সহসভাপতি শাহ মেহমুদ কুরেশিকেও ১০ বছরের জেল দেয়া হয়। ইমরান খান প্রধানমন্ত্রী থাকা অবস্থায় ওয়াশিংটনে নিযুক্ত পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূতের ইসলামাবাদে পাঠানো একটি গোপন কূটনীতিক বার্তার কারণেই কথিত এই সাইফার মামলাটি দায়ের করা হয়েছিলো।
পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান তাকে ক্ষমতা থেকে উৎখাতের প্রমাণ হিসেবে একটি তারবার্তা ফাঁস করতে চেয়েছিলেন বলে মামলায় অভিযোগ আনা হয়। কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা বলছে, ওই তারবার্তার মাধ্যমে ইমরান প্রমাণ করতে চেয়েছিলেন, পাকিস্তানের ক্ষমতাধর সেনাবাহিনী যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ষড়যন্ত্র করে তাকে ক্ষমতা থেকে সরিয়েছে।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

ইমরান খানকে দশ বছরের জেল দিয়েছে পাকিস্তানের আদালত

আপলোড টাইম : ০৯:২৩:০২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৪

সমীকরণ প্রতিবেদন:
পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের ১০ বছরের জেল দিয়েছে দেশটির আদালত। দেশের গোপন তথ্য পাচার করার অভিযোগ এনে তার বিরুদ্ধে এই রায় দেওয়া হয়। মি. খানকে ২০২২ সালে তার বিরোধীপক্ষ ক্ষমতাচ্যুত করেছিলেন। দুর্নীতির দায়ে দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর ইতোমধ্যে তিন বছরের কারাদণ্ডও ভোগ করছেন তিনি। তবে, সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী তার বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগকেই রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে দাবি করেছেন।
আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের সাধারণ নির্বাচন। এই নির্বাচনের মাত্র সপ্তাহ খানেক আগে ‘অফিসিয়াল গোপনীয়তা রক্ষা আইনের অধীনে মি. খানের বিরুদ্ধে এই রায় দেওয়া হলো। গতকাল মঙ্গলবার এই সংক্রান্ত মামলার শুনানি ছিল পাকিস্তানের বিশেষ আদালতে। সেখানেই ইমরান এবং তার দল পাকিস্তান তেহরিক ই ইনসাফের (পিটিআই) সহসভাপতি শাহ মেহমুদ কুরেশিকেও ১০ বছরের জেল দেয়া হয়। ইমরান খান প্রধানমন্ত্রী থাকা অবস্থায় ওয়াশিংটনে নিযুক্ত পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূতের ইসলামাবাদে পাঠানো একটি গোপন কূটনীতিক বার্তার কারণেই কথিত এই সাইফার মামলাটি দায়ের করা হয়েছিলো।
পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান তাকে ক্ষমতা থেকে উৎখাতের প্রমাণ হিসেবে একটি তারবার্তা ফাঁস করতে চেয়েছিলেন বলে মামলায় অভিযোগ আনা হয়। কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা বলছে, ওই তারবার্তার মাধ্যমে ইমরান প্রমাণ করতে চেয়েছিলেন, পাকিস্তানের ক্ষমতাধর সেনাবাহিনী যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ষড়যন্ত্র করে তাকে ক্ষমতা থেকে সরিয়েছে।