ইপেপার । আজ মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

কেরুজ মাড়াই মৌসুমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের সম্মানীর টাকা পকেটস্থ

দর্শনা সাংবাদিক সমিতির সেক্রেটারি মামুন বহিষ্কার

সমীকরণ প্রতিবেদন
  • আপলোড টাইম : ১০:৩৫:৩৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৪
  • / ৫ বার পড়া হয়েছে

দর্শনা অফিস:
অর্থ কেলেঙ্কারীর অভিযোগে দর্শনা সাংবাদিক সমিতির সেক্রেটারি আহসান হাবিব মামুনকে পদ থেকে বহিস্কার করা হয়েছে। তবে দর্শনা প্রেসক্লাবের সদস্য পদে তাকে বহাল রাখা হয়েছে। গতকাল রোববার সন্ধ্যা সাতটার দিকে দর্শনা প্রেসক্লাবে সাধারণ সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। প্রেসক্লাবের সভাপতি জাহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক আওয়াল হোসেন লিখিত তদন্ত রিপোর্ট পড়ে শোনান। এসময় প্রেসক্লাব ও সাংবাদিক সমিতির উপস্থিত ২৩ সদস্যের মধ্যে ২ জন সদস্য মামুনের পক্ষে থাকলেও বাকি ২১ জন সদস্য তদন্ত রিপোর্টের মতামতের সাথে একত্বাতা প্রকাশ করেন। এসময় মামুন তার নিজের দোষ স্বীকার করেন।
সভায় উপস্থিত সকলের সিদ্ধান্ত মোতাবেক আহসান মামুনকে সাংবাদিক সমিতির সেক্রটারি পদ থেকে বহিস্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তবে প্রেসক্লাবের সদস্য পদে বহাল রাখা হয়। পরে মামুন সাংবাদিক সমিতির সেক্রটারি পদ থেকে পদত্যাগের জন্য সাদা কাগজে সাক্ষর করেন।
দর্শনা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক হানিফ মন্ডলের সঞ্চালনায় জরুরি সাধারণ সভায় উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক সমিতি দর্শনা ইউনিটের সভাপতি ইকরামুল হক পিপুল, প্রেসক্লাবের সহসভাপতি কামরুজ্জামান যুদ্ধ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক ইমতিয়াজ আহমেদ রয়েল, সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক আব্দুর রহমান, তথ্য প্রযুক্তি সম্পাদক আবিদ হাসান রিফাত, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক রাজিব মল্লিক, কোষাধ্যক্ষ মাসুম বিল্লাহ, কার্যনির্বাহী সদস্য মনিরুজ্জামান ধীরু, আওয়াল হোসেন, চঞ্চল মেহমুদ, সাংবাদিক সমিতির সহসভাপতি মাহমুদ হাসান রনি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান সুমন, সাংগঠনিক সম্পাদক হাসমত আলী, দপ্তর সম্পাদক সুকমল চন্দ্র দাস বাঁধন, কোষাধ্যক্ষ আব্দুল হান্নান, সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক সাব্বির আলিম, তথ্য প্রযুক্তি সম্পাদক ওয়াসিম রয়েল, কার্যনির্বাহী সদস্য ওসমান আলী, এফ এ আলমগীর ও ফরহাদ হোসেন।
উল্লেখ্য, প্রতি বছর কেরুজ চিনিকলের ২০২৩-২৪ আখ মাড়াই উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে নিমন্ত্রিত সাংবাদিকদের সম্মানী দেয় কেরুজ চিনিকল কর্তৃপক্ষ। এ সম্মানীর টাকা দর্শনা প্রেসক্লাবের বেশকিছু সদস্যের নামে উত্তোলন করে নিজ পকেটে ভরেন আহসান হাবিব মামুন। বিষয়টি কিছুদিন পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হলে তিনি প্রথমে অস্বীকার করলেও পরে বিষয়টি স্বীকার করেন। এতে প্রেসক্লাবের মানক্ষুণ্ন করায় নড়েচড়ে বসে দর্শনা প্রেসক্লাবের সদস্যরা। পরে প্রেসক্লাবের সিদ্ধান্তে পাঁচ সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। তদন্ত কমিটির রিপোর্ট অনুযায়ী আহসান হাবিব মামুন দোষী সাব্যস্ত হয়।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

কেরুজ মাড়াই মৌসুমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের সম্মানীর টাকা পকেটস্থ

দর্শনা সাংবাদিক সমিতির সেক্রেটারি মামুন বহিষ্কার

আপলোড টাইম : ১০:৩৫:৩৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৪

দর্শনা অফিস:
অর্থ কেলেঙ্কারীর অভিযোগে দর্শনা সাংবাদিক সমিতির সেক্রেটারি আহসান হাবিব মামুনকে পদ থেকে বহিস্কার করা হয়েছে। তবে দর্শনা প্রেসক্লাবের সদস্য পদে তাকে বহাল রাখা হয়েছে। গতকাল রোববার সন্ধ্যা সাতটার দিকে দর্শনা প্রেসক্লাবে সাধারণ সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। প্রেসক্লাবের সভাপতি জাহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক আওয়াল হোসেন লিখিত তদন্ত রিপোর্ট পড়ে শোনান। এসময় প্রেসক্লাব ও সাংবাদিক সমিতির উপস্থিত ২৩ সদস্যের মধ্যে ২ জন সদস্য মামুনের পক্ষে থাকলেও বাকি ২১ জন সদস্য তদন্ত রিপোর্টের মতামতের সাথে একত্বাতা প্রকাশ করেন। এসময় মামুন তার নিজের দোষ স্বীকার করেন।
সভায় উপস্থিত সকলের সিদ্ধান্ত মোতাবেক আহসান মামুনকে সাংবাদিক সমিতির সেক্রটারি পদ থেকে বহিস্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তবে প্রেসক্লাবের সদস্য পদে বহাল রাখা হয়। পরে মামুন সাংবাদিক সমিতির সেক্রটারি পদ থেকে পদত্যাগের জন্য সাদা কাগজে সাক্ষর করেন।
দর্শনা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক হানিফ মন্ডলের সঞ্চালনায় জরুরি সাধারণ সভায় উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক সমিতি দর্শনা ইউনিটের সভাপতি ইকরামুল হক পিপুল, প্রেসক্লাবের সহসভাপতি কামরুজ্জামান যুদ্ধ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক ইমতিয়াজ আহমেদ রয়েল, সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক আব্দুর রহমান, তথ্য প্রযুক্তি সম্পাদক আবিদ হাসান রিফাত, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক রাজিব মল্লিক, কোষাধ্যক্ষ মাসুম বিল্লাহ, কার্যনির্বাহী সদস্য মনিরুজ্জামান ধীরু, আওয়াল হোসেন, চঞ্চল মেহমুদ, সাংবাদিক সমিতির সহসভাপতি মাহমুদ হাসান রনি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান সুমন, সাংগঠনিক সম্পাদক হাসমত আলী, দপ্তর সম্পাদক সুকমল চন্দ্র দাস বাঁধন, কোষাধ্যক্ষ আব্দুল হান্নান, সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক সাব্বির আলিম, তথ্য প্রযুক্তি সম্পাদক ওয়াসিম রয়েল, কার্যনির্বাহী সদস্য ওসমান আলী, এফ এ আলমগীর ও ফরহাদ হোসেন।
উল্লেখ্য, প্রতি বছর কেরুজ চিনিকলের ২০২৩-২৪ আখ মাড়াই উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে নিমন্ত্রিত সাংবাদিকদের সম্মানী দেয় কেরুজ চিনিকল কর্তৃপক্ষ। এ সম্মানীর টাকা দর্শনা প্রেসক্লাবের বেশকিছু সদস্যের নামে উত্তোলন করে নিজ পকেটে ভরেন আহসান হাবিব মামুন। বিষয়টি কিছুদিন পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হলে তিনি প্রথমে অস্বীকার করলেও পরে বিষয়টি স্বীকার করেন। এতে প্রেসক্লাবের মানক্ষুণ্ন করায় নড়েচড়ে বসে দর্শনা প্রেসক্লাবের সদস্যরা। পরে প্রেসক্লাবের সিদ্ধান্তে পাঁচ সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। তদন্ত কমিটির রিপোর্ট অনুযায়ী আহসান হাবিব মামুন দোষী সাব্যস্ত হয়।