ইপেপার । আজ মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সিমে সর্বনিম্ন রিচার্জ অপারেটরের ইচ্ছায় নয় : বিটিআরসি চেয়ারম্যান

সমীকরণ প্রতিবেদন
  • আপলোড টাইম : ১১:১৪:৫৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জানুয়ারী ২০২৪
  • / ১ বার পড়া হয়েছে

সমীকরণ প্রতিবেদক:

দেশে প্রচলিত বিভিন্ন কোম্পানির সিমে রিচার্জের ক্ষেত্রে সর্বনিম্ন রিচার্জ অ্যামাউন্ট নির্ধারণ করার সুযোগ আর অপারেটরদের হাতে থাকছে না। বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করবে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। তবে, এ ক্ষেত্রে মোবাইল ফোন অপারেটর অপারেটরগুলোর সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে স্পষ্ট নির্দেশনা দেওয়া হবে।

সম্প্রতি এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মো. মহিউদ্দিন আহমেদ।

তিনি বলেন, ‘গ্রামীণফোনের (জিপি) সিমে রিচার্জের ক্ষেত্রে সর্বনিম্ন অ্যামাউন্ট ৩০ টাকা করার বিষয়টি আমাদের নজরে আসার সাথে সাথেই বন্ধ করা হয়েছে। গ্রামীণফোন অপারেটররা একটা সিদ্ধান্ত নিয়ে তাদের অ্যাপে দিয়েছিল যে, ৯ জানুয়ারি মধ্যরাতের পর থেকে জিপি সিমে সর্বনিম্ন ৩০ টাকা রিচার্জ করতে হবে। বিষয়টি আমাদের নজরে আসার পরপরই সংশ্লিষ্ট অপারেটরদের সাথে কথা বলা হয়েছে। পরে সেই সিদ্ধান্ত থেকে তারা সরে এসেছে।’

‘শুধু গ্রামীণফোন নয় বরং কোনো অপারেটরই নিজে থেকে রিচার্জ অ্যামাউন্ট কমাতে-বাড়াতে পারবেন না। এটা সিদ্ধান্ত হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে আমাদের চিন্তাভাবনা চলছে। মোটকথা আমাদের (বিটিআরসির) সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে তারা (অপারেটররা) এসব কাজ করতে পারবেন না।’

বিষয়টি নিয়ে আলোচনার জন্য সকল অপারেটরদের নিয়ে আলোচনায় বসার চিন্তা রয়েছে কি না, এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘অবশ্যই। আমরা তাদের কথা শুনব। তারপর আলোচনা করে বিটিআরসি সিদ্ধান্ত দেবে। সবাইকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। আমাদের কার্যক্রম চলছে। এক্ষেত্রে সবার কথাই আমরা শুনব। তাদের যদি বিষয়টি নিয়ে কোনো বক্তব্য থাকে, সেটিও আমলে নেওয়া হবে। তবে চাইলেই যে কেউ রিচার্জ অ্যামাউন্ট বাড়াতে পারবে না।’

বিষয়টি নিয়ে বিটিআরসির স্পষ্ট কোনো দিকনির্দেশনা ছিল না উল্লেখ করে তিরি আরও বলেন, ‘রিচার্জ অ্যামাউন্ট নিয়ে ইতঃপূর্বে বিটিআরসির স্পষ্ট দিকনির্দেশনা ছিল না। সেজন্য হয়ত তারা বিষয়টি নিয়ে নিজেদের মতো করে সিদ্ধান্ত দিয়েছিল। তবে বিষয়টি নিয়ে সবার সাথে আলোচনা করে বিটিআরসি স্বচ্ছ ও উপযোগী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে।’

এর আগে, গত ১০ জানুয়ারি থেকে গ্রামীণফোনের (জিপি) সিমে সর্বনিম্ন রিচার্জ অ্যামাউন্ট হিসেবে ৩০ টাকা রিচার্জ করতে হবে— এমন সিদ্ধান্ত জানায় কোম্পানিটি। যদিও গ্রাহক পর্যায়ে তীব্র সমালোচনা এবং পরবর্তী সময়ে বিটিআরসির নির্দেশনার ফলে এ সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে গ্রামীণফোন।

বুধবার (১০ জানুয়ারি) বিষয়টি নিয়ে গ্রামীণফোনের হেড অব কমিউনিকেশনস শারফুদ্দিন আহমেদ চৌধুরী বলেছিলেন, ‘আমরা এটা এখন বাস্তবায়ন করছি না। এ বিষয়ে বিটিআরসির সঙ্গে আলোচনা হবে। সেই আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে আমরা পরবর্তী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করব।’

সে সময় তিনি বলেন, ‘সর্বনিম্ন ব্যালেন্স রিচার্জ ৩০ টাকা করার বিষয়টি আমরা বিবেচনা করেছিলাম। তবে গ্রাহক সুবিধার্থে বর্তমানে আমাদের আরও বিভিন্ন ধরনের যে রিচার্জ অপশনগুলো রয়েছে… যেমন- ১৪ টাকা, ১৯ টাকা। একই সাথে ২৯ টাকা রিচার্জে মিনিট প্যাক, ২০ টাকার ব্যালেন্স রিচার্জ কার্ড, ১৪ টাকা ও ১৯ টাকার মিনিট ও ডাটা কার্ড এবং ২৯ টাকার ডাটা কার্ড সেবা চালু রয়েছে। সর্বনিম্ন ব্যালেন্স রিচার্জ ৩০ টাকা হলেও, অন্যান্য এই অপশনগুলো গ্রাহকরা ব্যবহার করতে পারতেন।’

এর আগে, ১০ জানুয়ারি থেকে গ্রামীণফোনের (জিপি) সিমে সর্বনিম্ন রিচার্জ অ্যামাউন্ট হিসেবে ৩০ টাকা রিচার্জ করতে হবে— এমন বার্তা পাঠায় কোম্পানিটি। গ্রাহক পর্যায়ে এসএমএস এবং মাই জিপি অ্যাপে নোটিফিকেশন দিয়ে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।

মাই জিপি অ্যাপের নোটিফিকেশনে বলা হয়, ১০ জানুয়ারি থেকে সর্বনিম্ন রিচার্জ অ্যামাউন্ট ৩০ টাকা হয়ে যাবে।

গ্রামীণফোন থেকে গ্রাহকদের সিমে পাঠানো এসএমএস বলা হয়— ‘প্রিয় গ্রাহক, আগামী ১০ জানুয়ারি থেকে সর্বনিম্ন রিচার্জ অ্যামাউন্ট ৩০ টাকা করা হবে। তবে ৩০ টাকার নিচের রিচার্জ অফার এবং স্ক্র্যাচ কার্ড আগের মতই ব্যবহার করা যাবে।’

উল্লেখ্য, একেবারে শুরুর দিকে ফ্লেক্সিলোডের মাধ্যমে জিপি সিমে সর্বনিম্ন ১০ টাকা রিচার্জ করা যেত। ২০২২ সালের জুলাই মাসে এই টাকার পরিমাণ বৃদ্ধি করে সর্বনিম্ন রিচার্জ অ্যামাউন্ট ২০ টাকা করা হয়। এখন ২০২৪ সালে আবারও তা বৃদ্ধি করে ৩০ টাকা করার ঘোষণা দিলেও তা বাস্তবায়ন করতে পারেনি গ্রামীণফোন।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

সিমে সর্বনিম্ন রিচার্জ অপারেটরের ইচ্ছায় নয় : বিটিআরসি চেয়ারম্যান

আপলোড টাইম : ১১:১৪:৫৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জানুয়ারী ২০২৪

সমীকরণ প্রতিবেদক:

দেশে প্রচলিত বিভিন্ন কোম্পানির সিমে রিচার্জের ক্ষেত্রে সর্বনিম্ন রিচার্জ অ্যামাউন্ট নির্ধারণ করার সুযোগ আর অপারেটরদের হাতে থাকছে না। বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করবে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। তবে, এ ক্ষেত্রে মোবাইল ফোন অপারেটর অপারেটরগুলোর সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে স্পষ্ট নির্দেশনা দেওয়া হবে।

সম্প্রতি এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মো. মহিউদ্দিন আহমেদ।

তিনি বলেন, ‘গ্রামীণফোনের (জিপি) সিমে রিচার্জের ক্ষেত্রে সর্বনিম্ন অ্যামাউন্ট ৩০ টাকা করার বিষয়টি আমাদের নজরে আসার সাথে সাথেই বন্ধ করা হয়েছে। গ্রামীণফোন অপারেটররা একটা সিদ্ধান্ত নিয়ে তাদের অ্যাপে দিয়েছিল যে, ৯ জানুয়ারি মধ্যরাতের পর থেকে জিপি সিমে সর্বনিম্ন ৩০ টাকা রিচার্জ করতে হবে। বিষয়টি আমাদের নজরে আসার পরপরই সংশ্লিষ্ট অপারেটরদের সাথে কথা বলা হয়েছে। পরে সেই সিদ্ধান্ত থেকে তারা সরে এসেছে।’

‘শুধু গ্রামীণফোন নয় বরং কোনো অপারেটরই নিজে থেকে রিচার্জ অ্যামাউন্ট কমাতে-বাড়াতে পারবেন না। এটা সিদ্ধান্ত হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে আমাদের চিন্তাভাবনা চলছে। মোটকথা আমাদের (বিটিআরসির) সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে তারা (অপারেটররা) এসব কাজ করতে পারবেন না।’

বিষয়টি নিয়ে আলোচনার জন্য সকল অপারেটরদের নিয়ে আলোচনায় বসার চিন্তা রয়েছে কি না, এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘অবশ্যই। আমরা তাদের কথা শুনব। তারপর আলোচনা করে বিটিআরসি সিদ্ধান্ত দেবে। সবাইকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। আমাদের কার্যক্রম চলছে। এক্ষেত্রে সবার কথাই আমরা শুনব। তাদের যদি বিষয়টি নিয়ে কোনো বক্তব্য থাকে, সেটিও আমলে নেওয়া হবে। তবে চাইলেই যে কেউ রিচার্জ অ্যামাউন্ট বাড়াতে পারবে না।’

বিষয়টি নিয়ে বিটিআরসির স্পষ্ট কোনো দিকনির্দেশনা ছিল না উল্লেখ করে তিরি আরও বলেন, ‘রিচার্জ অ্যামাউন্ট নিয়ে ইতঃপূর্বে বিটিআরসির স্পষ্ট দিকনির্দেশনা ছিল না। সেজন্য হয়ত তারা বিষয়টি নিয়ে নিজেদের মতো করে সিদ্ধান্ত দিয়েছিল। তবে বিষয়টি নিয়ে সবার সাথে আলোচনা করে বিটিআরসি স্বচ্ছ ও উপযোগী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে।’

এর আগে, গত ১০ জানুয়ারি থেকে গ্রামীণফোনের (জিপি) সিমে সর্বনিম্ন রিচার্জ অ্যামাউন্ট হিসেবে ৩০ টাকা রিচার্জ করতে হবে— এমন সিদ্ধান্ত জানায় কোম্পানিটি। যদিও গ্রাহক পর্যায়ে তীব্র সমালোচনা এবং পরবর্তী সময়ে বিটিআরসির নির্দেশনার ফলে এ সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে গ্রামীণফোন।

বুধবার (১০ জানুয়ারি) বিষয়টি নিয়ে গ্রামীণফোনের হেড অব কমিউনিকেশনস শারফুদ্দিন আহমেদ চৌধুরী বলেছিলেন, ‘আমরা এটা এখন বাস্তবায়ন করছি না। এ বিষয়ে বিটিআরসির সঙ্গে আলোচনা হবে। সেই আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে আমরা পরবর্তী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করব।’

সে সময় তিনি বলেন, ‘সর্বনিম্ন ব্যালেন্স রিচার্জ ৩০ টাকা করার বিষয়টি আমরা বিবেচনা করেছিলাম। তবে গ্রাহক সুবিধার্থে বর্তমানে আমাদের আরও বিভিন্ন ধরনের যে রিচার্জ অপশনগুলো রয়েছে… যেমন- ১৪ টাকা, ১৯ টাকা। একই সাথে ২৯ টাকা রিচার্জে মিনিট প্যাক, ২০ টাকার ব্যালেন্স রিচার্জ কার্ড, ১৪ টাকা ও ১৯ টাকার মিনিট ও ডাটা কার্ড এবং ২৯ টাকার ডাটা কার্ড সেবা চালু রয়েছে। সর্বনিম্ন ব্যালেন্স রিচার্জ ৩০ টাকা হলেও, অন্যান্য এই অপশনগুলো গ্রাহকরা ব্যবহার করতে পারতেন।’

এর আগে, ১০ জানুয়ারি থেকে গ্রামীণফোনের (জিপি) সিমে সর্বনিম্ন রিচার্জ অ্যামাউন্ট হিসেবে ৩০ টাকা রিচার্জ করতে হবে— এমন বার্তা পাঠায় কোম্পানিটি। গ্রাহক পর্যায়ে এসএমএস এবং মাই জিপি অ্যাপে নোটিফিকেশন দিয়ে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।

মাই জিপি অ্যাপের নোটিফিকেশনে বলা হয়, ১০ জানুয়ারি থেকে সর্বনিম্ন রিচার্জ অ্যামাউন্ট ৩০ টাকা হয়ে যাবে।

গ্রামীণফোন থেকে গ্রাহকদের সিমে পাঠানো এসএমএস বলা হয়— ‘প্রিয় গ্রাহক, আগামী ১০ জানুয়ারি থেকে সর্বনিম্ন রিচার্জ অ্যামাউন্ট ৩০ টাকা করা হবে। তবে ৩০ টাকার নিচের রিচার্জ অফার এবং স্ক্র্যাচ কার্ড আগের মতই ব্যবহার করা যাবে।’

উল্লেখ্য, একেবারে শুরুর দিকে ফ্লেক্সিলোডের মাধ্যমে জিপি সিমে সর্বনিম্ন ১০ টাকা রিচার্জ করা যেত। ২০২২ সালের জুলাই মাসে এই টাকার পরিমাণ বৃদ্ধি করে সর্বনিম্ন রিচার্জ অ্যামাউন্ট ২০ টাকা করা হয়। এখন ২০২৪ সালে আবারও তা বৃদ্ধি করে ৩০ টাকা করার ঘোষণা দিলেও তা বাস্তবায়ন করতে পারেনি গ্রামীণফোন।