ইপেপার । আজ রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ঈগল প্রতীকের প্রচার গাড়িতে হামলা ও চালককে মারধরের অভিযোগ

সমীকরণ প্রতিবেদন
  • আপলোড টাইম : ১১:৪৮:১৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০২৩
  • / ৪ বার পড়া হয়েছে

সমীকরণ প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী দিলীপ কুমার আগরওয়ালার ঈগল প্রতীকের প্রচার গাড়িতে হামলা ও চালক বজলু (৪০) নামের এক ব্যক্তিকে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে সাতটার দিকে এই ঘটনা ঘটে। ইজিবাইক চালক বজলু চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার শংকরচন্দ্র মন্ডলপাড়া মসজিদ এলাকার মৃত আজিজুলের ছেলে।

ভুক্তোভোগী বজলু বলেন, ‘আমি সন্ধ্যার দিকে ইজিবাইকে ঈগল মার্কার প্রচার করে বেড়াচ্ছিলাম। শংকরচন্দ্র পুরোনো মসজিদের কাছে কুচো-কাচা বাঁচ্চা আমার প্রচার গাড়িতে উঠে পড়ে। এসময় আমি তাদের বলি কাকু তোমাদের চাকার মধ্যে পা গেলে সমস্যা। এরপর বাচ্চাদের নামিয়ে দিলাম। এসময় একটা বাঁচ্চা গাড়িতে লাগানো দিলীপ দাদার পোস্টার ছিড়ে ফেলে।

আমি তাকে বলি দাদার ছবি ছিড়লে কেন। এ কথার বলার সঙ্গে সঙ্গে পাশ থেকে নৌকা প্রতীকের মো. আত্তাবের ছেলে শিমুল (৩০) খারাপ ভাষায় গাল দিয়ে বলে এই ছবি ছিড়েছে তাই কী রে। এই বলে আমাকে ও মারধর করে। আমাকে পা দিয়ে চটকানি দিয়েছে। আমি অজ্ঞান হয়ে গিয়েছিলাম। এসময় আমাকে আর কেউ মারধর করছিল কি না আমি জানি না। আমার নাক-মুখ দিয়ে রক্ত বের হচ্ছিল।’

গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে মোবাইল ফোনে বজলু জানান, হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে তিনি চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় রয়েছেন। এর আগে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সাইফুল ইসলাম সাইফ ও পুলিশ সদস্যরা।

ঘটনা সম্পর্কে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ সেকেন্দার আলী বলেন, এ বিষয়ে থানায় একটি অভিযোগ হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

ঈগল প্রতীকের প্রচার গাড়িতে হামলা ও চালককে মারধরের অভিযোগ

আপলোড টাইম : ১১:৪৮:১৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০২৩

সমীকরণ প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী দিলীপ কুমার আগরওয়ালার ঈগল প্রতীকের প্রচার গাড়িতে হামলা ও চালক বজলু (৪০) নামের এক ব্যক্তিকে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে সাতটার দিকে এই ঘটনা ঘটে। ইজিবাইক চালক বজলু চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার শংকরচন্দ্র মন্ডলপাড়া মসজিদ এলাকার মৃত আজিজুলের ছেলে।

ভুক্তোভোগী বজলু বলেন, ‘আমি সন্ধ্যার দিকে ইজিবাইকে ঈগল মার্কার প্রচার করে বেড়াচ্ছিলাম। শংকরচন্দ্র পুরোনো মসজিদের কাছে কুচো-কাচা বাঁচ্চা আমার প্রচার গাড়িতে উঠে পড়ে। এসময় আমি তাদের বলি কাকু তোমাদের চাকার মধ্যে পা গেলে সমস্যা। এরপর বাচ্চাদের নামিয়ে দিলাম। এসময় একটা বাঁচ্চা গাড়িতে লাগানো দিলীপ দাদার পোস্টার ছিড়ে ফেলে।

আমি তাকে বলি দাদার ছবি ছিড়লে কেন। এ কথার বলার সঙ্গে সঙ্গে পাশ থেকে নৌকা প্রতীকের মো. আত্তাবের ছেলে শিমুল (৩০) খারাপ ভাষায় গাল দিয়ে বলে এই ছবি ছিড়েছে তাই কী রে। এই বলে আমাকে ও মারধর করে। আমাকে পা দিয়ে চটকানি দিয়েছে। আমি অজ্ঞান হয়ে গিয়েছিলাম। এসময় আমাকে আর কেউ মারধর করছিল কি না আমি জানি না। আমার নাক-মুখ দিয়ে রক্ত বের হচ্ছিল।’

গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে মোবাইল ফোনে বজলু জানান, হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে তিনি চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় রয়েছেন। এর আগে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সাইফুল ইসলাম সাইফ ও পুলিশ সদস্যরা।

ঘটনা সম্পর্কে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ সেকেন্দার আলী বলেন, এ বিষয়ে থানায় একটি অভিযোগ হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।