চুয়াডাঙ্গা সোমবার , ১১ ডিসেম্বর ২০২৩

মানবাধিকার দিবসে সারা দেশের ন্যায় চুয়াডাঙ্গা ও ঝিনাইদহে বিএনপির মানববন্ধন

‘মিথ্যা মামলায় গ্রেপ্তার করে হাজতে দেয়া চরম মানবাধিকার লঙ্ঘন’

নিউজ রুমঃ
ডিসেম্বর ১১, ২০২৩ ৯:৫৮ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

সমীকরণ প্রতিবেদক:
আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী সারাদেশে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে বিএনপি। এর অংশ হিসেবে গতকাল রোববার চুয়াডাঙ্গা ও ঝিনাইদহে মানববন্ধন করেছেন দলটির নেতা-কর্মীরা। মানবাধিকার লংঘনের শিকার নেতা-কর্মী ও তাদের স্বজনরা এ মানববন্ধন কর্মসূচিতে অংশ নেয়।
চুয়াডাঙ্গা:
বিএনপির পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী ১০ই ডিসেম্বর আন্তজার্তিক মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে মানবাধিকার লঙ্ঘনের শিকার হওয়া নেতা-কর্মী ও সাধারণ নাগরিকদের পরিবারের সদস্যদের নিয়ে মানববন্ধন করেছে চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপি। গতকাল রোববার বেলা সাড়ে ১১টায় চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও জেলা মহিলা দলের সভাপতি রউফ উর নাহার রিনার সভাপতিত্বে মাবনবন্ধনে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মানি খন্দকার।


প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, বিএনপির চলমান আন্দোলন ঘিরে সরকার পুলিশ বাহিনী দিয়ে নিরীহ কর্মীদের মিথ্যা মামলায় গ্রেপ্তার করে কারাগারে রেখেছে। মাসের পর মাস তাদের পরিবারের সদস্যরা মানবেতর জীবনযাপন করছেন। মিথ্যা, বানোয়াট মামলা দিয়ে গ্রেপ্তার করিয়ে হাজতে দেওয়া চরম মানবাধিকার লঙ্ঘন। আমরা দ্রুত এসব নেতা-কর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানাই। তিনি বলেন, মানবাধিকার আদায়, আওয়ামী লীগ সরকারের পদত্যাগ, দ্বাদশ নির্বাচনী তফসিল বাতিল, দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াসহ বিরোধী দলীয় নেতা-কর্মীদের মুক্তি ও নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের এক দফা দাবি আদায় না হওয়ায় পর্যন্ত আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাবো।
মানববন্ধনে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন জেলা মৎস্যজীবী দলের সভাপতি আবুবক্কর সিদ্দিক বকুল, জেলা মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক জাহানারা বেগম, সাংগঠনিক সম্পাদক নাসরীন পারভিনসহ বিএনপি ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। সমাপনি বক্তব্যে জেলা মহিলা দলের সভাপতি রউফ উর নাহার রিনা বলেন, এই সরকারের আমলে আমরা মানবাধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছি। আজ আমাদের কথা বলার স্বাধীনতা নেই। রাজপথে দাঁড়ানোর অধিকার নেই। পুলিশ প্রশাসন থেকে আমাদের বারবার বাঁধা দেওয়া হচ্ছে। আমরা সকল বাঁধা অতিক্রম করে সাধারণ মানুষের দাবি আদায় করেই ছাড়বো।

ঝিনাইদহ:
সদর উপজেলার বেড়াশুলা গ্রামের জসিম উদ্দীন একজন রেমিটেন্স যোদ্ধা। ১০ বছর বিদেশে ছিলেন। ৬ মাস আগে বাড়ি ফিরেছেন তিনি। এরই মধ্যে সরকার বিরোধী সমর্থক বানিয়ে তাকে নাশকতা মামলায় গ্রেপ্তার করেছে। তিনি এখন কারাগারে। দিনের পর দিন পার হলেও জামিন মিলছে না তাঁর। জসিমের মতো বাদপুকুর গ্রামের আল ফারুক একজন চাতাল ব্যবসায়ী। ব্যবসার বাইরে তার কোনো পরিচয় নেই। নিজ চাতালে বোমা তৈরি করছিলেন, এমন অভিযোগে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এমন অবিচারের শিকার ব্যক্তিদের সমর্থনে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবসে ঝিনাইদহে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে বিএনপি। গতকাল রোববার সকালে মানবাধিকার লঙ্ঘনের শিকার নেতা-কর্মী ও তাদের স্বজনদের উপস্থিতিতে ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনের সড়কে এ কর্মসূচি পালিত হয়। ঝিনাইদহ জেলা বিএনপি, মহিলা দলসহ উপজেলা বিএনপির নেতা-কর্মীরা পৃথক ব্যানার নিয়ে এই কর্মসূচিতে অংশ নেয়।
ঝিনাইদহ জেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাড. এম এম মজিদের সার্বিক তত্ত্বাবধানে কর্মসূচিতে কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ফিরোজ, জেলা বিএনপির উপদেষ্টা ও ঝিনাইদহ আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাড. রবিউল ইসলাম, পৌর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাড. শামসুজ্জামান লাকি, জেলা বিএনপির মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. জাকারিয়া মিলন, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক তহুরা খাতুন ও জেলা বিএনপির আইন বিষয়ক সহ-সম্পাদক অ্যাড. আব্দুল আলিম বক্তব্য দেন।
মানববন্ধন কর্মসূচি শেষে এক সমাবেশে বক্তারা বলেন, বিএনপির চলমান আন্দোলন ঘিরে সরকার পুলিশ বাহিনী দিয়ে নিরীহ কর্মীদের মিথ্যা মামলায় গ্রেপ্তার করে কারাগারে রেখেছে। মাসের পর মাস তাদের পরিবারের সদস্যরা মানবেতর জীবনযাপন করছেন। আদালতের আশ্রয় নিয়েও জামিন মিলছে না। গায়েবী, মিথ্যা ও বানোয়াট মামলা দিয়ে গ্রেপ্তার করে হাজতে আটকে রাখা চরম মানবাধিকার লঙ্ঘন। বক্তারা দ্রুত এসব নেতা-কর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানান তারা।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।