ইপেপার । আজ মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

আন্দুলবাড়ীয়ায় কবিরাজ শওকত আলীর ইন্তেকাল

সমীকরণ প্রতিবেদন
  • আপলোড টাইম : ১০:৪১:২০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৮ ডিসেম্বর ২০২৩
  • / ৪ বার পড়া হয়েছে

প্রতিবেদক, আন্দুলবাড়ীয়া:
জীবননগর উপজেলার আন্দুলবাড়ীয়া গ্রামের সুপরিচিত মুখ কবিরাজ শওকত আলী মন্ডল ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন। গত বুধবার দিনগত রাত দেড়টার দিকে আন্দুলবাড়ীয়া গ্রামের মণ্ডলপাড়ার নিজ বাড়িতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭০ বছর।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, শওকত আলী দীর্ঘদিন ধরে শ্বাসকষ্টজনিত রোগে ভুগছিলেন। এরই মধ্যে গত বুধবার রাতে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, চার ছেলে ও তিন মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা দুইটায় আন্দুলবাড়ীয়া পীরে কামেল হযরত খাজা পারেশ সাহেবের রওজা, কেন্দ্রীয় কবরস্থান ও ঈদগাহ ময়দানে মরহুমের জানাজা নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে একই কবরস্থানে তাঁর দাফনকার্য সম্পন্ন করা হয়। জানাজায় ইমামতি করেন জামাতা শরিফুল ইসলাম।
মরহুমের জানাজা ও দাফনকার্যে অংশ নেন এলাকার সুধী, শিক্ষক, সাংবাদিক, ব্যবসায়ী, ওঁঝা-কবিরাজসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। কবিরাজ শওকত আলী মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন আন্দুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মির্জা হাকিবুর রহমান লিটন, জীবননগর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আনোয়ার হোসেন খান খোকন, সাবেক চেয়ারম্যান শেখ শফিকুল ইসলাম মোক্তার, আন্দুলবাড়ীয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম মামুন ও প্রয়াতের ভাতিজা আন্দুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জোহা।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

আন্দুলবাড়ীয়ায় কবিরাজ শওকত আলীর ইন্তেকাল

আপলোড টাইম : ১০:৪১:২০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৮ ডিসেম্বর ২০২৩

প্রতিবেদক, আন্দুলবাড়ীয়া:
জীবননগর উপজেলার আন্দুলবাড়ীয়া গ্রামের সুপরিচিত মুখ কবিরাজ শওকত আলী মন্ডল ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন। গত বুধবার দিনগত রাত দেড়টার দিকে আন্দুলবাড়ীয়া গ্রামের মণ্ডলপাড়ার নিজ বাড়িতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭০ বছর।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, শওকত আলী দীর্ঘদিন ধরে শ্বাসকষ্টজনিত রোগে ভুগছিলেন। এরই মধ্যে গত বুধবার রাতে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, চার ছেলে ও তিন মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা দুইটায় আন্দুলবাড়ীয়া পীরে কামেল হযরত খাজা পারেশ সাহেবের রওজা, কেন্দ্রীয় কবরস্থান ও ঈদগাহ ময়দানে মরহুমের জানাজা নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে একই কবরস্থানে তাঁর দাফনকার্য সম্পন্ন করা হয়। জানাজায় ইমামতি করেন জামাতা শরিফুল ইসলাম।
মরহুমের জানাজা ও দাফনকার্যে অংশ নেন এলাকার সুধী, শিক্ষক, সাংবাদিক, ব্যবসায়ী, ওঁঝা-কবিরাজসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। কবিরাজ শওকত আলী মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন আন্দুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মির্জা হাকিবুর রহমান লিটন, জীবননগর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আনোয়ার হোসেন খান খোকন, সাবেক চেয়ারম্যান শেখ শফিকুল ইসলাম মোক্তার, আন্দুলবাড়ীয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম মামুন ও প্রয়াতের ভাতিজা আন্দুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জোহা।