চুয়াডাঙ্গা শনিবার , ১৩ মে ২০২৩

রানের পাহাড় টপকে টাইগারদের রোমাঞ্চকর জয়

নিউজ রুমঃ
মে ১৩, ২০২৩ ২:৩০ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

সমীকরণ প্রতিবেদন:
শেষ ওভারে জয়ের জন্য বাংলাদেশের প্রয়োজন ছিল ৫ রান। হাতে ছিল ৩ উইকেট। জশ লিটলের করা ওভারের প্রথম দুই বলে বড় শটে যাননি মুশফিক। কিন্তু গ্রাউন্ডে খেলতে গিয়ে গ্যাপ বের করতে পারেননি। তাতে দুই বলই হয় ডট। ফলে সমীকরণ দাঁড়ায় ৪ বলে ৫ রানের। তবে রোমাঞ্চের সবটুকু তখনও বাকি ছিল! তৃতীয় ডেলিভারীটি ফুলটস করতে গিয়ে হাই নো করেন লিটল, তাতে জোরে হাঁকালেও এক রানের বেশি পাননি মুশফিক। তবে নো বল হওয়ায় সবমিলিয়ে দুই রান পায় বাংলাদেশ। তাই ৪ বলে ৪ রানের সমীকরণ মাথায় নিয়ে স্ট্রাইক প্রান্তে যান শরিফুল। আর তাতে বৈধ তৃতীয় বলেই স্কুপ করে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে জয় নিশ্চিত করেন তিনি।

বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৪৪ ওভার ৪ বলে ৭ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ। দলে পক্ষে সর্বোচ্চ ১১৭ রান এসেছে শান্তর ব্যাট থেকে। এর আগে শুরুতে ব্যাটিং করতে নেমে হ্যারি টেক্টরের সেঞ্চুরিতে ভর করে নির্ধারিত ৪৫ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ৩১৯ রান তুলে আয়ারল্যান্ড। যা বাংলাদেশের বিপক্ষে আইরিশদের সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ।

৩২০ রানের জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুতেই আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন তামিম ইকবাল। মার্ক অ্যাডায়ারের বলে লেগ স্কয়ারে ফ্লিক করতে গিয়ে তিনি শর্টে থাকা ফিল্ডারের তালুবন্দী হয়েছেন। সাজঘরে ফেরার আগে অধিনায়কের ব্যাট থেকে এসেছে ১৩ বলে ৭ রান। তাতে ৯ রানেই প্রথম উইকেট হারিয়েছে টাইগাররা।

তামিমের বিদায়ের পর বেশ দেখেশুনেই খেলছিলেন লিটন। কিন্তু দশম ওভারে গ্রাহাম হিউমের করা অফ স্টাম্পের বাইরের বলে অযথাই খোঁচা দিয়ে বসেন তিনি। আইরিশ উইকেটরক্ষক লরকান টাকার সেটি তালুবন্দী করতে মোটেও ভুল করেননি। ২১ বলে ২১ রান করেন তিনি। তাতে ৪০ রান তুলতেই দুই ওপেনারকে হারিয়ে বিপাকে পড়ে বাংলাদেশ।

তবে সেখান থেকে দলকে টেনে তুলেন নাজমুল হোসেন শান্ত ও সাকি ব আল হাসান। এই দুই বাঁহাতি ব্যাটারে ভর করে ১৬.২ ওভারে বাংলাদেশ শতরান পূর্ণ করে। তবে সাকিব ২৬ রান করে বিদায় নিলে ভাঙ্গে ৬১ রানের জুটি। তিন অভিজ্ঞ ব্যাটারকে হারানোর পর দুই তরুণ ব্যাটারে স্বস্তি ফেরে টাইগার শিবিরে। তাওহীদ হৃদয়কে সঙ্গে নিয়ে এদিন দুর্দান্ত ব্যাটিং করেছেন নাজমুল হোসেন শান্ত। সমান ৪৯ বলে ব্যাক্তিগত অর্ধশতক স্পর্শ করেন দুইজনই। এরপর হৃদয় ৬৮ রানে ফিরলে ভাঙ্গে ১৩১ রানের চতুর্থ উইকেট জুটি। সঙ্গীকে হারালেও রানের চাকা সচল রাখেন শান্ত। ৮৩ বলে নিজের প্রথম সাদা বলের সেঞ্চুরি তুলে নেন এই টপ অর্ডার ব্যাটার। ১১৭ রান করে শান্ত যখন প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন তখন ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ বাংলাদেশের হাতে। বাকি কাজটুকু মিরাজ-তাইজুলদের সঙ্গে নিয়ে পাকাহাতে সেড়েছেন মুশফিকুর রহিম।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।