ইপেপার । আজ রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

চুয়াডাঙ্গায় বর্ণাঢ্য আয়োজনে বঙ্গবন্ধুর ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদ্যাপন

গভীর শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ

সমীকরণ প্রতিবেদন
  • আপলোড টাইম : ০৭:১৬:৪৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মার্চ ২০২৩
  • / ১ বার পড়া হয়েছে

আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখছেন চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন এমপি।

বঙ্গবন্ধু বাঙালি জাতিকে জাগিয়ে তুলে স্বাধীনতার মন্ত্রে উদ্দীপ্ত করেছিলেন-এমপি ছেলুন জোয়ার্দ্দার

 

সমীকরণ প্রতিবেদক:

গভীর শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় দেশে নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে স্বাধীনতার স্থপতি, মহাকালের মহানায়ক সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মবার্ষিকী পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে গতকাল শুক্রবার চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর, ঝিনাইদহসহ সারাদেশে নান কর্মসূচি পালিত হয়েছে। একই সঙ্গে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে এ বছর ‘স্মার্ট বাংলাদেশের স্বপ্নে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন, শিশুদের চোখ সমৃদ্ধির স্বপ্নে রঙিন’ প্রতিপাদ্য নিয়ে পালিত হয়েছে জাতীয় শিশু দিবস-২০২৩।

চুয়াডাঙ্গা:

বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যদিয়ে চুয়াডাঙ্গায় উদ্যাপন করা হয়েছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস-২০২৩। এ উপলক্ষে গতকাল শুক্রবার (১৭ই মার্চ) সকাল ৯টায় চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে জেলা প্রশাসন, পুলিশ বিভাগ, জেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনসহ জেলার সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। সকাল সাড়ে নয়টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বর থেকে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়। শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদিক্ষণ শেষে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরের ডিসি সাহিত্য মঞ্চে এসে শেষ হয়। পরে ডিসি সাহিত্য মঞ্চে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। সরকারি শিশু সদন, সদর হাসপাতাল এবং জেলা কারাগারে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হয়েছে। সুবিধাজনক সময়ে জেলার সকল মসজিদ, মন্দি ও গীর্জায় জাতির পিতা ও তাঁর পরিবারের সদস্যগণের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ প্রার্থনা করা হয়েছে।

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ:

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খানের নেতৃত্বে জেলা প্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ আল মামুনের নেতৃত্বে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পূষ্পস্তবক অর্পণ করেন। বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সাবেক আবু হোসেনের নেতৃত্বে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ, চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সদ্য সাবেক স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর ডা. মাহবুব হোসেন মেহেদী, পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম মালিক খোকনের নেতৃত্বে চুয়াডাঙ্গা পৌর পরিষদ, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজ, সরকারি আদর্শ মহিলা কলেজ, আনসার ও ভিডিপি, গণপূর্ত বিভাগ, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড চুয়াডাঙ্গা, এলজিউডি, চুয়াডাঙ্গা টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, টিটিসি, চুয়াডাঙ্গা পৌর ডিগ্রি কলেজ, চুয়াডাঙ্গা স্বাস্থ্যবিভাগ, বঙ্গবন্ধু পরিষদ স্বাস্থ্যবিভাগ চুয়াডাঙ্গা, জেলা গণগ্রন্থাগার, বাংলাদেশ কৃষি ইনস্টিটিউট চুয়াডাঙ্গা, বিএডিসি, মেহেরপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি, জেলা মৎস্য অফিস, রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি চুয়াডাঙ্গা, ফায়ার সার্ভিস চুয়াডাঙ্গাসহ বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি দপ্তর ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পুষ্পস্তবক অর্পণ করে।

আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরষ্কার বিতরণ:

সকাল ১০টায় চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসনের আয়োজনে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরের ডিসি সাহিত্য মঞ্চে আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়। চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর আগে ও পরে বহু খ্যাতিমান রাজনীতিবিদ এসেছেন। কিন্তু এমন করে কেউ বাঙালিকে জাগাতে পারেননি। বঙ্গবন্ধু তাঁর নেতৃত্বের সম্মোহনী শক্তির এক জাদুকরী স্পর্শে ঘুমন্ত ও পদানত বাঙালি জাতিকে জাগিয়ে তুলে স্বাধীনতার মন্ত্রে উদ্দীপ্ত করেছিলেন।’

আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একটি আদর্শ, চেতনা ও দর্শনের নাম। বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশ। তিনি নিজেই একটি ইতিহাস। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শুধু বাঙালির বঙ্গবন্ধু নয়, তিনি বিশ্ববরেণ্য রাজনীতিক ‘বিশ্ববন্ধু’ উপাধিতেও বিশ্বনন্দিত। বঙ্গবন্ধুর শ্রেষ্ঠত্ব হলো তিনি শুধু বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্রের একজন স্বপ্নদ্রষ্টাই ছিলেন না, তিনি বাঙালি জাতিকে অনন্য সাধারণ ঐক্যের বন্ধনে আবদ্ধ করে হাজার বছরের বাঙালি জাতির স্বপ্নকে বাস্তবে রূপদান করতে সক্ষম হয়েছিলেন।’

এসময় জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান শিশুদের প্রতি দৃষ্টি আর্কষণ করে বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর সম্পর্কে জানতে হবে। বাংলাদেশ সম্পর্কে জানতে হবে। একজন মানুষ কীভাবে বাঙালি জাতির জনক হলেন, সেই ত্যাগ ও তিতিক্ষার কথা জানতে হবে। বঙ্গবন্ধু সারাজীবন আমাদের কথা ভেবেছেন। আমাদের কথা চিন্তা করেছেন।’

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গার পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ আল মামুন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমান মন্জু, চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার মেয়র জাহাঙ্গীর আলম মালিক, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর এ কে এম সাইফুর রশিদ ও চুয়াডাঙ্গা সরকারি আদর্শ মহিলা কলেজের প্রফেসর আজিজুর রহমান।

চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মুন্সি আবু সাঈফের প্রাণবন্ত উপস্থাপনায় এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজাদুল ইসলাম আজাদ, চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আরাফাত রহমান, চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কবীর হোসেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) নাজমুল হামিদ রেজা, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম ভূঁইয়া, চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সদ্য সাবেক স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর ডা. মাহবুব হোসেন মেহেদী, এনডিসি সাদাত হোসেনসহ চুয়াডাঙ্গা কালেক্টরেটের সিনিয়র ও সহকারী কমিশনারবৃন্দ, বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা, রাজনৈতিক ব্যক্তি, সাংবাদিক, ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা। অনুষ্ঠানে শিশুদের সাথে নিয়ে অতিথিরা বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনের কেক কাটেন। পরে বিভিন্ন জেলা শিল্পকলা একাডেমি ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। এর আগে বিভিন্ন প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ করা হয়।০

কেক কাটছেন চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন এমপি।।

চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের কর্মসূচি:

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে দিনব্যাপী নানা কর্মসূচি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করেছে চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগ। কর্মসূচির মধ্যে ছিল সকাল ৭টায় দলীয় কার্যালেয় জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্পমাল্য অর্পণ। সন্ধ্যা ৭টায় দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল ও জন্মদিনের কেক কাটা হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি নাসির উদ্দিন আহমেদ ও খুস্তার জামিল, সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন, সাবেক দপ্তর সম্পাদক অ্যাড. আবু তালেব বিশ্বাস, সাবেক যুব ও ক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক আরশাদ উদ্দীন আহমেদ চন্দন, সাবেক বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. তালিম হোসেন, সাবেক উপ-প্রচার সম্পাদক শওকত আলী বিশ্বাস, সাবেক কার্যনির্বাহী সদস্য অ্যাড. বেলাল হোসেন, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আলাউদ্দিন হেলা, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের, পৌর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি/সাধারণ সম্পাদকবৃন্দ, জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি আফজালুল হক বিশ্বাস, জেলা কৃষক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তহিদুর রহমান চন্দন, কৃষক লীগ নেতা মহাসিন রেজা, মহিলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদিকা নুরুন্নাহার কাকলী, জাতীয় মহিলা সংস্থার সভাপতি নাবিলা রুকসানা ছন্দা, সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান গরিব রুহানী মাসুম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহাজাদি মিলি, পৌর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাফিয়া শাহাব, যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক গিণি ইসলাম, জেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক আরেফিন আলম রঞ্জু, যুবলীগ নেতা রেজাউল করিম, শেখ সেলিম, সুমন আহমেদ, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি সাহাবুল হোসেন, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হাফিজুর ইসলাম লাল্টুসহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবলীগের কর্মসূচি:

নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালন করেছে চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী যুবলীগ। দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে গতকাল সকাল সাতটায় জেলা যুবলীগের কার্যালয়ে সামনে জাতীয় সংগীতের সঙ্গে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পতাকা উত্তোলন করে কর্মসূচির সূচনা করেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার আহ্বায়ক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার। পতাকা উত্তোলন শেষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়।

সকাল সাড়ে আটটায় জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দারের নেতৃত্বে দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে। পরবর্তীতে বাদ আছর জেলা যুবলীগের আয়োজনে দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা যুবলীগের সদস্য হাফিজুর রহমান হাপুর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার। বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য জুবায়ের আহমেদ সাব্বির, চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবলীগের সদস্য আজাদ আলী, সাজেদুল ইসলাম লাভলু ও আবু বকর সিদ্দিক আরিফ।

আলোচনা সভা শেষে দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন যুবলীগ নেতা পিরু মিয়া, শেখ শাহী, যুবলীগ নেতা মাসুদুর রহমান মাসুম, হাসানুল ইসলাম পলেন, কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আল ইমরান শুভ, ছাত্রলীগের সাবেক নেতা রামীম হাসান সৈকত, পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি সামিউল শেখ সুইট, শেখ রাসেল, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য খালিদ মন্ডল, দিপু বিশ্বাস, চুয়াডাঙ্গা পৌর ৩ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি রানা, সাধারণ সম্পাদক খান জাহান, ৫ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি আলিম, সাধারণ সম্পাদক মিঠুন, ৭ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি আসাদ, সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব, পদ্মবিলা ইউনিয়ন যুবলীগের সহসভাপতি বিপ্লব হোসেন প্রমুখ। দোয়া অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন স্টেডিয়াম জামে মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ ওমর ফারুক।

চুয়াডাঙ্গা জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগের কর্মসূচি:

চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যদিয়ে চুয়াডাঙ্গায় উদ্যাপন করা হয়েছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস-২০২৩। এ উপলক্ষে গতকাল শুক্রবার আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল, কেক কাটাসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়। সকালে কেদারগঞ্জে জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের অফিসের সামনে জাতীয় সংগীতের সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোলন এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। বাদ মাগরিব স্বেচ্ছাসেবক লীগ অফিসে আলোচনা সভা, দোয়া ও কেক কাটার আয়োজন করা হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি থেকে বক্তব্য দেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক ও চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার সাবেক মেয়র ওবাইদুর রহমান চৌধুরী জিপু।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালি জাতিকে অন্ধকার হতে আলোর পথে নিয়ে যেতে কাজ করেছিলেন। তিনি ছিলেন মানবিক নেতা। তাইতো তিনি দেশের মানুষের প্রতি ভালোবাসা রেখেছেন তাঁর জীবনের প্রতিটি কর্মের মধ্যদিয়ে। তিনি ছিলেন অসাধারণ একজন মানুষ। তিনি দেশের মানুষকে ভালোবেসে অভুক্ত মানুষকে গোলার ধান দিয়ে দিতেন, নিজের ছাতাটি পর্যন্ত দিয়ে দিতেন, নিজের জামা-কাপড় পর্যন্ত বস্ত্রহীন মানুষকে দিয়ে দিতেন। তিনি সততার সাথে জীবন পরিচালনা করেছেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জন্ম নিয়েছিলেন বলেই আজ বাংলাদেশ স্বাধীন। তাঁর ৫৫ বছরের জীবনটা বিশ্লেষণ করলে দেখা যায় যে তিনি শুধু রাজনৈতিক নেতা ছিলেন না, তিনি ছিলেন একজন কালজয়ী দার্শনিক। তাঁর দেখা স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করছেন আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বেই বাংলাদেশ আজ উন্নয়নশীল দেশের কাতারে।’

এসময় বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মতিয়ার রহমান মতি, জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য আবুল হোসেন মিলন, আব্দুর রাজ্জাক, বিপ্লব আহমেদ, আল ইমরান বিপ্লব, আলহিম, শ্রমিক লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মুক্তার মিলন, দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আক্তারুজ্জামান বাবু, পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আব্দুল হালিম, সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাফিজুর রহমান মাফি, চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. জানিফ, ১ নম্বর ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক খন্দকার মামুন, ২ নম্বর ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মিলন শেখ, ৩ নম্বর ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নাজমুল হোসাইন, ৪ নম্বর ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সেলিম উদ্দিন পিণ্টু ও সাধারণ সম্পাদক রবিন, ৫ নম্বর ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি তাওরাত হোসেন ও পৌর ছাত্রলীগেরসহ সভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেন, ছাত্রলীগ নেতা রাকিবুল ইসলাম নিপ্পন।

আলমডাঙ্গা:

আলমডাঙ্গা উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত হয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে গতকাল সকাল সাড়ে ৭টার দিকে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও সকাল ৮টায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পমাল্য অর্পণ করা হয়। পরে একটি র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা মঞ্চে আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রনি আলম নূরের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আইয়ুব হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাড. সালমুন আহম্মেদ ডন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী মারজাহান নিতু, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রেজওয়ানা নাহিদ, থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইফুল ইসলাম ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু মুছা।

অনুষ্ঠানের শুরুতে জন্মদিনের কেক কাটা হয় ও পরে শিশুদের মাঝে কেক বিতরণ করা হয়েছে। পরে বঙ্গবন্ধুর জীবনের ওপর আলোচনা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়। এদিকে, দিবসটি উপলক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে সকাল ৮টায় জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু মুছা সভাপতিত্ব ও সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব আলী মাস্টার সভাটির উপস্থাপনা করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাড. আব্দুর রশিদ মোল্লা, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক সহিদুল ইসলাম, সদস্য শাহ আলম, সিরাজুল ইসলাম। পরবর্তীতে বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে কেক কাটা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

দামুড়হুদা:

দামুড়হুদায় ‘স্মার্ট বাংলাদেশের স্বপ্নে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন-শিশুদের চোখ সম্মৃদ্ধি ও স্বপ্নে রঙিন’ স্লোগানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে উপজেলা প্রশাসন। গতকাল সকাল ৯টায় উপজেলা পরিষদের আয়োজরে ও চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজী আলী আজগার টগরের নেতৃত্বে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। র‌্যালি শেষে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন এমপি আলী আজগার টগর।

এরপর পর্যায়ক্রমে উপজেলা পরিষদ, উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা আওয়ামী লীগ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, দামুড়হুদা মডেল থানা, আব্দুল ওদুদ শাহ ডিগ্রি কলেজসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে কোমলমতি শিশুদের নিয়ে কেক কাটা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার রোকসানা মিতার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজি আলী আজগর টগর। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর স্বাধীনতার বিরোধীরা কিভাবে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে বিকৃত করেছে আমরা দেখেছি। আমরা দেখেছি কিভাবে বঙ্গবন্ধুর ইতিহাসকে মুছে ফেলার চেষ্টা করেছে। তিনি নতুন প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে দেশকে এগিয়ে নেয়ার আহ্বান জানিয়ে আরও বলেন, মহান স্বাধীনতা মহাকাব্যের অমর কবি, বাঙালি জাতির মুক্তির মহানায়ক, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ বিনির্মানের স্বপ্ন দেখেছিলেন। সেই স্বপ্ন তারই আদর্শে সুযোগ্য উত্তরসূরি এদেশের খেটে খাওয়া মানুষের আশা-আকাঙ্খার শেষ আশ্রয়স্থল মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বাস্তবায়ন করে চলেছেন। তারই নিরলস প্রচেষ্টায় দেশ আজ উন্নয়নের মহাসড়কে।’

বিশেষ অতিথি ছিলেন দামুড়হুদা উপজেলা চেয়ারম্যান আলী মুনছুর বাবু। উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সজল কুমার দাস, দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজি সহিদুল ইসলাম, আব্দুল ওদুদ শাহ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ কামাল উদ্দীন, দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফেরদৌস ওয়াহিদ, ওসি (অপারেশন) শফিউল আলম, দর্শনা থানার ওসি এএইচএম লুৎফুল কবীর, বীর মুক্তিযোদ্ধা রুস্তম আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আছির উদ্দীন, দামুড়হুদা সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সাহিদা খাতুন, উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মনিরুজ্জামান, দামুড়হুদা সদর ইউপি চেয়ারম্যান হযরত আলী, দামুড়হুদা সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিউল কবীর ইউসুফ, উপজেলা আওয়ামী লীগের অন্যতম নেতা সেলিম উদ্দীন বগা, নজরুল মেম্বার, জাহিদুল মেম্বার, হাসান মেম্বারসহ উপজেলার সকল দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ।

সভা শেষে বঙ্গবন্ধুর জীবনের উপর বিষয়ভিত্তিক প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন উপজেলা সমবায় অফিসার হারুন-অর-রশিদ। অপর দিকে দামুড়হুদা আব্দুল ওদুদ শাহ্ ডিগ্রি কলেজের পক্ষ থেকে কেক কেটে বঙ্গবন্ধুর ১০৩ তম জন্মবার্ষিকী পালন করা হয়েছে। বেলা ১১ টার দিকে কলেজ সভাকক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অধ্যক্ষ কামাল উদ্দীনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন কলেজ গভর্নিং বডির সদস্য ইসমাইল হোসেন। এছাড়াও বক্তব্য দেন সহকারী অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম ও মাহফুজা খাতুন। উপস্থিত ছিলেন শিক্ষক প্রতিনিধি রেহেনা কুল, ইব্রাহিম হোসেন ও বশীর আহমেদ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন প্রভাষক মিল্টন কুমার সাহা। এ ছাড়া ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে দামুড়হুদা মডেল মসজিদে কোরআন তিলাওয়াতের মধ্যদিয়ে দিবসটি উদযাপন করা হয়েছে।

জীবননগর:

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, আলোচনা সভা, প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, চিত্রাঙ্কনসহ নানা আয়োজন জীবননগরে পালিত হয়েছে বঙ্গবন্ধুর ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস। গতকাল সকাল ১০টায় জীবননগর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে এসব অনুষ্ঠানের আয়োজন করে উপজেলা প্রশাসন। সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে প্রথমে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে। এরপ উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. রোকুনুজ্জামন। প্রধান অতিথি ছিলেন জীবননগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. হাফিজুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম ইসা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েশা সুলতানা লাকী।

আরও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) তিথি মিত্র, উপজেলা কৃষি অফিসার শারমিন আক্তার, সিনিয়র মৎস্য অফিসার দীন ইসলাম প্রমুখ। সভা সঞ্চালনা করেন উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার সৈয়দ আব্দুল জব্বার। সভা শেষে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে চিত্রাঙ্কন, রচনাসহ বিভিন্ন প্রতিযোগিতার আয়োজন ও বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। আর জুম্মার নামাজের পর বঙ্গবন্ধুর রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া এবং দুপুরে এতিমখানা ও হাসপাতালে উন্নত মানের খাবার বিতরণ করা হয়।

আন্দুলবাড়ীয়া:

আন্দুলবাড়ীয়া বহুমুখী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে আলোচনা সভা, দোয়া, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও কেক কাটাসহ বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভাটির সভাপতিত্বি করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আলী হোসেন। প্রধান অতিথি ছিলেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির অভিভাবক সদস্য ও আন্দুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ ফিরোজ আহাম্মেদ।

বিশেষ অতিথি ছিলেন আন্দুলবাড়ীয়া আশরাফিয়া আলীম মাদরাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি এসএম আশরাফুজ্জামান টিপু, আন্দুলবাড়ীয়া বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির অভিভাবক সদস্য খান তারিক মাহমুদ, অভিভাবক সদস্য হাফিজুর রহমান হাফিজ, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি হাজী আব্দুল খালেক। এছাড়াও বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক, শিক্ষিকা, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অপরদিকে, একই সময়ে আন্দুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে ইউপি চেয়ারম্যান শেখ শফিকুল ইসলাম মোক্তার কেক কেটে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী উদডাপন করা হয়। পরে দোয়া পরিচালনা করেন কমিটির হাফেজ আব্দুস সামাদ। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আলী হোসেন।

গাংনী:

বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যদিয়ে গাংনীতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি পালনের লক্ষে গতকাল সকালে গাংনী উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রনী খাতুনের নেতৃত্বে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এসময় সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি পুস্পস্তবক অর্পণ করেন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের প্রতিনিধিবৃন্দ। পরে উপজেলা পরিষদের আয়োজনে নিজস্ব সভাকক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও দিবসটি উপলক্ষে উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়।

মুজিবনগর:

বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যদিয়ে মুজিবনগরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে সকাল ৯টায় মুজিবনগর উপজেলা নিবার্হী অফিসার অনিমেষ বিশ্বাসের নেতৃত্বে মুজিবনগর কমপ্লেক্সে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন উপজেলা স্বাস্থ ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আসাদুজ্জামান, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মামুনুর রশিদ, উপজেলা সমাজসেবা অফিসার আব্দুর রব, প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আলাউদ্দিন ,বাগোয়ান ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আয়ূব হোসেন।

এরপর শ্রদ্ধা জানান মুজিবনগর থানার পক্ষে অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মেহেদী রাসেল, মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষে বীর মুক্তিযোদ্ধা আহসান আলী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম তোতার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, বাগোয়ান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবুর রহমান মধু, সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলামসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। শ্রদ্ধা নিবেদন শেষ দোয়া পরিচালনা করেন উপজেলা পরিষদ মসজিদের ইমাম মতিউর রহমান। পরে প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আলাউদ্দিনের সঞ্চালনায় উপজেলা পরিষদ হলরুমে আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়।

ঝিনাইদহ:

নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে ঝিনাইদহে পালিত হয়েছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবাষির্কী ও জাতীয় শিশু দিবস। দিবসটি উপলক্ষে গতকাল সকালে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। সকাল সাড়ে ৭টায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শহরের প্রেরণা একাত্তর চত্তরে জাতির পিতার প্রতিকৃতিকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এরপর একে একে পুলিশ বিভাগ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা জানানো হয়। এর আগে শহরের বিভিন্ন স্থান থেকে নানা সংগঠনের পক্ষ থেকে র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি প্রেরণা একাত্তর চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। পরে জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা। এতে স্থানীয় সংসদ সদস্য আব্দুল হাই, জেলা প্রশাসক মনিরা বেগম, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক  সাইদুল করিম মিন্টু, ঝিনাইদহ পৌরসভার মেয়র কাইয়ুম শাহরিয়ার জাহেদী হিজলসহ অন্যান্যরা বক্তব্য দেন। বক্তারা, জাতির পিতার আদর্শ বুকে লালন করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে সকলকে যার যার অবস্থান থেকে কাজ করার আহ্বান জানান।

এদিকে, ঝিনাইদহ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষ্যে বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মের ওপর আলোচনা সভা এবং দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিকেলে নিজস্ব মিলনায়তনে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক মো. আব্দুল হামিদ খানের সভাপতিত্বে এ জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মনিরা বেগম। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সেলিম রেজা পিএএ। প্রধান আলোচক ছিলেন সাবেক জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ফিল্ড অফিসার মিজানুর রহমান। এছাড়াও দিবসটি উপলক্ষে ইসলামিক ফাউন্ডেশন ঝিনাইদ েেজলা কার্যালয় ও অন্যান্য উপজেলাসমূহে আলোচনা সভা ও বিশেষ দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম প্রকল্পের ৯০৫ টি কেন্দ্রের শিক্ষার্থীদের নিয়ে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়া। এছাড়াও জেলার অন্যান্য মসজিদসমূহে বাদ জুম্মা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ সকল শহিদদের রুহের মাগফেরাত, দেশ ও জাতির কল্যাণ কামনা করে বিশেষ দোয়া করা হয়।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

চুয়াডাঙ্গায় বর্ণাঢ্য আয়োজনে বঙ্গবন্ধুর ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদ্যাপন

গভীর শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ

আপলোড টাইম : ০৭:১৬:৪৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মার্চ ২০২৩

বঙ্গবন্ধু বাঙালি জাতিকে জাগিয়ে তুলে স্বাধীনতার মন্ত্রে উদ্দীপ্ত করেছিলেন-এমপি ছেলুন জোয়ার্দ্দার

 

সমীকরণ প্রতিবেদক:

গভীর শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় দেশে নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে স্বাধীনতার স্থপতি, মহাকালের মহানায়ক সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মবার্ষিকী পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে গতকাল শুক্রবার চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর, ঝিনাইদহসহ সারাদেশে নান কর্মসূচি পালিত হয়েছে। একই সঙ্গে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে এ বছর ‘স্মার্ট বাংলাদেশের স্বপ্নে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন, শিশুদের চোখ সমৃদ্ধির স্বপ্নে রঙিন’ প্রতিপাদ্য নিয়ে পালিত হয়েছে জাতীয় শিশু দিবস-২০২৩।

চুয়াডাঙ্গা:

বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যদিয়ে চুয়াডাঙ্গায় উদ্যাপন করা হয়েছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস-২০২৩। এ উপলক্ষে গতকাল শুক্রবার (১৭ই মার্চ) সকাল ৯টায় চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে জেলা প্রশাসন, পুলিশ বিভাগ, জেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনসহ জেলার সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। সকাল সাড়ে নয়টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বর থেকে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়। শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদিক্ষণ শেষে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরের ডিসি সাহিত্য মঞ্চে এসে শেষ হয়। পরে ডিসি সাহিত্য মঞ্চে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। সরকারি শিশু সদন, সদর হাসপাতাল এবং জেলা কারাগারে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হয়েছে। সুবিধাজনক সময়ে জেলার সকল মসজিদ, মন্দি ও গীর্জায় জাতির পিতা ও তাঁর পরিবারের সদস্যগণের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ প্রার্থনা করা হয়েছে।

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ:

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খানের নেতৃত্বে জেলা প্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ আল মামুনের নেতৃত্বে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পূষ্পস্তবক অর্পণ করেন। বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সাবেক আবু হোসেনের নেতৃত্বে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ, চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সদ্য সাবেক স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর ডা. মাহবুব হোসেন মেহেদী, পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম মালিক খোকনের নেতৃত্বে চুয়াডাঙ্গা পৌর পরিষদ, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজ, সরকারি আদর্শ মহিলা কলেজ, আনসার ও ভিডিপি, গণপূর্ত বিভাগ, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড চুয়াডাঙ্গা, এলজিউডি, চুয়াডাঙ্গা টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, টিটিসি, চুয়াডাঙ্গা পৌর ডিগ্রি কলেজ, চুয়াডাঙ্গা স্বাস্থ্যবিভাগ, বঙ্গবন্ধু পরিষদ স্বাস্থ্যবিভাগ চুয়াডাঙ্গা, জেলা গণগ্রন্থাগার, বাংলাদেশ কৃষি ইনস্টিটিউট চুয়াডাঙ্গা, বিএডিসি, মেহেরপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি, জেলা মৎস্য অফিস, রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি চুয়াডাঙ্গা, ফায়ার সার্ভিস চুয়াডাঙ্গাসহ বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি দপ্তর ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পুষ্পস্তবক অর্পণ করে।

আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরষ্কার বিতরণ:

সকাল ১০টায় চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসনের আয়োজনে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরের ডিসি সাহিত্য মঞ্চে আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়। চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর আগে ও পরে বহু খ্যাতিমান রাজনীতিবিদ এসেছেন। কিন্তু এমন করে কেউ বাঙালিকে জাগাতে পারেননি। বঙ্গবন্ধু তাঁর নেতৃত্বের সম্মোহনী শক্তির এক জাদুকরী স্পর্শে ঘুমন্ত ও পদানত বাঙালি জাতিকে জাগিয়ে তুলে স্বাধীনতার মন্ত্রে উদ্দীপ্ত করেছিলেন।’

আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একটি আদর্শ, চেতনা ও দর্শনের নাম। বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশ। তিনি নিজেই একটি ইতিহাস। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শুধু বাঙালির বঙ্গবন্ধু নয়, তিনি বিশ্ববরেণ্য রাজনীতিক ‘বিশ্ববন্ধু’ উপাধিতেও বিশ্বনন্দিত। বঙ্গবন্ধুর শ্রেষ্ঠত্ব হলো তিনি শুধু বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্রের একজন স্বপ্নদ্রষ্টাই ছিলেন না, তিনি বাঙালি জাতিকে অনন্য সাধারণ ঐক্যের বন্ধনে আবদ্ধ করে হাজার বছরের বাঙালি জাতির স্বপ্নকে বাস্তবে রূপদান করতে সক্ষম হয়েছিলেন।’

এসময় জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান শিশুদের প্রতি দৃষ্টি আর্কষণ করে বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর সম্পর্কে জানতে হবে। বাংলাদেশ সম্পর্কে জানতে হবে। একজন মানুষ কীভাবে বাঙালি জাতির জনক হলেন, সেই ত্যাগ ও তিতিক্ষার কথা জানতে হবে। বঙ্গবন্ধু সারাজীবন আমাদের কথা ভেবেছেন। আমাদের কথা চিন্তা করেছেন।’

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গার পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ আল মামুন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমান মন্জু, চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার মেয়র জাহাঙ্গীর আলম মালিক, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর এ কে এম সাইফুর রশিদ ও চুয়াডাঙ্গা সরকারি আদর্শ মহিলা কলেজের প্রফেসর আজিজুর রহমান।

চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মুন্সি আবু সাঈফের প্রাণবন্ত উপস্থাপনায় এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজাদুল ইসলাম আজাদ, চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আরাফাত রহমান, চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কবীর হোসেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) নাজমুল হামিদ রেজা, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম ভূঁইয়া, চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সদ্য সাবেক স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর ডা. মাহবুব হোসেন মেহেদী, এনডিসি সাদাত হোসেনসহ চুয়াডাঙ্গা কালেক্টরেটের সিনিয়র ও সহকারী কমিশনারবৃন্দ, বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা, রাজনৈতিক ব্যক্তি, সাংবাদিক, ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা। অনুষ্ঠানে শিশুদের সাথে নিয়ে অতিথিরা বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনের কেক কাটেন। পরে বিভিন্ন জেলা শিল্পকলা একাডেমি ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। এর আগে বিভিন্ন প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ করা হয়।০

কেক কাটছেন চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন এমপি।।

চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের কর্মসূচি:

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে দিনব্যাপী নানা কর্মসূচি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করেছে চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগ। কর্মসূচির মধ্যে ছিল সকাল ৭টায় দলীয় কার্যালেয় জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্পমাল্য অর্পণ। সন্ধ্যা ৭টায় দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল ও জন্মদিনের কেক কাটা হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি নাসির উদ্দিন আহমেদ ও খুস্তার জামিল, সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন, সাবেক দপ্তর সম্পাদক অ্যাড. আবু তালেব বিশ্বাস, সাবেক যুব ও ক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক আরশাদ উদ্দীন আহমেদ চন্দন, সাবেক বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. তালিম হোসেন, সাবেক উপ-প্রচার সম্পাদক শওকত আলী বিশ্বাস, সাবেক কার্যনির্বাহী সদস্য অ্যাড. বেলাল হোসেন, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আলাউদ্দিন হেলা, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের, পৌর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি/সাধারণ সম্পাদকবৃন্দ, জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি আফজালুল হক বিশ্বাস, জেলা কৃষক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তহিদুর রহমান চন্দন, কৃষক লীগ নেতা মহাসিন রেজা, মহিলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদিকা নুরুন্নাহার কাকলী, জাতীয় মহিলা সংস্থার সভাপতি নাবিলা রুকসানা ছন্দা, সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান গরিব রুহানী মাসুম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহাজাদি মিলি, পৌর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাফিয়া শাহাব, যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক গিণি ইসলাম, জেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক আরেফিন আলম রঞ্জু, যুবলীগ নেতা রেজাউল করিম, শেখ সেলিম, সুমন আহমেদ, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি সাহাবুল হোসেন, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হাফিজুর ইসলাম লাল্টুসহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবলীগের কর্মসূচি:

নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালন করেছে চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী যুবলীগ। দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে গতকাল সকাল সাতটায় জেলা যুবলীগের কার্যালয়ে সামনে জাতীয় সংগীতের সঙ্গে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পতাকা উত্তোলন করে কর্মসূচির সূচনা করেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার আহ্বায়ক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার। পতাকা উত্তোলন শেষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়।

সকাল সাড়ে আটটায় জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দারের নেতৃত্বে দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে। পরবর্তীতে বাদ আছর জেলা যুবলীগের আয়োজনে দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা যুবলীগের সদস্য হাফিজুর রহমান হাপুর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার। বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য জুবায়ের আহমেদ সাব্বির, চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবলীগের সদস্য আজাদ আলী, সাজেদুল ইসলাম লাভলু ও আবু বকর সিদ্দিক আরিফ।

আলোচনা সভা শেষে দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন যুবলীগ নেতা পিরু মিয়া, শেখ শাহী, যুবলীগ নেতা মাসুদুর রহমান মাসুম, হাসানুল ইসলাম পলেন, কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আল ইমরান শুভ, ছাত্রলীগের সাবেক নেতা রামীম হাসান সৈকত, পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি সামিউল শেখ সুইট, শেখ রাসেল, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য খালিদ মন্ডল, দিপু বিশ্বাস, চুয়াডাঙ্গা পৌর ৩ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি রানা, সাধারণ সম্পাদক খান জাহান, ৫ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি আলিম, সাধারণ সম্পাদক মিঠুন, ৭ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি আসাদ, সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব, পদ্মবিলা ইউনিয়ন যুবলীগের সহসভাপতি বিপ্লব হোসেন প্রমুখ। দোয়া অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন স্টেডিয়াম জামে মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ ওমর ফারুক।

চুয়াডাঙ্গা জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগের কর্মসূচি:

চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যদিয়ে চুয়াডাঙ্গায় উদ্যাপন করা হয়েছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস-২০২৩। এ উপলক্ষে গতকাল শুক্রবার আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল, কেক কাটাসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়। সকালে কেদারগঞ্জে জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের অফিসের সামনে জাতীয় সংগীতের সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোলন এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। বাদ মাগরিব স্বেচ্ছাসেবক লীগ অফিসে আলোচনা সভা, দোয়া ও কেক কাটার আয়োজন করা হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি থেকে বক্তব্য দেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক ও চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার সাবেক মেয়র ওবাইদুর রহমান চৌধুরী জিপু।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালি জাতিকে অন্ধকার হতে আলোর পথে নিয়ে যেতে কাজ করেছিলেন। তিনি ছিলেন মানবিক নেতা। তাইতো তিনি দেশের মানুষের প্রতি ভালোবাসা রেখেছেন তাঁর জীবনের প্রতিটি কর্মের মধ্যদিয়ে। তিনি ছিলেন অসাধারণ একজন মানুষ। তিনি দেশের মানুষকে ভালোবেসে অভুক্ত মানুষকে গোলার ধান দিয়ে দিতেন, নিজের ছাতাটি পর্যন্ত দিয়ে দিতেন, নিজের জামা-কাপড় পর্যন্ত বস্ত্রহীন মানুষকে দিয়ে দিতেন। তিনি সততার সাথে জীবন পরিচালনা করেছেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জন্ম নিয়েছিলেন বলেই আজ বাংলাদেশ স্বাধীন। তাঁর ৫৫ বছরের জীবনটা বিশ্লেষণ করলে দেখা যায় যে তিনি শুধু রাজনৈতিক নেতা ছিলেন না, তিনি ছিলেন একজন কালজয়ী দার্শনিক। তাঁর দেখা স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করছেন আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বেই বাংলাদেশ আজ উন্নয়নশীল দেশের কাতারে।’

এসময় বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মতিয়ার রহমান মতি, জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য আবুল হোসেন মিলন, আব্দুর রাজ্জাক, বিপ্লব আহমেদ, আল ইমরান বিপ্লব, আলহিম, শ্রমিক লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মুক্তার মিলন, দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আক্তারুজ্জামান বাবু, পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আব্দুল হালিম, সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাফিজুর রহমান মাফি, চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. জানিফ, ১ নম্বর ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক খন্দকার মামুন, ২ নম্বর ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মিলন শেখ, ৩ নম্বর ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নাজমুল হোসাইন, ৪ নম্বর ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সেলিম উদ্দিন পিণ্টু ও সাধারণ সম্পাদক রবিন, ৫ নম্বর ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি তাওরাত হোসেন ও পৌর ছাত্রলীগেরসহ সভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেন, ছাত্রলীগ নেতা রাকিবুল ইসলাম নিপ্পন।

আলমডাঙ্গা:

আলমডাঙ্গা উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত হয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে গতকাল সকাল সাড়ে ৭টার দিকে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও সকাল ৮টায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পমাল্য অর্পণ করা হয়। পরে একটি র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা মঞ্চে আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রনি আলম নূরের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আইয়ুব হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাড. সালমুন আহম্মেদ ডন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী মারজাহান নিতু, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রেজওয়ানা নাহিদ, থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইফুল ইসলাম ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু মুছা।

অনুষ্ঠানের শুরুতে জন্মদিনের কেক কাটা হয় ও পরে শিশুদের মাঝে কেক বিতরণ করা হয়েছে। পরে বঙ্গবন্ধুর জীবনের ওপর আলোচনা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়। এদিকে, দিবসটি উপলক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে সকাল ৮টায় জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু মুছা সভাপতিত্ব ও সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব আলী মাস্টার সভাটির উপস্থাপনা করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাড. আব্দুর রশিদ মোল্লা, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক সহিদুল ইসলাম, সদস্য শাহ আলম, সিরাজুল ইসলাম। পরবর্তীতে বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে কেক কাটা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

দামুড়হুদা:

দামুড়হুদায় ‘স্মার্ট বাংলাদেশের স্বপ্নে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন-শিশুদের চোখ সম্মৃদ্ধি ও স্বপ্নে রঙিন’ স্লোগানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে উপজেলা প্রশাসন। গতকাল সকাল ৯টায় উপজেলা পরিষদের আয়োজরে ও চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজী আলী আজগার টগরের নেতৃত্বে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। র‌্যালি শেষে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন এমপি আলী আজগার টগর।

এরপর পর্যায়ক্রমে উপজেলা পরিষদ, উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা আওয়ামী লীগ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, দামুড়হুদা মডেল থানা, আব্দুল ওদুদ শাহ ডিগ্রি কলেজসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে কোমলমতি শিশুদের নিয়ে কেক কাটা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার রোকসানা মিতার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজি আলী আজগর টগর। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর স্বাধীনতার বিরোধীরা কিভাবে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে বিকৃত করেছে আমরা দেখেছি। আমরা দেখেছি কিভাবে বঙ্গবন্ধুর ইতিহাসকে মুছে ফেলার চেষ্টা করেছে। তিনি নতুন প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে দেশকে এগিয়ে নেয়ার আহ্বান জানিয়ে আরও বলেন, মহান স্বাধীনতা মহাকাব্যের অমর কবি, বাঙালি জাতির মুক্তির মহানায়ক, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ বিনির্মানের স্বপ্ন দেখেছিলেন। সেই স্বপ্ন তারই আদর্শে সুযোগ্য উত্তরসূরি এদেশের খেটে খাওয়া মানুষের আশা-আকাঙ্খার শেষ আশ্রয়স্থল মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বাস্তবায়ন করে চলেছেন। তারই নিরলস প্রচেষ্টায় দেশ আজ উন্নয়নের মহাসড়কে।’

বিশেষ অতিথি ছিলেন দামুড়হুদা উপজেলা চেয়ারম্যান আলী মুনছুর বাবু। উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সজল কুমার দাস, দামুড়হুদা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজি সহিদুল ইসলাম, আব্দুল ওদুদ শাহ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ কামাল উদ্দীন, দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফেরদৌস ওয়াহিদ, ওসি (অপারেশন) শফিউল আলম, দর্শনা থানার ওসি এএইচএম লুৎফুল কবীর, বীর মুক্তিযোদ্ধা রুস্তম আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আছির উদ্দীন, দামুড়হুদা সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সাহিদা খাতুন, উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মনিরুজ্জামান, দামুড়হুদা সদর ইউপি চেয়ারম্যান হযরত আলী, দামুড়হুদা সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিউল কবীর ইউসুফ, উপজেলা আওয়ামী লীগের অন্যতম নেতা সেলিম উদ্দীন বগা, নজরুল মেম্বার, জাহিদুল মেম্বার, হাসান মেম্বারসহ উপজেলার সকল দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ।

সভা শেষে বঙ্গবন্ধুর জীবনের উপর বিষয়ভিত্তিক প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন উপজেলা সমবায় অফিসার হারুন-অর-রশিদ। অপর দিকে দামুড়হুদা আব্দুল ওদুদ শাহ্ ডিগ্রি কলেজের পক্ষ থেকে কেক কেটে বঙ্গবন্ধুর ১০৩ তম জন্মবার্ষিকী পালন করা হয়েছে। বেলা ১১ টার দিকে কলেজ সভাকক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অধ্যক্ষ কামাল উদ্দীনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন কলেজ গভর্নিং বডির সদস্য ইসমাইল হোসেন। এছাড়াও বক্তব্য দেন সহকারী অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম ও মাহফুজা খাতুন। উপস্থিত ছিলেন শিক্ষক প্রতিনিধি রেহেনা কুল, ইব্রাহিম হোসেন ও বশীর আহমেদ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন প্রভাষক মিল্টন কুমার সাহা। এ ছাড়া ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে দামুড়হুদা মডেল মসজিদে কোরআন তিলাওয়াতের মধ্যদিয়ে দিবসটি উদযাপন করা হয়েছে।

জীবননগর:

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, আলোচনা সভা, প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, চিত্রাঙ্কনসহ নানা আয়োজন জীবননগরে পালিত হয়েছে বঙ্গবন্ধুর ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস। গতকাল সকাল ১০টায় জীবননগর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে এসব অনুষ্ঠানের আয়োজন করে উপজেলা প্রশাসন। সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে প্রথমে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে। এরপ উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. রোকুনুজ্জামন। প্রধান অতিথি ছিলেন জীবননগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. হাফিজুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম ইসা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েশা সুলতানা লাকী।

আরও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) তিথি মিত্র, উপজেলা কৃষি অফিসার শারমিন আক্তার, সিনিয়র মৎস্য অফিসার দীন ইসলাম প্রমুখ। সভা সঞ্চালনা করেন উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার সৈয়দ আব্দুল জব্বার। সভা শেষে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে চিত্রাঙ্কন, রচনাসহ বিভিন্ন প্রতিযোগিতার আয়োজন ও বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। আর জুম্মার নামাজের পর বঙ্গবন্ধুর রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া এবং দুপুরে এতিমখানা ও হাসপাতালে উন্নত মানের খাবার বিতরণ করা হয়।

আন্দুলবাড়ীয়া:

আন্দুলবাড়ীয়া বহুমুখী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে আলোচনা সভা, দোয়া, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও কেক কাটাসহ বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভাটির সভাপতিত্বি করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আলী হোসেন। প্রধান অতিথি ছিলেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির অভিভাবক সদস্য ও আন্দুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ ফিরোজ আহাম্মেদ।

বিশেষ অতিথি ছিলেন আন্দুলবাড়ীয়া আশরাফিয়া আলীম মাদরাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি এসএম আশরাফুজ্জামান টিপু, আন্দুলবাড়ীয়া বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির অভিভাবক সদস্য খান তারিক মাহমুদ, অভিভাবক সদস্য হাফিজুর রহমান হাফিজ, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি হাজী আব্দুল খালেক। এছাড়াও বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক, শিক্ষিকা, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অপরদিকে, একই সময়ে আন্দুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে ইউপি চেয়ারম্যান শেখ শফিকুল ইসলাম মোক্তার কেক কেটে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী উদডাপন করা হয়। পরে দোয়া পরিচালনা করেন কমিটির হাফেজ আব্দুস সামাদ। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আলী হোসেন।

গাংনী:

বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যদিয়ে গাংনীতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি পালনের লক্ষে গতকাল সকালে গাংনী উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রনী খাতুনের নেতৃত্বে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এসময় সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি পুস্পস্তবক অর্পণ করেন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের প্রতিনিধিবৃন্দ। পরে উপজেলা পরিষদের আয়োজনে নিজস্ব সভাকক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও দিবসটি উপলক্ষে উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়।

মুজিবনগর:

বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যদিয়ে মুজিবনগরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে সকাল ৯টায় মুজিবনগর উপজেলা নিবার্হী অফিসার অনিমেষ বিশ্বাসের নেতৃত্বে মুজিবনগর কমপ্লেক্সে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন উপজেলা স্বাস্থ ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আসাদুজ্জামান, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মামুনুর রশিদ, উপজেলা সমাজসেবা অফিসার আব্দুর রব, প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আলাউদ্দিন ,বাগোয়ান ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আয়ূব হোসেন।

এরপর শ্রদ্ধা জানান মুজিবনগর থানার পক্ষে অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মেহেদী রাসেল, মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষে বীর মুক্তিযোদ্ধা আহসান আলী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম তোতার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, বাগোয়ান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবুর রহমান মধু, সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলামসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। শ্রদ্ধা নিবেদন শেষ দোয়া পরিচালনা করেন উপজেলা পরিষদ মসজিদের ইমাম মতিউর রহমান। পরে প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আলাউদ্দিনের সঞ্চালনায় উপজেলা পরিষদ হলরুমে আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়।

ঝিনাইদহ:

নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে ঝিনাইদহে পালিত হয়েছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবাষির্কী ও জাতীয় শিশু দিবস। দিবসটি উপলক্ষে গতকাল সকালে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। সকাল সাড়ে ৭টায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শহরের প্রেরণা একাত্তর চত্তরে জাতির পিতার প্রতিকৃতিকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এরপর একে একে পুলিশ বিভাগ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা জানানো হয়। এর আগে শহরের বিভিন্ন স্থান থেকে নানা সংগঠনের পক্ষ থেকে র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি প্রেরণা একাত্তর চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। পরে জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা। এতে স্থানীয় সংসদ সদস্য আব্দুল হাই, জেলা প্রশাসক মনিরা বেগম, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক  সাইদুল করিম মিন্টু, ঝিনাইদহ পৌরসভার মেয়র কাইয়ুম শাহরিয়ার জাহেদী হিজলসহ অন্যান্যরা বক্তব্য দেন। বক্তারা, জাতির পিতার আদর্শ বুকে লালন করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে সকলকে যার যার অবস্থান থেকে কাজ করার আহ্বান জানান।

এদিকে, ঝিনাইদহ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষ্যে বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মের ওপর আলোচনা সভা এবং দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিকেলে নিজস্ব মিলনায়তনে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক মো. আব্দুল হামিদ খানের সভাপতিত্বে এ জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মনিরা বেগম। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সেলিম রেজা পিএএ। প্রধান আলোচক ছিলেন সাবেক জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ফিল্ড অফিসার মিজানুর রহমান। এছাড়াও দিবসটি উপলক্ষে ইসলামিক ফাউন্ডেশন ঝিনাইদ েেজলা কার্যালয় ও অন্যান্য উপজেলাসমূহে আলোচনা সভা ও বিশেষ দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম প্রকল্পের ৯০৫ টি কেন্দ্রের শিক্ষার্থীদের নিয়ে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়া। এছাড়াও জেলার অন্যান্য মসজিদসমূহে বাদ জুম্মা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ সকল শহিদদের রুহের মাগফেরাত, দেশ ও জাতির কল্যাণ কামনা করে বিশেষ দোয়া করা হয়।