ইপেপার । আজ রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

জয়রামপুরে কৃষকের গোয়ালঘর থেকে দুটি গরু চুরি

সমীকরণ প্রতিবেদন
  • আপলোড টাইম : ১১:০৫:৪১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২
  • / ০ বার পড়া হয়েছে

প্রতিবেদক, দামুড়হুদা: দামুড়হুদা উপজেলার জয়রামপুর বাড়ুই পাড়া থেকে রাতের আঁধারে কৃষকের গোয়ালঘর থেকে দুটি চুরি হয়েছে। গতকাল সোমবার দিবাগত রাতে জয়রামপুর বাড়ুই পাড়ার কৃষক নুরুল ইসলামের ছেলে শাহাজুল ইসলামের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। চুরি হওয়া গরু দুটির বর্তমান বাজার মূল্য দেড় লাখ টাকা।

ভুক্তভোগী সূত্রে জানা গেছে, দামুড়হুদা উপজেলার নুরুল ইসলামের ছেলে শাহাজুল ইসলাম প্রতিদিনের মতো দুটি গরু খাবার দিয়ে ঘুমাতে যান। পরে ভোরের দিকে গরুর গোয়ালে গিয়ে দেখেন গরু নেই। তাঁর ডাক চিৎকারে এলাকাবাসী ছুটে এসে বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করে গরু দুটি আর পাওয়া যায়নি। হাউলি ইউনিয়ন এলাকায় চোরের উপদ্রব দিনদিন বেড়েই চলেছে। এলাকায় চোর আতঙ্কে রাত পার করছেন এলাকাবাসী।
কৃষক শাহাজুল ইসলাম বলেন, গাভী গরুটি দুই বছর আগে হাউলী ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সাবিনা ইয়াসমিন (মিনির) কাছ থেকে পুষানি নিয়েছি, দুইটি গরু ধবধবে সাদা রঙের দেখতে খুব সুন্দর ছিল। চারিদিকে চোর আতঙ্কে আমি সারারাত ধরে জেগে থাকি। গতকালকে রাত সাড়ে তিনটা পর্যন্ত জেগেছিলাম। গরীব মানুষ খাটাখাটুনি শরীর সকালবেলা কাজে যেতে হবে সে জন্য ঘুমিয়ে পড়েছিলাম। সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখি লোহার শিকল কেটে দুইটা গরুই চোরে নিয়ে গেছে। এ ঘটনায় এলাকায় অন্যান্য কৃষকদের মাঝে চোর আতঙ্ক বিরাজ করছে।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

জয়রামপুরে কৃষকের গোয়ালঘর থেকে দুটি গরু চুরি

আপলোড টাইম : ১১:০৫:৪১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

প্রতিবেদক, দামুড়হুদা: দামুড়হুদা উপজেলার জয়রামপুর বাড়ুই পাড়া থেকে রাতের আঁধারে কৃষকের গোয়ালঘর থেকে দুটি চুরি হয়েছে। গতকাল সোমবার দিবাগত রাতে জয়রামপুর বাড়ুই পাড়ার কৃষক নুরুল ইসলামের ছেলে শাহাজুল ইসলামের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। চুরি হওয়া গরু দুটির বর্তমান বাজার মূল্য দেড় লাখ টাকা।

ভুক্তভোগী সূত্রে জানা গেছে, দামুড়হুদা উপজেলার নুরুল ইসলামের ছেলে শাহাজুল ইসলাম প্রতিদিনের মতো দুটি গরু খাবার দিয়ে ঘুমাতে যান। পরে ভোরের দিকে গরুর গোয়ালে গিয়ে দেখেন গরু নেই। তাঁর ডাক চিৎকারে এলাকাবাসী ছুটে এসে বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করে গরু দুটি আর পাওয়া যায়নি। হাউলি ইউনিয়ন এলাকায় চোরের উপদ্রব দিনদিন বেড়েই চলেছে। এলাকায় চোর আতঙ্কে রাত পার করছেন এলাকাবাসী।
কৃষক শাহাজুল ইসলাম বলেন, গাভী গরুটি দুই বছর আগে হাউলী ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সাবিনা ইয়াসমিন (মিনির) কাছ থেকে পুষানি নিয়েছি, দুইটি গরু ধবধবে সাদা রঙের দেখতে খুব সুন্দর ছিল। চারিদিকে চোর আতঙ্কে আমি সারারাত ধরে জেগে থাকি। গতকালকে রাত সাড়ে তিনটা পর্যন্ত জেগেছিলাম। গরীব মানুষ খাটাখাটুনি শরীর সকালবেলা কাজে যেতে হবে সে জন্য ঘুমিয়ে পড়েছিলাম। সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখি লোহার শিকল কেটে দুইটা গরুই চোরে নিয়ে গেছে। এ ঘটনায় এলাকায় অন্যান্য কৃষকদের মাঝে চোর আতঙ্ক বিরাজ করছে।