চুয়াডাঙ্গা বুধবার , ৪ মে ২০২২

আলমডাঙ্গায় সাউন্ডবক্স বন্ধ করে দেয়ায় যুবককে তুলে নিয়ে নির্যাতন

নিজস্ব প্রতিবেদক:
মে ৪, ২০২২ ৬:৫৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় উচ্চস্বরে বাজানো সাউন্ডবক্স বন্ধ করে দেওয়ায় জাহাঙ্গীর আলম (৩০) নামে এক যুবককে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যেয়ে নির্মমভাবে নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। বুধবার মধ্যরাতে স্থানীয় ব্যক্তিরা গ্রামের একটি মুদিখানা দোকানের পাশে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় তাকে পড়ে থাকতে দেখে টহল পুলিশ ও স্থানীয় ব্যক্তিরা পরিবারের সদস্যদের খবর দেয়। পরে পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। আহত জাহাঙ্গীর আলম আলমডাঙ্গা উপজেলার তিওরবিলা গ্রামের আব্দুস সাত্তারের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ঈদের দিন বিকেলে গ্রামের বেশকিছু যুবক উচ্চস্বরে গান বাজাচ্ছিল। জাহাঙ্গীর নাজ পড়ার জন্য সেখানে যেয়ে সাউন্ডবক্সটি বন্ধ করে দেয়। পরবর্তীতে রাত একটার দিয়ে ওই গ্রামেরই কয়েকজন যুবক জাহাঙ্গীরকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যেয়ে মারধর করে গ্রামের একটি মুদিখানা দোকানের পাশে ফেলে রেখে যায়। পরে টহল পুলিশ ও স্থানীয় কয়েকজন তাকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে জাহাঙ্গীরের পরিবারের সদস্যদেরকে খবর দেয়।

জাহাঙ্গীরের বাবা আব্দুস সাত্তার বলেন, ‘ঈদের দিন বিকেলে গ্রামের মৃত তালক মন্ডলের দুই ছেলে ঠান্ডু ও বান্টু বড় সাউন্ডবক্স দিয়ে গান বাজাচ্ছিল। নামাজ পড়ার জন্য আমার ছেলে সেখানে যেয়ে সাউন্ডবক্সটি বন্ধ করে দিয়ে বাড়িতে ফিরে আসে। রাত একটার দিকে আমরা বাড়িতে ঘুমিয়ে ছিলাম। এসময় ঠান্ডু, বান্টু, জীবন, ফাতেহ আলী ও বসিরসহ বেশ কয়েকজন জোরপূর্বক আমাদের বাড়িতে ঢুকে আমার ছেলেকে তুলে নিয়ে যায়। পরে তাকে হাত-পা বেঁধে বেধড়ক মারধর করে অচেতন অবস্থায় গ্রামের একটি মুদিখানা দোকানের পাশে রেখে যায়। পরে টহল পুলিশ আমাদেরকে খবর দিলে আমরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে হাত-পা বাঁধা অচেতন অবস্থায় আমার ছেলেকে নিয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করি।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. খালিদ হাসান বলেন, রাত তিনটার দিকে পরিবারের সদস্যরা অচেতন অবস্থায় জাহাঙ্গীরকে হাসপাতালে নিয়ে আসে। তার শরীরের বিভিন্নস্থানে নিলা ফোলা আঘাতের চিহ্ন ছিল। পরে জরুরি বিভাগ থেকে তাৎক্ষণিক চিকিৎসা দিয়ে হাসপতালের সার্জারি বিভাগে ভর্তি রাখা হয়। তার অবস্থা শঙ্কামুক্ত।

আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘উচ্চস্বরে গান বাজনা বন্ধ করে দেয়ায় জাহাঙ্গীরকে বেধড়ক মারধরের বিষয়টি জেনেছি। এ ঘটনায় তার পরিবারের পক্ষ থেকে একটি অভিযোগ হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।