ইপেপার । আজ রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

চুয়াডাঙ্গায় আরও ৮ জন আক্রান্ত, সুস্থ ১৪

সমীকরণ প্রতিবেদন
  • আপলোড টাইম : ০৮:৩১:১৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৫ সেপ্টেম্বর ২০২০
  • / ২৩০ বার পড়া হয়েছে

গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ২৯ মৃত্যু, এক মাসে সবচেয়ে কম শনাক্ত
নিজস্ব প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গায় গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৮ জনের শরীরে করোন শনাক্ত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার রাত ৯টায় জেলা সিভিল সার্জন অফিস এ তথ্য প্রকাশ করে। গতকাল শুক্রবার কুষ্টিয়া মেডিকলে কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাব থেকে চুয়াডাঙ্গা থেকে ৩ সেপ্টেম্বর প্রেরিত ৩৪ জনের নমুনার রিপোর্ট পৌঁছায় জেলা সিভিল সার্জন অফিসে। এর মধ্যে ৮ জনের নমুনায় করোনা শনাক্ত হয়েছে এবং বাকি ২৬ জনের নমুনার ফলাফল নেগেটিভ। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১ হাজার ২৯২ জন। নতুন আক্রান্ত ৮ জনের মধ্যে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার ৫ জন ও আলমডাঙ্গা উপজেলার ৩ জন রয়েছে। নতুন আক্রান্ত ৮ জনের মধ্যে ৬ জন পুরুষ ও ৩ জন নারী। আক্রান্তদের বয়স ১৩ থেকে ৬৫ বছরের মধ্যে।
এদিকে, দেশে করোনাভাইরাসে এক দিনে আরও ২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে, যা গত প্রায় এক মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন; সংক্রমণ ধরা পড়েছে আরও ১ হাজার ৯২৯ জনের মধ্যে। শুক্রবার বিকালে সংবাদমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে দেশে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির এ সর্বশেষ তথ্য জানানো হয়। সেখানে বলা হয়, সকাল ৮টা পর্যন্ত শনাক্ত ১ হাজার ৯২৯ জনকে নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ২১ হাজার ৬১৫ জন হলো। আর গত এক দিনে মারা যাওয়া ২৯ জনকে নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে মোট মৃতের সংখ্যা ৪ হাজার ৪১২ জনে দাঁড়াল। এর আগে ৭ আগস্ট এ ভাইরাসে ২৭ জনের মৃত্যু হয়েছিল। এরপর প্রতিদিনই মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ৩০-এর বেশি। আইইডিসিআরের হিসাবে বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও ২ হাজার ২১১ জন রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন গত এক দিনে। তাতে সুস্থ রোগীর মোট সংখ্যা বেড়ে ২ লাখ ১৬ হাজার ১৯১ জন হয়েছে
এদিকে চুয়াডাঙ্গা জেলা সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা যায়, ৩ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার জেলা সিভিল সার্জন অফিস করোনা আক্রান্ত সন্দেহে ৩৪টি নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে প্রেরণ করে। গতকাল উক্ত ৩৪টি নমুনার ফলাফল সিভিল সার্জন অফিসে এসে পৌঁছায়। গতকাল জেলায় ১৪ জন সুস্থ হয়েছেন। সদর উপজেলার ১২ জন ও দামুড়হুদা উপজেলার ২ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট সুস্থতার সংখ্যা ৮৫৭ জন। এদিকে, গতকাল করোনা আক্রান্ত সন্দেহে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ কোনো নমুনা সংগ্রহ করেনি।
কুষ্টিয়ার মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবের এক তথ্যে জানা যায়, গতকাল ল্যাবে চুয়াডাঙ্গার ফলোআপ নমুনাসহ ৩৮টি ও কুষ্টিয়ার ২৪৪টি নমুনাসহ মোট ২৮২টি নমুনা পরীক্ষা করে চুয়াডাঙ্গার নতুন ৮ জন ও কুষ্টিয়া জেলার ২৯ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এছাড়া চুয়াডাঙ্গা জেলার ২ জনের ফলোআপ রিপোর্ট পজিটিভ। বাকিগুলোর ফলাফল নেগেভি।
চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) ডা. শামীম কবির জানান, গতকাল নতুন ৮ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। গতকাল জেলায় ১৪ জন করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন। আক্রান্ত ৮ জন বর্তমানে হোম আইসোলেশনে আছেন। তাঁদের শারীরিক অবস্থা বুঝে হাসপাতালের আইসোলেশনে নেওয়া হবে। বর্তমানে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ৩২ জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন অফিসের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী জেলা থেকে এ পর্যন্ত মোট নমুনা সংগ্রহ ৫ হাজার ৬১টি, প্রাপ্ত ফলাফল ৪ হাজার ৯৬২টি, পজিটিভ ১ হাজার ২৯২টি, নেগেটিভ ৩ হাজার ৬৭০টি। গতকাল নতুন ১৪ জন সুস্থ হয়েছেন। গতকাল সদর উপজেলার হোম আইসোলেশন থেকে ১২ জন ও দামুড়হুদা উপজেলার হোম আইসোলেশন ২ জন সুস্থ হয়ে ছাড়পত্র পেয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট সুস্থ হয়েছেন ৮৫৭ জন ও মৃত্যু ৩০ জন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত জেলায় গতকাল হোম আইসোলেশনে ছিলেন ৩৬৫ জন ও প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে ছিলেন ৩২ জন।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

চুয়াডাঙ্গায় আরও ৮ জন আক্রান্ত, সুস্থ ১৪

আপলোড টাইম : ০৮:৩১:১৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৫ সেপ্টেম্বর ২০২০

গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ২৯ মৃত্যু, এক মাসে সবচেয়ে কম শনাক্ত
নিজস্ব প্রতিবেদক:
চুয়াডাঙ্গায় গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৮ জনের শরীরে করোন শনাক্ত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার রাত ৯টায় জেলা সিভিল সার্জন অফিস এ তথ্য প্রকাশ করে। গতকাল শুক্রবার কুষ্টিয়া মেডিকলে কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাব থেকে চুয়াডাঙ্গা থেকে ৩ সেপ্টেম্বর প্রেরিত ৩৪ জনের নমুনার রিপোর্ট পৌঁছায় জেলা সিভিল সার্জন অফিসে। এর মধ্যে ৮ জনের নমুনায় করোনা শনাক্ত হয়েছে এবং বাকি ২৬ জনের নমুনার ফলাফল নেগেটিভ। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১ হাজার ২৯২ জন। নতুন আক্রান্ত ৮ জনের মধ্যে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার ৫ জন ও আলমডাঙ্গা উপজেলার ৩ জন রয়েছে। নতুন আক্রান্ত ৮ জনের মধ্যে ৬ জন পুরুষ ও ৩ জন নারী। আক্রান্তদের বয়স ১৩ থেকে ৬৫ বছরের মধ্যে।
এদিকে, দেশে করোনাভাইরাসে এক দিনে আরও ২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে, যা গত প্রায় এক মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন; সংক্রমণ ধরা পড়েছে আরও ১ হাজার ৯২৯ জনের মধ্যে। শুক্রবার বিকালে সংবাদমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে দেশে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির এ সর্বশেষ তথ্য জানানো হয়। সেখানে বলা হয়, সকাল ৮টা পর্যন্ত শনাক্ত ১ হাজার ৯২৯ জনকে নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ২১ হাজার ৬১৫ জন হলো। আর গত এক দিনে মারা যাওয়া ২৯ জনকে নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে মোট মৃতের সংখ্যা ৪ হাজার ৪১২ জনে দাঁড়াল। এর আগে ৭ আগস্ট এ ভাইরাসে ২৭ জনের মৃত্যু হয়েছিল। এরপর প্রতিদিনই মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ৩০-এর বেশি। আইইডিসিআরের হিসাবে বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও ২ হাজার ২১১ জন রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন গত এক দিনে। তাতে সুস্থ রোগীর মোট সংখ্যা বেড়ে ২ লাখ ১৬ হাজার ১৯১ জন হয়েছে
এদিকে চুয়াডাঙ্গা জেলা সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা যায়, ৩ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার জেলা সিভিল সার্জন অফিস করোনা আক্রান্ত সন্দেহে ৩৪টি নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে প্রেরণ করে। গতকাল উক্ত ৩৪টি নমুনার ফলাফল সিভিল সার্জন অফিসে এসে পৌঁছায়। গতকাল জেলায় ১৪ জন সুস্থ হয়েছেন। সদর উপজেলার ১২ জন ও দামুড়হুদা উপজেলার ২ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট সুস্থতার সংখ্যা ৮৫৭ জন। এদিকে, গতকাল করোনা আক্রান্ত সন্দেহে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ কোনো নমুনা সংগ্রহ করেনি।
কুষ্টিয়ার মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবের এক তথ্যে জানা যায়, গতকাল ল্যাবে চুয়াডাঙ্গার ফলোআপ নমুনাসহ ৩৮টি ও কুষ্টিয়ার ২৪৪টি নমুনাসহ মোট ২৮২টি নমুনা পরীক্ষা করে চুয়াডাঙ্গার নতুন ৮ জন ও কুষ্টিয়া জেলার ২৯ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এছাড়া চুয়াডাঙ্গা জেলার ২ জনের ফলোআপ রিপোর্ট পজিটিভ। বাকিগুলোর ফলাফল নেগেভি।
চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) ডা. শামীম কবির জানান, গতকাল নতুন ৮ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। গতকাল জেলায় ১৪ জন করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন। আক্রান্ত ৮ জন বর্তমানে হোম আইসোলেশনে আছেন। তাঁদের শারীরিক অবস্থা বুঝে হাসপাতালের আইসোলেশনে নেওয়া হবে। বর্তমানে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ৩২ জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন অফিসের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী জেলা থেকে এ পর্যন্ত মোট নমুনা সংগ্রহ ৫ হাজার ৬১টি, প্রাপ্ত ফলাফল ৪ হাজার ৯৬২টি, পজিটিভ ১ হাজার ২৯২টি, নেগেটিভ ৩ হাজার ৬৭০টি। গতকাল নতুন ১৪ জন সুস্থ হয়েছেন। গতকাল সদর উপজেলার হোম আইসোলেশন থেকে ১২ জন ও দামুড়হুদা উপজেলার হোম আইসোলেশন ২ জন সুস্থ হয়ে ছাড়পত্র পেয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট সুস্থ হয়েছেন ৮৫৭ জন ও মৃত্যু ৩০ জন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত জেলায় গতকাল হোম আইসোলেশনে ছিলেন ৩৬৫ জন ও প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে ছিলেন ৩২ জন।