ইপেপার । আজ মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

আলমডাঙ্গা রেল স্টেশনে রাতের বেলায় বাতি না থাকায় ভোগান্তিতে যাত্রী সাধারণ

সমীকরণ প্রতিবেদন
  • আপলোড টাইম : ১২:১২:৩২ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ অগাস্ট ২০১৬
  • / ৫৯৩ বার পড়া হয়েছে

download

আলমডাঙ্গা অফিস: আলমডাঙ্গা রেল স্টেশনটি ব্রিটিশ আমল থেকে সৌন্দর্যমণ্ডিত স্টেশন বলে পরিচিত। এক সময় ব্রিটিশ শাসকরা রেল স্টেশনের নিচে অন্ধকার কুঠুরি ঘরে যেসমস্ত চাষিরা নীল চাষ করতে অনিহা প্রকাশ করত তাদেরকে অত্যাচার করত। এর বহুবছর পর ব্রিটিশ শাসনের অবসান ঘটলে এটি পুরাপরি একটি রেল স্টেশনে পরিণত হয়। তৎকালীন সময়ে আলমডাঙ্গা রেল স্টেশনটি দোতলা রেল স্টেশন বলে পরিচিত ছিল। বর্তমানে রেল স্টেশনে রাতের বেলা কোন লাইট জ্বলে না। স্টেশন মাষ্টারের পাশে নামার প্রধান সিঁড়িতে কোন বাতি না থাকায় ভুতুরে অন্ধকারে পরিণত হয়। বেশকিছু প্যাসেঞ্জার অভিযোগ করেছেন রাতে এই সিঁড়ি দিয়ে নামতে গিয়ে ছিনতাইসহ মহিলাদের শ্লীনতাহানীর ঘটনাও ঘটেছে। বিষয়টি নিয়ে স্টেশন কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ করলেও অদ্যবধি এর কোন সুরাহা হয়নি। প্রতিনিয়ত যাত্রী সাধারণ সমস্যার সম্মুখিত হচ্ছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে আলমডাঙ্গাবাসী।

ট্যাগ :

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

আলমডাঙ্গা রেল স্টেশনে রাতের বেলায় বাতি না থাকায় ভোগান্তিতে যাত্রী সাধারণ

আপলোড টাইম : ১২:১২:৩২ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ অগাস্ট ২০১৬

download

আলমডাঙ্গা অফিস: আলমডাঙ্গা রেল স্টেশনটি ব্রিটিশ আমল থেকে সৌন্দর্যমণ্ডিত স্টেশন বলে পরিচিত। এক সময় ব্রিটিশ শাসকরা রেল স্টেশনের নিচে অন্ধকার কুঠুরি ঘরে যেসমস্ত চাষিরা নীল চাষ করতে অনিহা প্রকাশ করত তাদেরকে অত্যাচার করত। এর বহুবছর পর ব্রিটিশ শাসনের অবসান ঘটলে এটি পুরাপরি একটি রেল স্টেশনে পরিণত হয়। তৎকালীন সময়ে আলমডাঙ্গা রেল স্টেশনটি দোতলা রেল স্টেশন বলে পরিচিত ছিল। বর্তমানে রেল স্টেশনে রাতের বেলা কোন লাইট জ্বলে না। স্টেশন মাষ্টারের পাশে নামার প্রধান সিঁড়িতে কোন বাতি না থাকায় ভুতুরে অন্ধকারে পরিণত হয়। বেশকিছু প্যাসেঞ্জার অভিযোগ করেছেন রাতে এই সিঁড়ি দিয়ে নামতে গিয়ে ছিনতাইসহ মহিলাদের শ্লীনতাহানীর ঘটনাও ঘটেছে। বিষয়টি নিয়ে স্টেশন কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ করলেও অদ্যবধি এর কোন সুরাহা হয়নি। প্রতিনিয়ত যাত্রী সাধারণ সমস্যার সম্মুখিত হচ্ছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে আলমডাঙ্গাবাসী।