৭ লাখ বছরের পুরনো অস্ত্রের সন্ধান!

11

বিষ্ময় ডেস্ক:
সাহারা মরুভূমির পরিত্যক্ত সোনার খনি থেকে মিলল প্রাচীন অস্ত্র। জানা গেছে, লক্ষাধিক বছর আগে সেগুলো ব্যবহার করত আফ্রিকার মানুষ। সুদানের উত্তর পূর্ব দিকে, আটবারা শহর থেকে ৭০ কিলোমিটার দূরে প্রত্নতাত্ত্বিকরা এমন কিছু অস্ত্র খুঁজে পেয়েছেন যার বয়স প্রায় সাত লাখ বছর! এই অস্ত্রগুলো ব্যবহার করত হোমো ইরেকটাস প্রজাতির প্রাচীন মানুষ। বছরখানেক আগে আটবারার পূর্ব মরুভূমিতে কাজ শুরু করেন প্রত্নতাত্ত্বিকরা। সেখানে একটি অঞ্চল সোনার খনির জন্য বিখ্যাত। সোনার লোভেই এখানে বহু মানুষ গর্ত খোঁড়েন। সেখান থেকেই এই উৎখননের কাজ শুরু হয়েছিল। একটি পরিত্যক্ত সোনার খনি থেকে এই অস্ত্রগুলো পাওয়া গেছে। এর মধ্যে প্রত্নতাত্ত্বিকদের সব চেয়ে আকর্ষক মনে হয়েছে বেশ কিছু অস্ত্র। এগুলো ওজনে বেশ ভারী এবং আকারে অনেকটা আমন্ড বাদামের মতো। এদের সাইডগুলো চেঁচে দেওয়া হয়েছে এবং মাথা ছুঁচলো। এই জাতীয় অস্ত্র সাধারণত স্পিয়ারহেড হিসেবে হত। অর্থাৎ এগুলো লাঠির ডগায় বেঁধে বল্লমের মতো ব্যবহার করা হত। এছাড়াও পাওয়া গেছে হ্যান্ড অ্যাক্স।
মাটির নিচে কী কী লুকানো আছে, সেটা জানার জন্য বিজ্ঞানীরা ড়ঢ়ঃরপধষষু ংঃরসঁষধঃবফ ষঁসরহবংপবহপব পদ্ধতি ব্যবহার করেছেন। এই পদ্ধতির দ্বারাই দেখা গেছে, এখানে মাটির স্তর ও স্থাপত্যের বয়স ৩ লক্ষ ৯০ হাজার! পোল্যান্ডের যে গবেষক এই কাজে নেতৃত্ব দিচ্ছেন, তাঁর মতে, উপরের স্তরের নীচে যে স্তরগুলি আছে, সেগুলো আরও পুরনো। এগুলোর বয়স কত হতে পারে, সেটা নির্ভর করছে অস্ত্রগুলি কী ভাবে ব্যবহার হয়েছে, তার উপরে। এই অঞ্চল থেকে যে যে অস্ত্র পাওয়া গেছে অনুমান করা হচ্ছে সেগুলো ব্যবহার করত হোমো ইরেকটাসরা। হোমো ইরেকটাসরা এসেছিল আজ থেকে দু’লক্ষ বছর আগে। প্রথমে এদের আফ্রিকায় দেখা গেলেও এরা ধীরে ধীরে ছড়িয়ে পড়ে আফ্রিকার ক্রান্তীয় অঞ্চলে, ইয়োরোপে ও এশিয়ায়।