৬২ বড়আড়ীয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দেওয়ালে ফাটল ভবনের নির্মাণ কাজ স্থগিত : দুর্ভোগে শিক্ষার্থীরা

356

Untitled-1 copy

হিজলগাড়ী প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গা সদর তিতুদহ ইউনিয়নের ৬২নং বড় আড়ীয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কক্ষে ও দেয়ালের অসংখ্য স্থানে ফাটল দেখা দিয়েছে।যার কারনে বিদ্যালয়ের দ্বিতীয়তলার নির্মাধীন কাজ দীর্ঘদিন যাবৎ  বন্ধ হয়ে আছে। আর ঝুকিপূর্ণ এই ভবনের নিচে ক্লাস করছে এলাকার  কোমলমতি শিশু শিক্ষার্থীরা। এতে অভিভাবক ও সমাজের সচেতন মহল চরম অনিশ্চয়তা ও সীমাহীন দুর্ভোগের মধ্য দিয়ে দিন-যাপন করছে। সরোজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা তিতুদহ ইউনিয়নের ৬২নং বড় আড়ীয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়টি ১৯৯৭ইং সালে পুকুরের পাশে নিমার্ণ করা হয়। পুকুরের ধার ধসে যাওয়ার ফলে দেয়ালের বড় বড় ফাটল ফাটল দেখা দিয়েছে। নিচে পাকার ফ্লোর ভেঙ্গে গর্ত সৃষ্টি হয়েছে। পুরো স্কুলের দেয়ালে ফাটল দেখা দেয়ায় জীবনের ঝুকি নিয়ে ক্লাস করছে স্কুলের ছোট ছোট কোমলমতি শিশুরা। আর দীর্ঘদিন ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় পড়ে আছে বিদ্যালয়টি। যেকোন সময় ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘনা । যার কারনে ঠিকাদার বিদ্যালয়ের দ্বিতীয়তলার নির্মাধীন কাজ দীর্ঘদিন যাবৎ  বন্ধ রেখেছে।স্কুলের প্রধান শিক্ষক  মো:রফিকুল ইসলাম মধু বলেন, পুকুরের ধার ধসে যাওয়ার দেওয়ালের ফাটল দেখা দিয়েছে। আর ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় পড়ে আছে আমাদের বিদ্যালয়টি।তবে কিছুদিন আগে মাপ-যোগ করে নিয়ে গিয়েছে,তাদের আর খোঁজ-খবর নেই।অভিভাবকরা “দৈনিক সময়ের সমীকরন”কে বলেন- বিদ্যালয়ের ছেলে-মেয়েদের পাঠিয়ে আতঙ্কে থাকতে হয় আমাদের কখন দেয়াল ভেঙ্গে দূর্ঘনা ঘটে এই ভেবে।তারা এখন রীতিমত আতঙ্কিত রয়েছে।বিদ্যালয়ের কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রীরা জানায়,আমাদের খুব ভয় হয় ক্লাস করতে যেভাবে দেওয়াল ফাটল ধরেছে দেয়াল ভেঙ্গে কখন যে মাথায় পড়ে এই ভয়ে থাকি সারাক্ষণ। অভিবাবকরা আরও বলেন, আমাদের কোমলমতি ছেলে-মেয়েরা আর কত দিন ঝুঁকিপর্ণ অবস্থায় ক্লাস করবে ?  এ বিষয়ে অতিসত্ত্বর বিল্ডিং ভেঙ্গে নতুন বিল্ডিং নির্মাণ করতে কর্তৃপক্ষের যথাযথ হস্ত-ক্ষেপ কামনা করছেন অভিবাবক ও স্থানীয় এলাকাবাসী।