চুয়াডাঙ্গা সোমবার , ১৮ জুলাই ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

১৫ সেপ্টেম্বর এসএসসি, নভেম্বরে এইচএসসি শুরু

সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
জুলাই ১৮, ২০২২ ২:৩১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

Girl in a jacket

সমীকরণ প্রতিবেদন: বন্যার কারণে স্থগিত হওয়া এসএসসি সমমানের পরীক্ষা আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু করার পরিকল্পনা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনি। গতকাল রোববার দুপুরে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তথ্য জানান তিনি। অন্য দিকে চলতি বছরের এইচএসসি সমমান পরীক্ষা আগামী নভেম্বর মাসের শুরুতে অনুষ্ঠিত হতে পারে বলে এমন আভাস দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনি। তিনি বলেন, এসএসসি পরীক্ষা শুরুর পর থেকে দুই মাস সময় নিয়ে প্রচলিতভাবে এইচএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু বছর পরীক্ষা পিছিয়ে যাওয়ায় বোর্ডগুলোকে কিছুটা কষ্ট করতে হবে। তাদের এসএসসি পরীক্ষা শুরুর ৪৫ দিনের মধ্যেই এইচএসসি পরীক্ষা শুরু করতে হবে। সে হিসাবে নভেম্বর মাসের গোড়ায় এইচএসসি সমান পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

Girl in a jacket

মন্ত্রী বলেন, আগস্টের মাঝামাঝি এসএসসি সমমানের পরীক্ষা শুরুর পরিকল্পনা থাকলেও সময়টিতে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বন্যা দেখা যায়। তাই সময়ে পরীক্ষা না নিয়ে কিছু পরে সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি এসএসসি সমমান পরীক্ষা নেয়ার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে এসএসসি সমমান পরীক্ষা শুরু হবে। তিনি আরো বলেন, সিলেট সুনামগঞ্জের ১১ হাজার ২০০ এর বেশি পরীক্ষার্থীকে নতুন বই দেয়া হবে। আগামী ২৪ জুলাইয়ের মধ্যে শিক্ষার্থীদের নতুন বই সরবরাহ করতে পারব। সে হিসাবে আগস্টের মাঝামাঝি পরীক্ষা শুরু করা যেত, কিন্তু অতীতের অভিজ্ঞতা পূর্বাভাস থেকে বোঝা যায় সে সময়ে আমাদের দেশে বন্যার আশঙ্কা আছে। তাই সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি আমরা পরীক্ষা নিতে চাচ্ছি। সে হিসাবে ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে এসএসসি সমমানের পরীক্ষা শুরু হবে। চলতি বছরের এসএসসি সমমানের লিখিত পরীক্ষা গত ১৯ জুন শুরু করে জুলাই শেষ করার কথা ছিল। কিন্তু জুনের মাঝামাঝি সময়ে প্রবল বর্ষণ আর উজানের ঢলে সিলেট অঞ্চল এবং উত্তরের কয়েকটি জেলায় ব্যাপক বন্যা দেখা দিলে সরকার ১৭ জুন পরীক্ষা স্থগিতের ঘোষণা দেয়। ২০ লাখ ২১ হাজার শিক্ষার্থী চলতি বছরের এসএসসি সমমান পরীক্ষায় অংশ নেবেন। শিক্ষামন্ত্রী আরো জানান, স্থগিত হওয়া পরীক্ষা যেভাবে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল সেভাবেই অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষার সিলেবাস বা নম্বর বিভাজনের কোনো পরিবর্তন হবে না। তবে পরীক্ষার শুধু সূচি বদলাবে।

বছর এসএসসি সমমান পরীক্ষায় মোট ২০ লাখ ২১ হাজার ৮৬৮ জন পরীক্ষার্থী। ২০২১ খ্রিষ্টাব্দের তুলনায় ২০২২ খ্রিষ্টাব্দে মোট পরীক্ষার্থী কমেছে দুই লাখ ২১ হাজার ৩৮৬ জন। পরীক্ষায় ছাত্র ১০ লাখ হাজার ৫১১ জন এবং ছাত্রী ১০ লাখ ১২ হাজার ৩৫৭ জন। এবার ছাত্রের তুলনায় ছাত্রী সংখ্যা বেশি দুই হাজার ৮৪৬ জন। বছর ৯টি সাধারণ বোর্ডে ১৫ লাখ ৯৯ হাজার ৭১১ জন এবং দাখিলে দুই লাখ ৬৮ হাজার ৪৯৫ জন কারিগরিতে এক লাখ ৬৩ হাজার ৬৬২ জন অংশ নেয়ার কথা। শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, মাধ্যমিক উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো: আবু বকর ছিদ্দীক, কারিগরি মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো: কামাল হোসেন সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

নতুন বই পাবে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত এক লাখ আড়াই হাজার শিক্ষার্থী

বন্যা পরিস্থিতির কারণে সারা দেশে এক লাখ দুই হাজার ৫০০ শিক্ষার্থীর বই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এসব শিক্ষার্থীর জন্য (আজ সোমবার) ১৮ জুলাইয়ের মধ্যে জেলাপর্যায়ে নতুন পাঠ্যবই পাঠানো হবে। এর বাইরে আরো চাহিদা এলে তাদেরও পাঠ্যবই দেয়া হবে। শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় বন্যায় অনেক শিক্ষার্থীর পাঠ্যপুস্তক নষ্ট হয়ে গেছে। তাদের তালিকা সংগ্রহ করা হয়েছে। পর্যন্ত সিলেটসহ অন্যান্য জেলায় এক লাখ দুই হাজার ৫০০ শিক্ষার্থীর তালিকা পাওয়া গেছে। তিনি জানান, ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের মধ্যে ৬ষ্ঠ থেকে ৯ম১০ শ্রেণী ভোকেশনালে সিলেটে ১৪ হাজার ৭৭৯ সুনামগঞ্জে ৪২ হাজার ৭৫৫ সেট, এসএসসি দাখিলে ২০২২ সালের পরীক্ষার্থীদের সিলেটে ৬৮২ সুনামগঞ্জে ১০ হাজার ৫৮৬ সেট, ইবতেদায়ি দাখিলে ৬ষ্ঠ থেকে ৯ম১০ শ্রেণীর সিলেটে ১০ হাজার ১৪০ সুনামগঞ্জে ২৩ হাজার ৫৫৮ সেট বই বিতরণ করা হবে। সে হিসাবে সিলেটে মোট ২৫ হাজার ৬১০ সুনামগঞ্জে ৭৬ হাজার ৮৯৯ সেট বই পাঠানো হবে। মন্ত্রী বলেন, সিলেট সুনামগঞ্জের উল্লেখিত পাঠ্যপুস্তকসহ কুমিল্লা চট্টগ্রাম অঞ্চল এবং নরসিংদী জেলার ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের ১৮ জুলায়ের মধ্যে এসব বই পাঠিয়ে দেয়া হবে। এর অতিরিক্ত চাহিদা থাকলে এনসিটিবির গুদাম (বাফা) থেকে শিক্ষার্থীদের বই দেয়া হবে। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, শিক্ষকদের কোচিং বন্ধ করে দেয়া হবে না। তবে শিক্ষকদের প্রাইভেটে পড়লে নম্বর বেশি পাবে, না পড়লে কম পাবে, বাধ্য করে কোচিংয়ে নেয়াএসব অনৈতিক কার্যক্রম বন্ধ করতে শিক্ষা আইনে বলা হয়েছে। এটি বন্ধ করতে শিক্ষকরা নিজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের পড়াতে পারবেন না।

Girl in a jacket

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।