চুয়াডাঙ্গা সোমবার , ১৮ জুলাই ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

হোয়াইটওয়াশে ইতিহাস

সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
জুলাই ১৮, ২০২২ ২:৪৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!

সমীকরণ প্রতিবেদন: প্রথম দুই ওয়ানডেতে কোনো লড়াই করতে পারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ। একপেশে লড়াইয়ে জয় তুলে নিয়েছিল বাংলাদেশ। গায়ানার প্রোভিডেন্সে বৃষ্টিস্নাত প্রথম ওয়ানডে জিতেছিল তামিম বাহিনী উইকেটে। দ্বিতীয়টিতে জয় পায় আরও বড় ব্যবধানে উইকেটে। তিন ম্যাচ সিরিজের দুটি জিতে সিরিজ নিশ্চিত করে নেয় টাইগাররা। পরশু রাতের ম্যাচটি ছিল অনেকটাই আনুষ্ঠানিকতার। তারপরও হাতছানি ছিল ইতিহাস গড়ার। হোয়াইটওয়াশের হাতছানির ম্যাচটিতে যা একটু লড়াই করেছে স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজ। অধিনায়ক নিকোলাস পুরানের ৭৩ রানে ভর করে ১৭৮ রান করেছিল ক্যারিবীয়রা। লিটনের ৫০ রানে ভর করে ম্যাচটি টাইগাররা জিতে নেয় উইকেটে। ব্যবধানে জিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশ করে বাংলাদেশ। ২৮ রানে উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হন বাঁ হাতি স্পিনার তাইজুল ইসলাম। তিন ম্যাচে এক হাফসেঞ্চুরিতে ১১৭ রান করে সিরিজসেরা হন অধিনায়ক তামিম ইকবাল। সিরিজে স্কোয়াডে ছিলেন তাইজুল। কিন্তু কোনো ম্যাচ খেলার সুযোগ পাননি। উইকেটে ঘূর্ণির বিবেচনায় বাঁ হাতি পেসার শরিফুল ইসলামকে বসিয়ে একাদশে তাইজুলকে নেন অধিনায়ক। অধিনায়কের দলভুক্তির প্রমাণ দেন ক্যারিয়ার সেরা বোলিং করে। ২০২০ সালের মার্চের পর পুনরায় ওয়ানডে খেলতে নেমে ইতিহাস লিখেন তাইজুল। ১০ ওভারের স্পেলে মেডেন নিয়ে ২৮ রানের খরচে নেন উইকেট। যা তার ১০ ওয়ানডে ক্যারিয়ার সেরা বোলিং করেন বাঁ হাতি স্পিনার। আগের সেরা বোলিং ছিল ১১ রানে উইকেট। ২০১৪ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে অভিষেক ম্যাচে হ্যাটট্রিক করেছিলেন তাইজুল। অধিনায়ক তামিম ৩৪ রান করেন ৫২ বলে চারে। লিটন ৫০ রান করেন ৬৫ বলে চার ছক্কায় এবং নুরুল হাসান ৩২ রানে অপরাজিত থাকেন ৩৮ বলে চারে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।