চুয়াডাঙ্গা সোমবার , ২৪ জানুয়ারি ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

হাসানুজ্জামান মানিক আবারো চেয়ারম্যান নির্বাচিত

নির্বাচন কমিশনের অনুমতি নিয়ে কুতুবপুর ইউনিয়নের ফলাফল ঘোষণা
নিজস্ব প্রতিবেদক:
জানুয়ারি ২৪, ২০২২ ১১:১৪ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নের ফলাফল ঘোষণা করেছে রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়। এ ইউনিয়নে গত ২৬ শে ডিসেম্বর ভোট গ্রহণ হলেও একটি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ স্থগিত হওয়ায় নির্বাচন কমিশনের অনুমতি নিয়ে ফলাফল ঘোষণা করে রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়। ফলাফলে কুতুবপুর ইউনিয়নে আবারও চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আলী আহম্মেদ হাসানুজ্জামান মানিক। গতকাল রোববার বেলা তিনটায় চুয়াডাঙ্গা জেলা নির্বাচন অফিসারের কার্যালয়ের মিলনায়তে বেসরকারিভাবে এ ফলাফল ঘোষণা করেন সদর উপজেলার কুতুবপুর ইউপি নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও সদর উপজেলা নির্বাচন অফিসার কামরুল হাসান।

এসময় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা নির্বাচন অফিসার তারেক আহমেমদ, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন, গোকুলখালী কলেজের অধ্যক্ষ মাহবুবুল আলম সেলিমসহ কুতুবপুর ইউনিয়নের নির্বাচিত প্রার্থীরা।

বেসরকারি ফলাফলে আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আলী আহম্মেদ হাসানুজ্জামান ১১ হাজার ৩৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র চশমা প্রতীকের প্রার্থী জুয়েল রানা ভোট পেয়েছেন ৩ হাজার ৯১৪ ভোট। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আজিজুল হক (হাতপাখা) পেয়েছেন ৯৬ ভোট, স্বতন্ত্র শাখাওয়াত হোসেন টাইগার (আনারস) পেয়েছেন ৩ হাজার ২৭১ ভোট, আক্তার হোসেন রনি (ঘোড়া) পেয়েছেন ৮ ভোট ও নজরুল ইসলাম (মোটরসাইকেল) পেয়েছেন ৩০১ ভোট।

কুতুবপুর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডে রিজাউল হক ফুটবল প্রতীক নিয়ে ১০৯৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী টিউবওয়েল প্রতীক নিয়ে আরিফুল ইসলাম পেয়েছেন ৮১২ ভোট। ২ নম্বর ওয়ার্ডে জামাত আলী বৈদ্যুতিক পাখা প্রতীক নিয়ে ৭৩৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আলাউদ্দীন তালা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৪৫৬ ভোট। ৩ নম্বর ওয়ার্ডে বিল্লাল হোসেন তালা প্রতীক নিয়ে ৭৬৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ফুটবল প্রতীক নিয়ে শফিকুল ইসলাম পেয়েছেন ৬০২ ভোট। ৪ নম্বর ওয়ার্ডে নুরুল ইসলাম মণ্ডল প্রতীক নিয়ে ১১১৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোরগ প্রতীক নিয়ে শামসুল আলম পেয়েছেন ৮০৫ ভোট। ৫ নম্বর ওয়ার্ডে আফাঙ্গীর হোসেন মোরগ প্রতীক নিয়ে ১২৬০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী টিউবওয়েল প্রতীক নিয়ে মোকলেচুর রহমান পেয়েছেন ১০৬১ ভোট।

৬ নম্বর ওয়ার্ডে এলাহি মণ্ডল ফুটবল প্রতীক নিয়ে ৬২৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বৈদ্যুতিক পাখা প্রতীক নিয়ে আমিরুল ইসলাম পেয়েছেন ৪৫৩ ভোট। ভোট কেন্দ্র স্থগিত হওয়ায় ৭ নম্বর ওয়ার্ডে ফলাফল অসম্পন্ন রয়েছে। ৮ নম্বর ওয়ার্ডে আব্দুল হালিম তালা প্রতীক নিয়ে ১০৭৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ফুটবল প্রতীক নিয়ে আবু বাক্কা পেয়েছেন ৭০৩ ভোট। ৯ নম্বর ওয়ার্ডে হাসানুজ্জামান ফুটবল প্রতীক নিয়ে ৪৩৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোরগ প্রতীক নিয়ে মিলন আলী পেয়েছেন ৩৮৯ ভোট। এ ইউপিতে সংরক্ষিত সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন জেসমিন আক্তার ও মালেকা খাতুন।

        জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয় গত ২৬ ডিসেম্বর। ওইদিন ওই ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের ভুলটিয়া কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ স্থগিত করা হয়। স্থগিত হওয়ার কারণে ওই দিন কুতুবপুর ইউনিয়নের নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করা হয়নি। নির্বাচনী বিধি অনুযায়ী নির্বাচন কমিশনের অনুমতি নিয়ে এ ফলাফল ঘোষণা করা হয় গতকাল রোববার।

এ ইউনিয়নের একটি কেন্দ্রে নির্বাচন স্থগিত করা হলেও ওই কেন্দ্রের মোট ভোটের থেকেও বেশি ব্যবধানে হাসানুজ্জামান মানিক এগিয়ে ছিলেন। নির্বাচন কমিশনের অনুমতি নিয়ে তাঁকে নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়। তবে ওই ইউনিয়নের ৭ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ড ও ৩ নম্বর সংরক্ষিত ওয়ার্ডে পুনরায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।