হাসাদাহ ইউনিয়ন বঙ্গবন্ধু প্রজন্ম লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে নজরুল মল্লিক

297

আগামী নির্বাচনে আবারো নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে হবে
জীবননগর অফিস: জীবননগর উপজেলার হাসাদাহ ইউনিয়ন বঙ্গবন্ধু প্রজন্ম লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে হাসাদাহ বাজারে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে কোন ঘোষণা ছাড়াই সম্মেলন শেষ করা হয়। পরবর্তীতে নতুন কমিটির সভাপতি, সম্পাদকসহ ৪১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হবে বলে জানানো হয়।
আওয়ামী লীগ নেতা শহিদুল হক মল্লিকের সভাপতিত্বে সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নজরুল মল্লিক। প্রধান বক্তা ছিলেন বঙ্গবন্ধু প্রজন্ম লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক গরীব রুহানী মাসুম। বিশেষ অতিথি ছিলেন জীবননগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খলিলুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, বৃহত্তর বাঁকা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহিনুর রহমান মাষ্টার, আন্দুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর মকলেচুর রহমান টজো, কেডিকে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা আলমগীর হোসেন, মনোহরপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা রাজা মিয়া, আব্দুর রশিদ, হাসাদাহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল খালেক মাষ্টার, সীমান্ত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা জাকির হোসেন প্রমূখ।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নজরুল মল্লিক বলেন- স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তিরা ষড়যন্ত্রমূলকভাবে ক্ষমতার লোভে এই মাসে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ তার পরিবারের সদস্যদের নির্মমভাবে হত্যা করেছিলো। আজ বঙ্গবন্ধুর রক্তের এই ঋণ শোধ করতে হলে তারই কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করে আগামী নির্বাচনে আবারো নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে হবে। তিনি আরো বলেন- আজকের এই কমিটিতে যারাই নির্বাচিত হয়েছেন তাদেরকে আগামী দিনে লড়াই সংগ্রামের মাধ্যমে সমস্ত অপশক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।
এসময় আরো বক্তব্য রাখেন, দামুড়হুদা উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক এ্যাড. আবু তালেব, জীবননগর উপজেলা যুবলীগ নেতা কাজী সামসুর রহমান চঞ্চল, এ্যাড. আকিমুল ইসলাম, সীমান্ত ইউনিয়ন প্রজন্ম লীগের সভাপতি আমিনুর রহমান। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন আন্দুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সম্পাদক মঈনুল হোসেন, যুবনেতা বখতিয়ার হোসেন, মিলন, আহসান হাবীব রকেট, খাজা আহাম্মেদ, উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা চঞ্চল কুমার দাস, নাজমুল হোসেন, ফেরদৌস শোভনসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও বঙ্গবন্ধু প্রজন্ম লীগের নেতাকর্মিরা।