চুয়াডাঙ্গা বুধবার , ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৬

হান্নান শাহ আর নেই

সমীকরণ প্রতিবেদন
সেপ্টেম্বর ২৮, ২০১৬ ১:২২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

image_1675_257198

সমীকরণ ডেস্ক: একজন লড়াকুর বিদায়। স্বৈরশাসন আর অনির্বাচিত সরকারের বিরুদ্ধে উচ্চকিত এক কণ্ঠস্বরের অবসান। না ফেরার দেশে চলে গেলেন গ্রেপ্তার আর কারাবরণের মুখেও অনমনীয় এক সাহসী রাজনীতিক, বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আ স ম হান্নান শাহ। সিঙ্গাপুরের র‌্যাফেলস হার্ট সেন্টারে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল ভোর সোয়া পাঁচটায় না ফেরার দেশে চলে গেছেন তিনি (ইন্নালিল্লাহি…রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৭৭ বছর। বর্ষীয়ান এ রাজনীতিকের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটি ও ২০দলীয় জোটের শরিক দলের নেতারা। আলাদা শোকবার্তায় তারা মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। দলের নীতিনির্ধারক ফোরামের এ সদস্যের মৃত্যুতে চারদিনের শোক কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি। গতকাল থেকে শুরু হওয়া কর্মসূচি শেষ হবে ৩০শে সেপ্টেম্বর। এ সময় দলের নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়সহ সারা দেশে দলীয় কার্যালয়ে দলীয় পতাকা অর্ধনমিত থাকবে। উত্তোলন করা হবে কালো পতাকা। আগামী ৩০শে সেপ্টেম্বর শুক্রবার সারা দেশে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া, হান্নান শাহের মৃত্যুতে দুইটি শোকবই খুলেছে বিএনপি ও তার পরিবার। সকাল ১১টায় রাজধানীর নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে খোলা শোকবইটি রাখা হয়েছে তৃতীয় তলায়। এতে দলের নেতাকর্মীরা শোক জানিয়ে স্বাক্ষর করছেন। বিএনপি মহাসচিবের সঙ্গে বৈঠকের পর গতকাল দুপুরে সফররত এশিয়া প্যাসিফিক ডেমোক্রেটিক ইউনিয়নের প্রতিনিধি দলের সদস্যরাও দলের প্রয়াত আ স ম হান্নান শাহের জন্য খোলা শোকবইয়ে স্বাক্ষর করেন। শোকবইটি আগামীকাল ২৯শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। অন্যদিকে গতকাল দুপুর আড়াইটায় ডিওএইচএসের বাসায় খোলা শোকবইটি রাখা হয়েছে বাসার নিচতলায়। এদিকে হান্নান শাহের ছেলে শাহ রিয়াদুল হান্নানের বরাত দিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং কর্মকর্তা শামসুদ্দিন দিদার জানিয়েছেন, আজ বিকাল পাঁচটার দিকে হান্নান শাহের মরদেহ ঢাকায় আসবে। এরপর মরদেহ সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের (সিএমএইচ) হিমঘরে রাখা হবে। আগামীকাল সকাল ১০টার দিকে মহাখালী ডিওএইচএস জামে মসজিদে তার দ্বিতীয় জানাজা হবে। বেলা ১১টার দিকে জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় বাদ জোহর তৃতীয় এবং নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে চতুর্থ জানাজা হবে। এরপর লাশ আবার সিএমএইচের হিমঘরে নেয়া হবে। শুক্রবার সকাল ৯টায় গাজীপুর সদর রাজবাড়ীর মাঠে, সাড়ে ১০টায় কাপাসিয়া সদর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ও  বাদ জুমা ঘাগোটিয়া চালা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে বাবার কবরের পাশেই তার লাশ দাফন করা হবে। উল্লেখ্য, ৬ই সেপ্টেম্বর সকালে মহাখালী ডিওএইচএসের বাসা থেকে আদালতে হাজিরা দিতে যাবার সময় হৃদরোগে আক্রান্ত হলে প্রবীণ এ নেতাকে সিএমএইচে ভর্তি করা হয়। সেখানে কয়েকদিন লাইফ সাপোর্টে রাখার পর উন্নত চিকিৎসার জন্য ১১ই সেপ্টেম্বর তাকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে সিঙ্গাপুরে নেয়া হয়। র‌্যাফেলস হার্ট সেন্টার হাসপাতালে তার হৃদযন্ত্রের অস্ত্রোপচার ধমনীতে চারটি রিং পরানো হয়েছিল। অস্ত্রোপচারের পর পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হলেও গতকাল ভোরে হাসপাতালেই তার মৃত্যু হয়। গতকাল বাদ এশা সিঙ্গাপুরের থেরাঙ্গর রোডের এঙ্গোলিয়া জামে মসজিদে মরহুমের প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। ওদিকে হান্নান শাহের মৃত্যুর খবর পেয়ে সকালে মহাখালী ডিওএইচএসে তার বাসায় যান বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি তার বড় ছেলে শাহ রেজাউল হান্নানসহ পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন এবং তাদের সমবেদনা জানান। হান্নান শাহের মৃত্যুতে দলের নেতাকর্মী, শুভানুধ্যায়ী, জন্মস্থান গাজীপুরের কাপাসিয়ায় নেমে আসে শোকের ছায়া। প্রিয় নেতার মৃত্যুর খবর পেয়ে সকালেই তার মহাখালী ডিওএইচএসের বাসভবনে ছুটে যান বিএনপি নেতাকর্মী ও গাজীপুরের মানুষ। তাদের অনেকের চোখ ছিল অশ্রুসজল।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।