হঠাৎ বেড়েছে ভারত-পাকিস্তান কূটনৈতিক উত্তেজনা

135

বিশ্ব প্রতিবেদন:
চীন ও ভারতের সীমান্তের উতপ্ত অবস্থার মধ্যে বেড়েছে পাকিস্তানের সাথে কূটনৈতিক উত্তেজন। গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে দিল্লিতে অবস্থিত পাকিস্তান হাইকমিশনের কর্মীসংখ্যা অর্ধেকে নামিয়ে আনতে বললো ভারত। এর প্রতিক্রিয়ায় পাক সরকারের পক্ষ থেকে ইসলামাবাদে অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাসের কর্মীসংখ্যা অর্ধেকে নামিয়ে আনার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ নিয়ে তৈরি হয়েছে কূটনৈতিক উত্তেজনা। ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বুধবারের এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, সাত দিনের মধ্যে পাকিস্তানকে হাইকমিশনের কর্মীসংখ্যা অর্ধেকে নামিয়ে আনতে হবে। ‘তারা (পাকিস্তান) গুপ্তচরবৃত্তির কাজে লিপ্ত রয়েছে এবং সন্ত্রাসী সংগঠনগুলোর সঙ্গে লেনদেন বজায় রেখে চলেছে’ বলে অভিযোগ তোলা হয়েছে তাতে।
এর প্রতিক্রিয়ায় পাক পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, তাদের দূতাবাস কর্মীরা আইন মেনেই দায়িত্বপালন করছে, এরপরও নয়াদিল্লি এমন ব্যবস্থা নেওয়ায় তারাও পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে ভারতের ইসলামাবাদ দূতাবাসের অর্ধেক কর্মীকে বহিষ্কার করবে। ফলে দুই দেশের কূটনৈতিক সম্পর্কের আরও অবনতি ঘটতে যাচ্ছে। পাক হাইকমিশনের কর্মীদের আচরণ নিয়ে ভারতের অভিযোগ, অনেক কর্মী গুপ্তচরবৃত্তির সঙ্গে জড়িত এবং তারা জঙ্গিদের মদত দেয়। গত ৩১ মে হাই কমিশনের দুই কর্মীকে গুপ্তচরবৃত্তি করার সময় হাতেনাতে ধরে ফেলা হয়েছিল বলে অভিযোগ দেশটির। ওই দুই কূটনীতিককে বহিষ্কার করে ভারত। কিন্তু দিল্লির অভিযোগকে ‘ভিত্তিহীন’ বলে উড়িয়ে দেয় পাকিস্তান। এরপর তারাও ইসলামাবাদে অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাসের দুই কর্মীকে আটক করে তারপর ছেড়ে দেয় এবং বহিষ্কার করে। পাল্টাপাল্টি দূতাবাস কর্মী বহিষ্কারের পর থেকেই দুই প্রতিবেশী দেশের মধ্যে শত্রুতার সাম্প্রতিক পর্বটির গোড়াপত্তন ঘটে।