স্কুলছাত্রীর মর্মান্তিক মৃত্যু : বিক্ষুব্ধদের সড়ক অবরোধ!

215

চালকের খামখেয়ালিপনা : জীবননগর-চুয়াডাঙ্গা সড়কে বেপরোয়া গতির ট্রাকের ধাক্কা
জীবননগর অফিস:
জীবননগরে বেপরোয়া ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে জুঁই (৮) নামে এক স্কুলছাত্রী নিহত হয়েছে। গতকাল সোমবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে চুয়াডাঙ্গা-যশোর সড়কের মনোহরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়েল সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনার পরপরই বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী হত্যার প্রতিবাদে রাস্তায় নেমে আসে। এ সময় তারা সড়কে ব্যারিকেড দিয়ে চুয়াডাঙ্গা-যশোর সড়কে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। নিহত শিক্ষার্থী জুঁই জীবননগর উপজেলার মনোহরপুর গ্রামের উত্তরপাড়ার সিএনজি চালক জসিম উদ্দীনের মেয়ে। সে স্থানীয় আনন্দ শিশু নিকেতন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী।
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকালে প্রাইভেট শেষে বাড়ি ফিরছিলো শিশু জুঁই। বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে বাড়ির কাছাকাছি পৌঁছালে জীবননগর থেকে ছেড়ে আশা চুয়াডাঙ্গাগামী দ্রুতগামী একটি ট্রাক জুঁইকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই নিহত হয় ওই শিক্ষার্থী। অবস্থা বেগতিক দেখে ঘাতক ট্রাকের চালক গাড়ি নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। দুর্ঘটনার পরপরই বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী রাস্তায় নেমে আসে। এ সময় তারা সড়কের উপর গাছের গুড়ি ফেলে অবরোধ সৃষ্টি করে। বন্ধ করে দেয় চুয়াডাঙ্গা-যশোরের সাথে সব ধরণের যান চলাচল। খবর পেয়ে জীবননগর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে গেলে বিক্ষুব্ধ লোকজন উত্তেজিত হয়ে ওঠে। তারা এ সময় সড়কের উপর বসে জুঁই হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ করতে থাকে। খবর পেয়ে পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছিয়ে বিচারের আশ্বাস দিলে প্রায় দেড় ঘন্টা পর ব্যারিকেড তুলে নেয় এলাকাবাসী।
প্রত্যক্ষদর্শী খায়রুল ইসলাম জানান, বইপত্র নিয়ে সড়কের একেবারের পাশ দিয়ে হাটছিলেন জুঁই। কিন্তু দ্রুতগামী ট্রাকটি বেপরোয়া গতিতে এসে পিছন দিক থেকে তাকে ধাক্কা দিয়ে পিষ্ট করে পালিয়ে যায়।
জীবননগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ গণি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত। সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে। ঘাতক ট্রাকের চালককে গ্রেফতারে অভিযান চালানো হচ্ছে। সড়কে স্কুলছাত্রী জুই নিহতের সংবান শুনে ঘটনাস্থানে ছুটে আসেন পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান পিপিএম (বার), জীবননগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম, ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্সের উপসহকারী পরিচালক আ. সালাম, জীবননগর উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান হাজী হাফিজুর রহমান, মনোহরপুর ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন খাঁন।
এ সময় নিহত স্কুলছাত্রী জুইয়ের বাড়িতে তার পরিবারের সদস্যদের সাথে দেখা করে সমবেদনা জানিয়েছেন পুলিশ সুপার। এ সময় পুলিশ সুপার বলেন, নিহত স্কুলছাত্রীর মৃত্যুটা আসলেই দুঃখজনক, তবে গাড়ী এবং গাড়ির চালককে আটক করার জন্য চেষ্টা করা হচ্ছে। পাশাপাশি স্কুলের সামনে স্পীড বেকার দেওয়ার জন্য খুব দ্রত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এদিকে স্কুলছাত্রীর মৃত্যুতে গোটা এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।