সোশ্যাল মিডিয়া সুরক্ষার কৌশল

41

প্রযুক্তি ডেস্ক:
দিন যত এগোচ্ছে, অনলাইন প্রতারণা কিংবা সাইবার হামলা ততই বাড়ছে। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে গেছে, বড় বড় সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মের প্রধান নির্বাহীরাও হচ্ছেন হ্যাকিংয়ের শিকার। বিশেষজ্ঞরা সোশ্যাল মিডিয়ায় হ্যাকিং থেকে সুরক্ষিত থাকতে কিছু কৌশল অবলম্বন করার পরামর্শ দিয়েছেন।
সোশ্যাল মিডিয়ায় টু-স্টেপ ভেরিফিকেশন করুন
হ্যাকারদের নাগাল থেকে সোশ্যাল মিডিয়াকে সুরক্ষিত রাখার জন্য অন্যতম কার্যকরী উপায় হলো টু-স্টেপ ভেরিফিকেশন। কারও অ্যাকাউন্টে এটি চালু করে রাখলে হ্যাকিংয়ের ঝুঁকি অনেকাংশে কমে যায়। ফেসবুক, জিমেইল, টুইটারসহ যতগুলো সোশ্যাল মিডিয়ায় আপনার অ্যাকাউন্ট আছে ততগুলোতে টু-স্টেপ ভেরিফিকেশন করা উচিত। এতে অনাকাক্সিক্ষতভাবে কেউ আপনার অ্যাকাউন্ট লগ-ইন করার চেষ্টা করলে তাৎক্ষণিকভাবে আপনাকে সেটি জানিয়ে দেওয়া হবে।
ফোনের সবগুলো অ্যাপ নিয়মিত আপডেট রাখুন
ব্যবহারকারীর তথ্যের সুরক্ষার জন্য অ্যাপ ডেভেলপাররা প্রায়ই তাদের অ্যাপে আপডেট করেন। তাই কোনো অ্যাপ আপডেট হলেই ব্যবহারকারীর ফোনেও সেটি আপডেট রাখা জরুরি। বিশেষ করে ফেসবুক, টুইটার, ইউটিউবসহ অন্যান্য অ্যাপ আপডেট রাখা একান্ত প্রয়োজন। কেননা হ্যাকাররা আপডেট না করা এসব অ্যাপের মাধ্যমেই হ্যাক করে থাকে।
অ্যাকাউন্টের অ্যাক্টিভিটি খেয়াল রাখবেন
আপনার অ্যাকাউন্ট ইতোমধ্যেই হ্যাকারদের নিয়ন্ত্রণে চলে গেছে কি না- সেটি বোঝার জন্য এর অ্যাক্টিভিটি খেয়াল করুন। অনেক সময় দেখা যায় থার্ড পার্টি অ্যাপের মাধ্যমে হ্যাকাররা ব্যবহারকারীর তথ্য চুরি করছে ও নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিচ্ছে। সেক্ষেত্রে ভালোভাবে ইনবক্স চেক করুন। কাছের বন্ধুদের কাছে অর্থ লেনদেন বিষয়ক কিংবা প্রেমঘটিত কোনো অপ্রীতিকর মেসেজ পাঠানো হচ্ছে কি না সেটি খেয়াল রাখবেন।
ফ্রি-ওয়াই-ফাই ব্যবহারে সতর্ক হোন
আপনার অ্যাকাউন্ট হ্যাকিংয়ের সুযোগ সন্ধানে হ্যাকারদের এতটুকুও গাফিলতি নেই। অনেক সময় ফ্রি-ওয়াই-ফাই ট্রেস করে সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট হ্যাক করা হয়। তাই পারতপক্ষে কারও ফ্রি-ওয়াই-ফাই ব্যবহার না করার চেষ্টা করবেন।
সোশ্যাল মিডিয়ার জন্য আলাদা ই-মেইল ব্যবহার করুন
সোশ্যাল মিডিয়ার জন্য আপনার আলাদা একটি ই-মেইল অ্যাকাউন্ট থাকা প্রয়োজন। কারণ ব্যক্তিগত ই-মেইল দিয়ে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খোলা হলে হ্যাকার সহজেই আপনাকে ট্রেস করতে পারে। তাই ফেসবুক আইডি খোলার সময় এমন ই-মেইল আইডি ব্যবহার করুন যেন হ্যাকাররা আপনার কোনো ক্ষতি করতে না পারে।