চুয়াডাঙ্গা শুক্রবার , ২২ ডিসেম্বর ২০১৭
আজকের সর্বশেষ সবখবর

সীমান্ত হত্যা কাম্য নয়; মাদক ও চোরাচালান রোধে সকলের সহযোগিতা চাই

সমীকরণ প্রতিবেদন
ডিসেম্বর ২২, ২০১৭ ১০:৩৪ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

মুজিবনগরে চোরাচালান ও আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভায় ৬ বিজিবি পরিচালক লে.ক. মো. ইমাম হাসান
মুজিবনগর অফিস: সীমান্ত হত্যা আমাদের কারও কাম্য নয়। নোম্যান্স ল্যান্ড যেহেতু রাষ্ট্রের নয়, তাই ওখানে না যাওয়ার জন্যও অনুরোধ জানাচ্ছি। একই সাথে সীমান্তের কাটাতারের বেঁড়া কেটে অবৈধ অনুপ্রবেশ, মাদক ও চোরাচালান রোধে সকলের সহযোগিতা চাই। মেহেরপুরের মুজিবনগরে গবাদিপশু চোরাচালান এবং সীমান্তে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সংক্রান্ত এক মতবিনিময় সভায় বাগোয়ান ইউপি চেয়ারম্যান আয়ুব হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন চুয়াডাঙ্গা ৬ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের পরিচালক লে. কর্নেল মো. ইমাম হাসান। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টায় উপজেলার সোনাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এ সভার আয়োজন করা হয়।
সীমান্ত এলাকায় যে সকল চাষী চাষাবাদ করেন তাদের ৩ ফিট জমি বিজিবি জোওয়ানদের টহলে হাটাহাটির জন্য দেয়ার আহ্বান জানিয়ে প্রধান অতিথি বলেন, ‘৬ বিজিবি’র অর্ন্তগত সীমান্তে সকল প্রকার চোরাচালান ও অবৈধ অনুপ্রবেশ বন্ধসহ বিজিবি জোয়ানদের নিচ্ছিদ্র পাহারায় সীমান্ত এলাকাগুলোয় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখা হচ্ছে। বিজিবি জওয়ানদের টহলের সময় অন্যের জমির ফসল যাতে নষ্ট না হয় সেজন্যই এ আহ্বান জানাচ্ছি। একই সাথে মনে রাখতে হবে যেভাবে আমরা নিজের জমির সীমানা পিলার রক্ষা করি ঠিক তেমনি রাষ্ট্রের যে সকল সীমানা পিলার আছে সেগুলো সংরক্ষণ বা রক্ষা করা সকলের নাগরিক দায়িত্ব।’
সীমান্ত হত্যা প্রসঙ্গে ৬ বিজিবি পরিচালক বলেন, ‘বেপরোয়া চলাফেরা, অবৈধ অনুপ্রবেশ, মাদক ও চোরাচালানের কারণেই সীমান্তে প্রাণ দিতে হয় হাজারো মানুষকে। এ ভাবে সীমান্ত হত্যা আমাদের কারও কাম্য নয়। সীমান্ত অঞ্চলে বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া ঘোরাফেরা করা যাবে না। একান্তই প্রয়োজন হলে নিকটস্থ বিজিবি ক্যাম্পকে জানিয়ে এবং তাদের পরামর্শ মোতাবেক চলতে হবে।’
মাদক ও চোরাচালান রোধে সকলকে সহযোগিতার আহ্বান জানিয়ে লে. কর্ণেল মো. ইমাম হাসান আরো বলেন, ‘সীমান্ত দিয়ে ইয়াবা, ফেন্সিডিলসহ সকলপ্রকার মাদকদ্রব্য যেন প্রবেশ করতে না পারে সে বিষয়ে সর্তক দৃষ্টি রাখছে ৬ বিজিবি। একই সাথে আপনাদের সকলকে এগিয়ে এসে বিজিবিকে সহযোগিতা করতে হবে।’
তিনি আরো বলেন, ‘আমরা যারা সরকারী চাকুরি করি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য আমরা এখানে দায়িত্ব পালন করতে এসেছি। রাষ্ট্রীয় নির্দেশে একসময় বদলি হয়েও যাবো। আপনারা এই জেলার স্থায়ী বাসিন্দা। আপনাদের সন্তান পরিবার নিয়ে এখানে বসবাস করবেন। মাদকের ভয়াবহতা সম্পর্কে আপনারা যদি সচেতন না হন, মাদক প্রতিরোধে আপনারা যদি এগিয়ে না আসেন তাহলে মাদকের ভয়াল ছোবলে আপনি কিম্বা আপনার সন্তানই ক্ষতিগ্রস্থ হবেন। এমনিতেই শীতের সময় রাত ৯টা মানে অনেক রাত। এ সময় শহরের প্রায় দোকানপাটই ক্রেতার অভাবে বন্ধ হয়ে যায়। সুতরাং রাত ৯টার পরে সীমান্তবর্তী গ্রাম ও হাট বাজার এলাকার দোকানপাট খোলা রাখার যুক্তিসঙ্গত কোন কারন নেই।’ মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক সেবীরা যেন কোন সুবিধা না নিতে পারে এজন্যই সীমান্ত অঞ্চলে রাত ৯টার পর কোন দোকান খোলা না রাখার অনুরোধও জানান তিনি।
মতবিনিময় সভায় আরো বক্তব্য রাখেন মুজিবনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাহিদা আক্তার, মুজিবনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মাদ মনিরুল ইসলাম। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন সিগনাল সিটি হাবিবুর রহমান।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।