চুয়াডাঙ্গা শুক্রবার , ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬
আজকের সর্বশেষ সবখবর

সারা শরীরে উল্কি আঁকিয়ে গিনেস বুকে

সমীকরণ প্রতিবেদন
সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৬ ১:২৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!

31291_tatoo-1বিস্ময় ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের ৬৭ বছর বয়সী নারী চার্লটি গুটেনবার্গ। এই বয়সে এসেও তার মন মরে নি। তিনি পার্টনার চার্লস হেমকে’কে নিয়ে এখনও চুটিয়ে আড্ডা মারেন। প্রেম করেন। তো এবার দু’জন সংবাদ শিরোনাম হয়েছেন অন্য কারণে। তারা দু’জনেই পায়ের পাতা থেকে মাথা পর্যন্ত শরীরের প্রায় পুরোটাই উল্কি দিয়ে ভরে ফেলেছেন। শরীরে মাত্র ৮.৫ ভাগ এলাকা বাকি আছে, যেখানে উল্কি বা ট্যাটুর ছোঁয়া পড়ে নি। এমন কাণ্ড ঘটিয়ে তারা হয়েছেন গিনেস ওয়াল্ড রেকর্ডধারী সবচেয়ে বেশি বয়সী নাগরিক, যাদের গায়ে এভাবে উল্কি আঁকা হয়েছে। চার্লটি নিজে একজন লেখিকা, পারসনাল ট্রেইনার। তার বাড়ি ফ্লোরিডা। তার এই উল্কির নেশা শুরু হয় এক দশক আগে। ২০০৬ সালে তিনি প্রথম উল্কি আঁকান শরীরে। তার শরীরে এমন উল্কি থাকায় গিনেস তার সম্পর্কে বলেছে, তার শরীরে যখন প্রথম ওই উল্কি বসানো হয়েছিল তখন থেকেই সারা গায়ে উল্কি আঁকানোর নেশা পেয়ে বসে তাকে। দাবানল যেভাবে ছড়িয়ে পড়ে সেভাবে তার এই নেশা বাড়তে থাকে। তার শরীর ভরে গেছে উল্কিতে। তবুও আরও উল্কি আঁকাতে চান তিনি। চার্লটি বলেছেন, তিনি উল্কি আঁকা ত্বক দেখতে পছন্দ করেন। ভালবাসেন। বর্তমানে তার বসবাস প্রেমিক, পার্টনার চার্লস হেমকের সঙ্গে। হেমকের বয়স ৭৫ বছর। চার্লটির যে উল্কির প্রতি ভালবাসা রয়েছে তা তিনি জানেন। তাই এবার দু’জনেই আঁকিয়ে নিয়েছেন। তিনি চার্লটির ফিটনেস ও লেখা পছন্দ করেন।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।