চুয়াডাঙ্গা রবিবার , ৬ জুন ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

সারা দেশে ৪৩ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৪৪৭

সমীকরণ প্রতিবেদন
জুন ৬, ২০২১ ৮:৪৮ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

চুয়াডাঙ্গায় আরও ৪ ও মেহেরপুরে ১৪ জন করোনা আক্রান্ত
সমীকরণ প্রতিবেদক:
করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৪৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে সারাদেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ১২ হাজার ৮০১ জনে। একই সময়ে নতুন করে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১ হাজার ৪৪৭ জন। এ নিয়ে দেশে মোট করোনা রোগী শনাক্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৮ লাখ ৯ হাজার ৩১৪ জনে। গতকাল শনিবার স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছে ১ হাজার ৬৬৭ জন। এ নিয়ে দেষে মোট সুস্থ হয়েছেন ৭ লাখ ৪৯ হাজার ৪২৫ জন। ২৪ ঘণ্টায় ১২ হাজার ৭৬৬ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হলেও পরীক্ষা করা হয়েছে ১৩ হাজার ১১৫টি। নমুনা পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ১১ দশমিক ০৩ শতাংশ। মোট পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৪১ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ৪৩ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগের ১২ জন। এছাড়া চট্টগ্রামে ৮, রাজশাহীতে ১২, খুলনায় ৫, সিলেটে ১, রংপুর ৩ ও ময়মনসিংহে ২ জন মারা গেছেন।
গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে ৩০ জন পুরুষ এবং ১৩ জন নারী। এদের মধ্যে বাসায় ১ জন ছাড়া বাকিরা হাসপাতালে মারা গেছেন। বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে ২১ জনেরই বয়স ৬০ বছরের বেশি। এছাড়া ৫১ থেকে ৬০ বছরের ১৩, ৪১ থেকে ৫০ বছরের ২, ৩১ থেকে ৪০ বছরের ৫, ২১ থেকে ৩০ বছরের ১ এবং ১০ বছরের কম বয়সী ১ জন রয়েছেন।
চুয়াডাঙ্গা:
চুয়াডাঙ্গায় নতুন করে আরও চারজনের নমুনায় করোনা শনাক্ত হয়েছে। এনিয়ে জেলায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৬২ জনে। গতকাল শনিবার রাত নয়টায় জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ এ তথ্য নিশ্চিত করে। গতকাল জেলা থেকে সুস্থ হয়েছে আরও তিনজন ।
জানা যায়, গত শুক্রবার জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ করোনা পরীক্ষার জন্য কোন নমুনা সংগ্রহ করেনি। তবে গতকাল পূর্বের পেন্ডিং নমুনার মধ্যে ১১টি নমুনার ফরাফল সিভিল সার্জণ অফিসে এসে পৌঁছায়। কুষ্টিয়া পিসিআর ল্যাব থেকে প্রাপ্ত ১১টি নমুনার মধ্যে চারজনের নমুনায় করোনা শনাক্ত হয়েছে। বাকী ৭টি নমুনার ফলাফল নেগেটিভ আসে। গতকাল নতুন আক্রান্ত ৪ জনের প্রত্যেকেই দামুড়হুদা উপজেলার বাসিন্দা। জেলায় মোট শনাক্তদের মধ্যে সদর উপজেলার ১ হাজার ৫০ জন, আলমডাঙ্গায় ৩৭১ জন, দামুড়হুদায় ৪২৫ জন ও জীবননগরে ২১৬ জন। গতকাল জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ করোনা পরীক্ষার জন্য ৪৯টি নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষর জন্য প্রেরণ করেছে। এ নিয়ে জেলায় মোট নমুনা সংগ্রহের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০ হাজার ৪০৭ জনে। গতকাল সদর উপজেলা থেকে আরও তিনজন সুস্থ হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট সুস্থ্য হয়েছে ১ হাজার ৮২৩ জন। এর মধ্যে সদর উপজেলার ৯৭৬ জন, আলমডাঙ্গার ৩৪০ জন, দামুড়হুদায় ৩১৫ জন ও দামুড়হুদায় ১৯২ জন সুস্থ হয়েছেন।
চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন অফিসের সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী জেলা থেকে এ পর্যন্ত মোট নমুনা সংগ্রহ ১০ হাজার ৪০৭টি, প্রাপ্ত ফলাফল ১০ হাজার ১৫৩টি, পজিটিভ ১ হাজার ৬২ জন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত চুয়াডায় ১৬৯ জন করোনাক্রান্ত রোগী চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন। এর মধ্যে সদর উপজেলায় অবস্থানকালে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৬ জন, আলমডাঙ্গায় ১১ জন, দামুড়হুদায় ৯৩ জন ও জীবননগরে ১৯ জন। আক্রান্তদের মধ্যে বর্তমানে ১৩৯ জন হোম আইসোলেশনে আছেন। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ৩৪ জন, আলমডাঙ্গায় ৯ জন, দামুড়হুদায় ৭৮ জন ও জীবননগরে ১৯ জন। প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে আছেন সদর উপজেলার ১১জন, আলমডাঙ্গার একজন, দামুড়হুদার ১৩ জন ও জীবননগরের একজন জনসহ মোট ২৬ জন। চুয়াডাঙ্গায় করোনা আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মোট মৃত্যু হয়েছে ৭০ জনের। এরমধ্যে সদর উপজেলার ২৫ জন, আলমডাঙ্গায় ১৭ জন, দামুড়হুদায় ১৮ জন ও জীবননগরে ৪ জন। চুয়াডাঙ্গায় আক্রান্ত অন্য ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে এ জেলার বাইরে। অন্যদিকে, গতকাল করোনা আক্রান্ত সদর উপজেলার একজন ও দামুড়হুদার দুজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রেফার্ড করা হয়েছে।
মেহেরপুর:
মেহেরপুরে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আরো ১৪ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় বর্তমানে মোট করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০১ জনে। আক্রান্তদের মধ্যে সদর উপজেলার ২ জন, গাংনী উপজেলার ১ জন, মুজিবনগর উপজেলার ৮ জন ও বাকি ৩ জন চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদার বাসিন্দা। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় সিভিল সার্জন ডা. নাসির উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
জানা যায়, গতকাল কুষ্টিয়া পিসিআর ল্যাব থেকে ৬৬টি নমুনার ফলাফল সিভিল সার্জন অফিসে এসে পৌঁছায়। আরটিপিসিআর-৩১ টি, এন্টিজেন টেষ্ট-৩৩ টি, জীন এক্সপার্ট-২ টি। এর মধ্যে ১৪ জনের নুমনায় করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০১ জনে। এদের মধ্যে সদর উপজেলার ২৩ জন, গাংনী উপজেলার ৪৫ জন ও মুজিবনগর উপজেলার ৩৩ জন রয়েছে। জেলায় সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৮৭৭ জন এবং মুত্যুবরণ করেছেন সংখ্যা ২৩ জন।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।