চুয়াডাঙ্গা শনিবার , ২৩ এপ্রিল ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

সারা দেশে কালবৈশাখী ঝড় ও বজ্রসহ বৃষ্টি

সমীকরণ প্রতিবেদনঃ
এপ্রিল ২৩, ২০২২ ৯:০৪ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

কালবৈশাখী ঝড় ও ভারী বর্ষণে গতকাল শুক্রবার সাময়িক সময়ের জন্য বিপর্যস্ত ছিল রাজধানী ঢাকা। বিকেল থেকেই শুরু হয় থেমে থেমে বর্ষণ। ভারী বর্ষণে ঢাকার বিভিন্ন স্থানে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এতে ইফতারের আগে রাজধানীতে ছিল দু:সহ যানজট। এক শ’ গজ রাস্তা অতিক্রম করতে ঘণ্টার বেশি সময় লেগেছে। কোনো কোনো স্থানে দুই থেকে তিন ঘণ্টা এক জায়গায় বসে থাকতে হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সারা দিনই ১০ থেকে ১৫ কিলোমিটার বেগে বাতাস প্রবাহিত হয়। কিন্তু কালবৈশাখী ঝড় উঠলে বাতাসের গতিবেগ দাঁড়ায় ঘণ্টায় ৫০ থেকে ৬০ কিলোমিটার। ঢাকায় ২০ এপ্রিল পর্যন্ত বেশ কিছুদিন একটানা তাপপ্রবাহে জনজীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছিল। কিন্তু বুধবার রাত শেষে বৃহস্পতিবার ভোর রাত থেকেই প্রবল বেগে বাতাস প্রবাহিত হয়ে মুহূর্তেই ঠা-া করে দেয় প্রকৃতি। বৃহস্পতিবারও সারা দিন খুব বেশি গরম ছিল না। মোটামুটি সহনীয় পরিবেশ বিরাজ করছিল। গতকাল শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত গরম থাকলেও বিকেল থেকে শুরু হয়ে যায় ঝড় বৃষ্টি। কয়েক দিনের তাপপ্রবাহের পর তীব্র গরম কমিয়ে দিয়েছে কালবৈশাখী। তবে ভারী বর্ষণে ভেসে যায় ঢাকার রাস্তাঘাট, অনেক এলাকায় জমে যায় পানি। তীব্র গরমের পর কিছুটা স্বস্তি পায় সাধারণ মানুষ।

রাজধানীসহ দেশের মধ্যাঞ্চলজুড়ে গতকাল শুক্রবার সকাল থেকে প্রখর রোদের সাথে ভ্যাপসা গরম ছিল। দুপুরের পর হঠাৎ করেই রাজধানীর আকাশে জমতে শুরু করে মেঘ। এরপর বিকেল ৩ টার প্রবল হাওয়া বইতে শুরু করে এবং এর কিছুক্ষণ পর শুরু হয় ভারী বৃষ্টি। সেই সাথে ভয় ধরানো বিদ্যুৎ ঝলকানীও ছিল। আবহাওয়াবিদ শাহিনুল ইসলাম গতকাল বিকেলে জানিয়েছিলেন, সন্ধ্যা পর্যন্ত বৃষ্টি থেমে থেমে চলতে পারে। তবে গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত ঠিকই বৃষ্টি ছিল, তা রাত পর্যন্ত অব্যাহত ছিল। এদিকে শুধু ঢাকা নয়, গতকাল দেশের বিভিন্ন স্থানেই কালবৈশাখী আঘাত হেনেছে। আবহাওয়া অফিস বলেছে, রাত ১১টা পর্যন্ত কালবৈশাখী আঘাত হানার পর তার শক্তি ফুরিয়ে যায়। এরপর তা চলে গেছে কুমিল্লা অঞ্চলে। রাত ৮টার থেকে চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকায় ঝড় আঘাত হানে। বিকাল পাঁচ থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত মাগুরা, ফরিদপুর, মাদারীপুর, রাজবাড়ী, চাঁদপুর, ফেনী, নোয়াখালী, খাগড়াছড়ি জেলার ওপর দিয়ে বয়ে গেছে বজ্রসহ কাল বৈশাখী ঝড়। গতকাল বেলা ২টা থেকে সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে রাজশাহী বিভাগের প্রায় সব জেলার উপর দিয়ে প্রবল বেগে কালবৈশাখী বয়ে গেছে। রাজশাহী বিভাগের কালবৈশাখী ঝড় কোনো কোনো সময় ঘণ্টায় ৬০ কিলোমিটার অতিক্রম করে গেছে বলে আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা গেছে। ঢাকা বিভাগের টাঙ্গাইল ও জামাল জেলার বিভিন্ন অঞ্চলের উপর দিয়ে সকাল ১১টা থেকে দুপুর পর্যন্ত বয়ে গেছে বজ্রসহ কালবৈশাখী। কালিহাতি ও বাসাইল এলাকায় একটু বেশি আঘাত হানে বজ্র বৃষ্টিসহ। আবহাওয়াবিদ শাহিনুল ইসলাম আরো জানান, দক্ষিণাঞ্চল ছাড়া ঢাকাসহ প্রায় সব এলাকায় কালবৈশাখী তা-ব চালিয়েছে গতকাল শুক্রবার। একেক এলাকায় একেক রকম ছিল ঝড়ের গতিবেগ।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, শুক্রবার রাতের তাপমাত্রা ১ থেকে ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস কমে যেতে পারে। আজ শনিবার সারা দিনই রংপুর, রাজশাহী, ঢাকা, ময়মনসংিহ, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার সাথে প্রবল বিজলী চমকানোসহ বৃষ্টি অথবা ব্রজসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সাথে দেশের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলাবৃষ্টি হতে পারে। তবে আগামী দুই দিন সারা দেশেই দিন ও রাতের তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেতে পারে দেশব্যাপী বৃষ্টির পরিমাণ কমে যাবে বলে। গতকাল দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল রাজশাহী ও চুয়াডাঙ্গায় ৩৫ এবং সর্বনি¤œ ছিল নেত্রকোনায় ১৮.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।