সারাদেশে এসএসসি ও সমমানের পরিক্ষার প্রথম দিনে অনুপস্থিত ৮ হাজার ৫২০ বহিষ্কার ১৪ শিক্ষার্থী চুয়াডাঙ্গা মেহেরপুর ও ঝিনাইদহে শান্তিপূর্ণভাবে নকলমুক্ত পরীক্ষা গ্রহণ

306

dddd

নিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর, ঝিনাইদহসহ সারাদেশে একযোগে এসএসসি ও সমমানের প্রথম দিনের পরিক্ষা গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। গতকাল সকাল ১০টা থেকে সাধারণ বোর্ডে বাংলা (আবশ্যিক) প্রথম পত্র, সহজ বাংলা প্রথম পত্র এবং বাংলা ভাষা ও বাংলাদেশের সংস্কৃতি, মাদ্রাসা বোর্ডে কুরআন মাজিদ ও তাজবিদ বিষয়ের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। দেশের মোট ১৬ লাখ ৪৪ হাজার ১৩০ শিক্ষার্থীর মধ্যে পরীক্ষার প্রথম দিনেই অনুপস্থিত ছিলো আট হাজার ৫২০ শিক্ষার্থী। আর পরীক্ষার হলে অসদুপায় অবল¤॥^নের দায়ে ১৪ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। যশোর শিক্ষা বোর্ডের মোট ১ লাখ ৫৫ হাজার ৪’শ ৫১ জনের মধ্যে অনুপস্থিত ছিলো ৪৩২ পরীক্ষার্থী।
চুয়াডাঙ্গা জেলাতেও এসএসসি, দাখিল ও ভোকেশনাল পরীক্ষার্থীদের স্বতঃস্ফুর্ত অংশগ্রহণে প্রথম দিনের পরীক্ষা গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। জেলার ২৪টি প্রধান কেন্দ্রসহ সকল উপকেন্দ্রে কড়া নিরাপত্তার মধ্যে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আব্দুর রাজ্জাক জানান, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার ৩টি, আলমডাঙ্গা উপজেলার ৩টি, দামুড়হুদা উপজেলার ৪টি, জীবননগর উপজেলার ৫টি এবং মাদ্রাসা কেন্দ্র ৫টি ও ভোকেশনাল শাখার ৪টি প্রধান কেন্দ্রে জেলার সাড়ে ১২ হাজার পরীক্ষার্থী অংশ নিয়েছে। এর মধ্যে যশোর বোর্ডের আওতায় রয়েছে ৯ হাজার ৬’শ ৪৫ শিক্ষার্থী। সুষ্ঠু, সুন্দর ও নকলমুক্ত পরীক্ষা গ্রহণে সর্ব্বোচ্চ ব্যবস্থা নিয়েছে জেলা প্রশাসন। সকালে চুয়াডাঙ্গা ভি, জে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ও সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র পরিদর্শন করেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক সায়মা ইউনুস। এ সময় তিনি শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা গ্রহণের ব্যাপারে সার্বিক খোঁজখবর নেন।
সরেজমিনে জানা যায়, প্রথম দিন সাধারণ বোর্ডে বাংলা (আবশ্যিক) প্রথম পত্র, সহজ বাংলা প্রথম পত্র এবং বাংলা ভাষা ও বাংলাদেশের সংষ্কৃতি, মাদ্রাসা বোর্ডে কুরআন মাজিদ ও তাজবিদ বিষয়ের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। শুরুতে এমসিকিউ অংশের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সকাল সাড়ে নয়টার মধ্যে সকল পরীক্ষার্থীর হাতে খাতা দেওয়া হয়েছে। পরিক্ষা কেন্দ্রের আশপাশে ১৪৪ ধারা জারি করে সর্বসাধারণের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে প্রশাসন। কেন্দ্র পরিদর্শকের পাশাপাশি নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটবৃন্দ দায়িত্ব পালন করছেন। সকালে বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন করেছেন জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ।
আমাদের আলমডাঙ্গা অফিস জানিয়েছে, আলমডাঙ্গায় সুষ্ঠু ও নকলমুক্ত পরিবেশে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সারা দেশের ন্যায় সুষ্ঠু ও নকলমুক্ত পরিবেশে আলমডাঙ্গায় শুরু হয়েছে ২০১৭ সালের মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও দাখিল ও এসএসসি (ভোকেশনাল) পরীক্ষা। সকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আজাদ জাহান উপজেলার প্রতিটি কেন্দ্র পরিদর্শন করে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। আলমডাঙ্গা সরকারি পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ৬২৫ জন। মেয়ে ৪০৪ জন ও ছেলে ২২১। অনুপুস্থিত ৫ জন। আলমডাঙ্গা পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৭৮১ জন। মেয়ে ৩০১ ও ছেলে ৪৮০। অনুপস্থিত ১ জন। আলমডাঙ্গা সিদ্দিকীয় আলিম মাদরাসা কেন্দ্রে ২৪৯জন। মেয়ে ৭৪ জন ও ছেলে ১৭২ জন। অনুপস্থিত ৩ জন। মুন্সিগঞ্জ একাডেমি ও বালিকা বিদ্যালয়ে ৭৫৮ জন। মেয়ে ৩৮২ ও ছেলে ৩৭৬ জন। অনুপস্থিত ২ জন। কেন্দ্র সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন যথাক্রমে প্রধান শিক্ষক রবিউল ইসলাম খান, প্রধান শিক্ষক আনিসুজ্জামান, অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলাম, প্রধান শিক্ষক আতিয়ার রহমান। সহকারি কেন্দ্র সচিব প্রধান শিক্ষক মতিয়ার রহমান, প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম, প্রধান শিক্ষক নুরুল ইসলাম। কেন্দ্র ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন সমাজসেবা অফিসার আবু তালেব, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার দিনেশ চন্দ্র পাল ও পল্লী সঞ্চয়ী ব্যাংকের ব্যবস্থাপক আনোয়ার হোসেন।
দর্শনা অফিস জানিয়েছে, দর্শনায় শান্তিপূর্ণ ভাবে এসএসসি পরিক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সারাদেশের ন্যায় দর্শনায় এসএসসি সমমানের বাংলা প্রথমপত্র পরীক্ষা শান্তিপূর্ণ পরিবেশের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সকাল ১০ টা থেকে বেলা ১ টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে ২টি পরীক্ষা কেন্দ্রে বি.ডি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও বালিকা বিদ্যালয়ে এসএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষা এবারের পরীক্ষায় মোট ৭৩৩ জন শিক্ষার্থী এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়। এদের মধ্যে মাত্র একজন পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিল। বিশেষ শিক্ষার্থী ছিল ৭৯ জন। এ দুটি পরীক্ষা কেন্দ্রে মোট ৮টি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়। পরীক্ষা চলাকালে কেন্দ্র পরিদর্শন করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফখরুল ইসলাম। প্রথম দিনের পরীক্ষায় কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই শেষ হয়। সচিব হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন দর্শনা বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক একেএম হুমায়ন কবির ও সহকারী সচিব একরামুল হক। হল সুপার ছিলেন দক্ষিণচাঁদপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম ও কামার পাড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান।
মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, সারা দেশের ন্যায় মেহেরপুরেও এসএসসি ও সমমানের পরিক্ষা শুরু হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে একযোগে জেলার ৯টি কেন্দ্রে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষার প্রথম দিনে বাংলা ১ম পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এবছর জেলার ৯ টি কেন্দ্রে ৬ হাজার ১শ ৩৬ পরীক্ষার্থী অংশগ্রহন করেছে। এর মধ্যে মেহেরপুর সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৯শ ৮০ জন, সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৭শ ২৩ জন, আমঝুপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৭শ ৫৮জন, গাংনী পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৫শ ৫২জন, গাংনী পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে ৬শ ৯২জন, বামুন্দী নিশিপুর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় এন্ড কলেজে ৮শ ৭৬ জন, জুগিরগোফা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ২শ ৮০জন, মুজিবনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ১হাজার ১শ ৫জন এবং সাহেবনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ১শ ৭০ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহন করেছে। অপরদিকে দাখিল পরীক্ষায় ২টি কেন্দ্রে ৬শ ৩৪ জন ও এসএসসি ভোকেশনাল পরীক্ষায় ৩ টি কেন্দ্রে ৯শ ২৮ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহন করেছে। পরীক্ষা চলাকালে জেলা প্রশাসক পরিমল সিংহ, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গোলাম রসূল, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মঈনুল হাসান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) শুভ্র দাস, সহকারী কমিশনার মোহাম্মদ নূর-এ-আলম, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা শুভাষ চন্দ্র গোলদার বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন করেন।
মুজিবনগর অফিস জানিয়েছে, মেহেরপুর জেলার মুজিবনগর উপজেলায় এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়েছে। এবারের পরীক্ষায় অনিয়মিতসহ ১হাজার ১৩৪জন পরীক্ষার্থী রয়েছে। এর মধ্যে এসএসসি ও দাখিল পরীক্ষার্থী ১হাজার ৯জন বলে জানিয়েছেন কেন্দ্র সচিব মুজিবনগর মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইজারুল ইসলাম এবং হল সুপার গোপালনগর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জহিরুল ইসলাম। ভোকেশনাল পরিক্ষাত্রী ১২৫ জন বলে জানিয়েছেন ভোকেশনাল কেন্দ্রের হল সুপার আনন্দবাস মিয়ামুনসুর একাডেমির প্রধান শিক্ষক মাহাবুবুল হাসান। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার সময়  উপজেলার ১টি মূলকেন্দ্র ১টি ভেন্যু কেন্দ্রে একযোগে পরীক্ষা শুরু হয়। প্রথম দিনে বাংলা ১ম পত্র পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে, প্রথম দিনে ৪ জন ছাত্রী অনুপস্থিত ছিল বলে জানানো হয়েছে। নকলমুক্ত পরীক্ষা গ্রহণে বেশ কিছু ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানান প্রশাসনের কর্মকর্তারা। এছাড়া মুজিবনগর উপজেলার একমাত্র কেন্দ্র মুজিবনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ১ হাজার ১৩৪ জন এসএসসি পরীক্ষার্থী রয়েছে ভোকেশনাল সহ। প্রথম দিনের পরীক্ষায় ৯শ ৫৮জন পরিক্ষাত্রীর মধ্যে ৯শ ৫৪জন  পরিক্ষাত্রী অংশগ্রহন করে অনুপস্থিত ৪জন। ভোকেশনাল পরীক্ষায় ১২৫ জন অংশ গ্রহন করে। মুজিবনগর উপজেলায় এস এস সি ও সমমানের ১ম দিনের পরীক্ষা সুষ্ঠু, সুন্দর পরিবেশে সম্পন্ন হয়েছে।
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি জানান, ঝিনাইদহ জেলাতেও এসএসসি, দাখিল ও ভোকেশনাল পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সকাল ১০টা হতে একযোগে পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়। এদিকে নকল করার দায়ে ৪ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। ঝিনাইদহ সদর উপজেলার উত্তর নারানপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় এসএসসি পরীক্ষার কেন্দ্রে নকল করার অপরাধে চার শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে।