সাঁতার শেখানোয় গুরুত্ব দিতে অভিভাবকদের প্রতি জেলা প্রশাসকের আহ্বান

695

চুয়াডাঙ্গায় সাঁতার প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন কারীদের উপচেপড়া ভীড় : পুরস্কার বিতরণ সম্পন্ন
নিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গায় জমকালো আয়োজনের মধ্যদিয়ে সাঁতার প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ সম্পন্ন হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সমাপনি দিনে চুয়াডাঙ্গা জেলা শহরের দেড় শতাধিক ছাত্র-ছাত্রী সাঁতারু এ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন করে। চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে অনুষ্ঠিত অনূর্ধ-১৮ বয়স ভিত্তিক এ প্রতিযোগিতায় বালকদের জন্য ৩টি ও বালিকাদের জন্য ২টি গ্রুপ নির্ধারণ করা ছিল। চুয়াডাঙ্গা পুরাতন স্টেডিয়াম সংলগ্ন চুয়াডাঙ্গা শিশু-কিশোর সাঁতার প্রশিক্ষন কেন্দ্রে ওই প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতায় চুয়াডাঙ্গা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, ঝিনুক মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, চুয়াডাঙ্গা আদর্শ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, ভিজে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, চুয়াডাঙ্গা ফাযিল মাদরাসা, চুয়াডাঙ্গা একাডেমি ও এমএবারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১৫৫ জন শিক্ষার্থী সাঁতার প্রতিয়োগিতার বিভিন্ন ইভেন্টে অংশ গ্রহন করে। প্রতিযোগিতাটি অত্যন্ত উপভোগ্য ও আনন্দঘন পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়। সকাল ১০টায় প্রতিযোগিতার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ওয়াশীমুল বারী। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সহকারি কমিশনার ভূমি মাছুদল আলম ও উপজেলা সহকারি ইঞ্জিনিয়র আমিনুল ইসলাম। দিন ব্যাপী বিভিন্ন ইভেন্টের প্রতিযোগিতা শেষে বিকেল ৫টায় পুরস্কার বিতরণি অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি ও চুয়াডাঙ্গা শিশু-কিশোর সাঁতার প্রশিক্ষন কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ওয়াশীমুল বারীর সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথী ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক ও শিশু-কিশোর সাঁতার প্রশিক্ষন কেন্দ্রের সভাপতি জিয়াউদ্দীন আহমেদ। প্রধান অতিথীর বক্তব্যে জেলা প্রশাসক বলেন, সম্পদের চেয়ে সন্তানের জীবনের মুল্য অনেক বেশী। তাছাড়া বর্তমান যুগে ভাল স্কুল-কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়সহ যে কোন চাকুরীর ক্ষেত্রে সাঁতার জানাদের অগ্রাধিকার রয়েছে। তাছাড়া নদী-মাতৃক বাংলাদেশে সাঁতার শেখা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই আপনারা আপনাদের সন্তানকে সাঁতার শেখান নিরাপদ রাখুন। পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথী ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসনের স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক সৈয়দ ফারুক আহমেদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ আব্দুর রাজ্জাক, সদর উপজেলা সমাজসেবা অফিসার আব্দুল্লাহ আল-সামী ও সীমান্ত সুইমিং ক্লাবের সম্পাদক জামান আক্তার। প্রতিযোগিতায় বালক বড় গ্রুপে রাশেদ ১ম স্থান, তন্ময় ২য় ও জুবায়ের ৩য় স্থান দখল করে। বালক মধ্যম গ্রুপে হৃদয় ১ম, আসিফ ২য় ও স্বাধীন ৩য় স্থান দখল করে। বালক ছোট গ্রুপে হাবিবুর রহমান ১ম, তাঞ্জীল ২য় ও মুবিন ৩য় স্থান দখল করে। বালিকা বড় গ্রুপে তমা ১ম, বাবলী ২য় ও সোমাইয়া ৩য় স্থান দখল করে। বালিকা ছোট গ্রুপে নাহিদ ১ম , পূর্নিমা ২য় ও বিথি ৩য় স্থান দখল করে। সাঁতার প্রতিযোগিতায় সহযোগিতা পরিচালনায় সহযোগিতা করেন প্রশিক্ষক স্বপন, রিতা, মেজ মিয়া, রউফুনাহার রিনা, ফুরকান আলী ও রিপা শারমিন।