চুয়াডাঙ্গা শনিবার , ৭ জানুয়ারি ২০১৭
আজকের সর্বশেষ সবখবর

সমাবেশের অনুমতি মেলেনি বিএনপির

সমীকরণ প্রতিবেদন
জানুয়ারি ৭, ২০১৭ ২:৩০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

dfgrসমীকরণ ডেস্ক: সোহ্রাওয়ার্দী উদ্যান অথবা নয়াপল্টনে সমাবেশ করার অনুমতি দেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে বিএনপি। যদিও গতকাল রাত পর্যন্ত সমাবেশের অনুমতি মিলেনি। ঢাকা মহানগর পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয় সমাবেশের জন্য কোনো আবেদন তারা পায়নি। ডিএমপি’র এডিসি (মিডিয়া) মোহাম্মদ ইউসুফ আলী গতকাল রাতে জানান, সমাবেশের জন্য তারা কোনো আবেদন পাননি। এদিকে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এক অনুষ্ঠানে সরকারের উদ্দেশে বলেছেন, সোহ্রাওয়ার্দী উদ্যানে না হোক, নয়াপল্টনে সমাবেশ করার অনুমতি দিন। দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীও একই প্রস্তাব দিয়েছেন। নয়াপল্টনে ভাসানী মিলনায়তনে গতকাল ঢাকা মহানগর বিএনপি’র প্রস্তুতি সভায় তিনি এসব কথা বলেন। সভায় সভপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর বিএনপি’র আহ্বায়ক মির্জা আব্বাস। মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা সোহ্রাওয়ার্দী উদ্যান চেয়েছি, এখন পর্যন্ত পাইনি। এখনও যদি অনুমতি দেন, কাল জনসভা সফল করবো। সেখানে না দিয়ে যদি পার্টি অফিসের সামনে দেন, তাহলেও আমরা জনসভা সফল করতে পারবো। আমরা দু’টো প্রস্তাব-ই রাখছি। আমরা আশা করছি আপনাদের শুভবুদ্ধির উদয় হবে। আপনারা আমাদের সোহ্রাওয়ার্দী উদ্যানেই সভা করার অনুমতি দেবেন। এভাবে গণতন্ত্রকে সংকুচিত করবেন না; এভাবে দরজা জানালা বন্ধ করে দেবেন না। দরজা-জানালা খুলে দিতে হবে। হাজারটা মত আসবে, পথ আসবে। সেখান থেকেই তো গণতন্ত্র বিকশিত হবে বলেন- বিএনপি’র মহাসচিব। মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা ৫ই জানুয়ারি সভা করিনি। ওইদিন ‘দেশনেত্রীর’ মামলার হাজিরা ছিল। আমরা যে কোনো ধরনের সংঘাত এড়াতে ৭ই জানুয়ারি সভা করতে চেয়েছি। পিডব্লিউডি আমাদের অনুমতি দিয়েছে। পুলিশের অনুমতি পাইনি। আওয়ামী লীগ যখনই ক্ষমতায় এসেছে গণতন্ত্রের সব কিছুকে ক্লোজ করে দিয়েছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, পল্টন ময়দানে মিটিং করতাম, সে পল্টন ময়দান বন্ধ। মুক্তাঙ্গনে প্রোগ্রাম করতাম, সেটাও বন্ধ। অর্থাৎ, তারা জনগণকে ভয় পায়। আমরা বিশ্বাস করি আমরা যদি সংগঠিত হই, কোনো বাধা আমাদের সামনে এসে দাঁড়াতে পারবে না। গণতন্ত্রের বিজয় হবে। প্রস্তুতি সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন বিএনপি’র চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, বিএনপি’র সহ-সমাজ কল্যাণ বিষয় সম্পাদক কাজী আবুল বাশার ও সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ, ইউনুস মৃধা প্রমুখ।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।