সত্যবাদীদের জন্য পুরস্কার

671

ধর্ম ডেস্ক: সত্যবাদিতা একজন মানুষের অনেক বড় গুণ। এই গুণটি সর্ব ধর্মেই বিশেষভাবে সমাদৃত। ইসলামে সত্যবাদিতার পুরস্কার অনেক বেশি। আল্লাহ সত্যবাদীদের বিশেষ অনুগ্রহ দান করেন। যে যত বেশি সত্যবাদী হবে আল্লাহ তাকে অন্তর্দৃষ্টির সম্পদ তত বেশি দান করবেন। তখন সাধারণ চর্মচক্ষুর বাইরের অনেক কিছু তারা জানতে, বুঝতে ও বলতে পারবেন। সত্যবাদী ব্যবসায়ী কখনো গরিব হবে না। এটা কোনোভাবেই সম্ভব নয় যে, ব্যবসায়ী মিথ্যা না বলে গরিব হয়ে গেছেন। একটু অভিজ্ঞতার দ্বারা যাচাই করলেই এর প্রমাণ পাবেন। সত্যবাদী সবসময় ধনী থাকে অথবা সত্যবাদীকে আল্লাহ ধনী বানিয়ে দেন। আল্লাহ তায়ালা কোরানে কারিমে সত্যবাদীর জন্য পাঁচটি পুরস্কারের কথা আলোচনা করেছেন। প্রথম পুরস্কার হলো, যে বান্দা সত্য কথা বলে আল্লাহ তার পেরেশানি দূর করে দেন। তার মধ্যে স্বস্তি দান করেন। নবী করিম (সা.) এর জীবন এর বড় উদাহরণ। দ্বিতীয়ত, আল্লাহ তাদেরকে শত্রুদের বিরুদ্ধে বিজয়ী করবেন। তৃতীয়ত, আল্লাহ তায়ালা সত্যবাদীদের আলোচনা লোকদের মুখে মুখে ছড়িয়ে দেন। ইবরাহিম (আ.)-এর ব্যাপারে আল্লাহ বলেছেন-‘এবং আমাকে পরবর্তীদের মাঝে সত্যভাষী করো’ [সূরা শুয়ারা-৮৪]। ইবরাহিম (আ.) এমন একজন নবী তিনি বিশেষ সম্মানী। সবার কাছে তিনি সম্মানের পাত্র। সত্যবাদীদের চতুর্থ পুরস্কার হলো, আল্লাহ তাদের উচ্চ মর্যাদা দান করবেন। এটাকে ‘কদমে সিদক’ বলা হয়। আল্লাহ বলেন-‘সুসংবাদ শুনিয়ে দেন ইমানদারদের, তাদের জন্য সত্য মর্যাদা রয়েছে তাদের পালনকর্তার কাছে’ [সূরা ইউনুস-২]। আর পঞ্চম পুরস্কার হলো, চূড়ান্ত সফলতা দান করবেন। মুমিনের চূড়ান্ত সফলতা হলো আখেরাতে মুক্তি যারা দুনিয়ার জীবনে সত্যবাদিতার গুণ অর্জন করে তাদেরকে পরকালে আল্লাহ সফল করবেন এমন প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। কথায় বলে সত্যের কোনো ক্ষয় নেই। সত্যবাদী মানুুষ কখনো নিঃশেষ হয়ে যায় না। সত্য বলার কারণে অনেক সময় সাময়িক সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে। কিন্তু এর কারণে অন্য দিক থেকে সত্যবাদী মানুষ অনেক বেশি উপকৃত হয়ে যান। আল্লাহ নিজে যেখানে ওয়াদা করেছেন সত্যবাদীরা ক্ষতিগ্রস্ত হবে না সেখানে সত্য বলে কেউ কোনোদিন ক্ষতির মুখে পড়তে পারে না। সত্য বলার মধ্যেই রয়েছে মুমিনের মুক্তি ও সফলতা।