লকডাউন ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান

22

জীবননগরে লকডাউন বাস্তবায়নে নেতা-কর্মীদের নিয়ে মাঠে এমপি টগর
জীবননগর অফিস:
করোনা সংক্রমণ রোধে সরকার ঘোষিত ১৪ দিনের লকডাউনের ৯ম দিনে জীবননগর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে সাধারণ মানুষকে স্বাস্থ্য সচেতন করাসহ লকডাউন বাস্তবায়নে জীবননগর উপজেলা প্রশাসন, সেনাবাহিনী, পুলিশ বিজিবির সাথে একত্রিত হয়ে মাঠে নামলেন জীবননগর উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। গতকাল শনিবার বেলা ১১টার দিকে জীবননগর পৌর শহরের কাঁচা বাজার, মাংস বাজার, আন্দুলবাড়ীয়সহ উপজেলার বিভিন্ন স্থানগুলোতে সাধারণ মানুষককে স্বাস্থ্য সচেতন করা হয়।
এসময় উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজি আলী আজগার টগর, জীবননগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফুল ইসলাম, মহেশপুর-৫৮ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল কামরুল আহসান, ক্যাপটেন তায়াসীন, জীবননগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজি হাফিজুর রহমান, জীবননগর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মোর্তুজা, সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, জীবননগর পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েসা সুলতানা লাকী, জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইফুল ইসলাম, জীবননগর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আবু মো. আব্দুল লতিফ অমল, জীবননগর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি নাসির উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম। এদিকে, স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘন করায় দুজনকে ভ্রাম্যমাণ আদালত ২ হাজার টাকা জরিমানা করেছে।
এসময় এমপি আলী আজগার টগর বলেন, সরকার জনগণকে করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা করতেই লকডাউন দিয়েছে। সবার সাময়িক কষ্ট হবে। কিন্তু সংক্রমণ রোধে লকডাউনের বিকল্প পথ নেই। আগে বাঁচতে হবে, তাই প্রত্যেক সচেতন নাগরিকের উচিত সাধারণ মানুষকে লকডাউন ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা।
তিনি আরও বলেন, সারাবিশ্ব যখন করোনায় আক্রান্ত হয়ে মুখ থুবড়ে পড়েছিল, বাংলাদেশও তার থেকে বিচ্ছিন্ন ছিল না। বাংলাদেশও এই মরণব্যাধী করোনায় আক্রান্ত হয়। কিন্তু মানবতার সফল নেত্রী রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা বাংলাদেশে জীবন এবং জীবিকা উভয়কে একইসাথে পরিচালনা করে সঠিক ভূমিকা পালন করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। শুধু সরকারই নয়, দলগতভাবেও আওয়ামী লীগ জনগনের পাশে দাঁড়িয়েছে। এই ধারা অব্যাহত থাকবে।
এদিকে, আন্দুলবাড়ীয়া বাজারে কার্যক্রম পরিচালনার সময় উপস্থিত ছিলেন আন্দুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ শফিকুল ইসলাম মোক্তার, আন্দুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও আন্দুলবাড়ীয়া বাজার কমিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক শেখ মহিদুল ইসলাম মধু জিহাদী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শেখ আতিয়ার রহমান, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মীর মকলেচুর রহমান টজো, আন্দুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সভাপতি মির্জা হাকিবুর রহমান লিটন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ মোল্লা ফখরুল হাসান টুটুল, আইনবিষয়ক সম্পাদক খান তারিক মাহমুদ, শেখ সামাদুল ইসলাম, আন্দুলবাড়ীয়া বাজার কমিটির সভাপতি মুন্সী আমিনুল বাশার কবু, শেখ সেকেন্দার আলী প্রমুখ।