চুয়াডাঙ্গা মঙ্গলবার , ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭

রোহিঙ্গা মুসলমান নির্যাতন বন্ধে ফরিয়াদ

সমীকরণ প্রতিবেদন
সেপ্টেম্বর ৫, ২০১৭ ৬:৫৬ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর ও ঝিনাইদহে সবকটি ঈদগাহে ঈদ-উল আযহার নামাজে

নিজস্ব প্রতিবেদক: পবিত্র ঈদ-উল আযহার আনন্দ ভাগাভাগি করতে শিশু-কিশোর, ছোট-বড়, ধনী-গরীব এক কাতারে শামিল হয়ে ঈদ উৎসব পালন করেন। ঈদের জামায়াত গুলোতে এলাকার বিশিষ্টজনদের সাথে সাধারণ নাগরিকরা একই কাতারে নামাজ আদায় করেছেন। এবারও একাধিক ঈদগা মাঠে বিশিষ্টজনেরা নামাজ আদায় করেছেন চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর ও ঝিনাইদহের জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের সবকটি ঈদগাহ মাঠে ঈদ-উল আযহার নামাজ আদায় হয়েছে। ঈদুল আযহার জামাত মঙ্গলবার বিভিন্ন ঈদগাহ গুলোতে ৭টা থেকে ১০টা মধ্যে অনুষ্ঠিত হয়। চুয়াডাঙ্গা মেহেরপুর ও ঝিনাইদহে সবচেয়ে বড় ঈদের জামাত গুলো সকাল ৭ থেকে সাড়ে ৮.৩০মিনিটের মধ্যে অনুষ্ঠিত হয়। চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, জাতীয় সংসদের হুইপ, বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন, এমপি পৌর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে সকাল ৮টায় ১ম জামাতে পরিবারের সদস্য ও নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে ঈদের নামাজে অংশ নেন। নামাজ শেষে মুসুল্লিদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় পরবর্তী পরিবারের সদস্যদের নিয়ে পশু কোরবানি করেন। এরপর সারাদিন চুয়াডাঙ্গা কবরী রোডস্থ নিজ বাসভবনে ফিরে প্রশাসনিক কর্মকর্তা-কর্মচারী, নেতাকর্মীসহ সর্বস্তরের জনগণের সাথে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজী আলী আজগার টগর এবারও তাঁর নিজ গ্রাম রঘুনাথপুর ঈদগাহ ময়দানে ঈদ-উল-আযহার নামাজ আদায় করেন। এরপর গ্রামের বাড়িতে পশু কোরবানি করবেন বলে জানা গেছে। সেখানে নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের সাথে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক জিয়াউদ্দীন আহমেদ নিজ কর্মস্থল চুয়াডাঙ্গায় ঈদ করবেন। সকাল ৮টায় টেনিস মাঠে (ডিসি অফিস) ঈদের নামাজ আদায় করেন।শারীরিক অসুস্থতার কারণে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সেখ সামসুল আবেদিন খোকন এবার ঢাকাতে ঈদ করেছেন। সেখানেই পশু কোরবানি দেন তিনি। চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র ওবাইদুর রহমান চৌধুরী জিপু পৌর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে নামাজ আদায় শেষে বাবার কবর জিয়ারত করেন। এরপর কেদারগঞ্জ এলাকার পৌরসভার নির্ধারিত স্থানে কোরবানির পশু জবাই করেন। জীবননগর উপজেলা চেয়ারম্যান আবু মোহাম্মদ আব্দুল লতিফ অমল জীবননগর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে নামাজ পড়েন। চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও সাবেক ছাত্রনেতা বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হাজি শরীফুজ্জামান শরীফ টেনিস গ্রাউন্ডে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে বিশেষ জামাতে নামাজ আদায় করেন।
মেহেরপুর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, মেহেরপুর জেলায় পালিত হয়েছে পবিত্র ঈদুল আযহা। শনিবার সকালে জেলার ৩৭৩টি ঈদগাহসহ বিভিন্ন মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। দো’আ মোনাজাতে মিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলমান নির্যাতন বন্ধে আল্লাহর কাছে ফরিয়াদ করেছেন মুসল্লিরা। সকাল ৮ টার সময় মেহেরপুর শহরে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয় পৌর ঈদগাহ ময়দানে। ঈমামতি করেন মাও. আব্দুল হান্নান খান। এছাড়াও সকাল ৮ টা ১৫ মিনিটে ঈদের দ্বিতীয় বৃহ.জামাত অনুষ্ঠিত হয় মেহেরপুর-চুয়াডাঙ্গা সড়কের পাশে অবস্থিত পুরাতন ঈদগাহ ময়দানে। ঈমামতি করেন মাও. রোকনুজ্জামান। সকাল ৯ টায় পৌর ঈদগাহ ময়দানে মহিলাদের ঈদের জামাতে ঈমামতি করেন মাও. আব্দুল করিম। এ দিকে রাজনগর দাখিল মাদ্রসার প্রঙ্গনে ঈদগাহ ময়দানে সকাল ৮টার সময় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। ঈমামতি করেন জামে মসজিদের পেশ ইমাম মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান।
মেহেরপুর জেলার বিভিন্ন ঈদগাহে দো’আ মোনাজাতে বিশ^ মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনা করে দো’আ করা হয়। বাংলাদেশের মানুষের উপর শান্তি বর্ষণের দো’আ করেন ঈমামগণ। তবে মোনাজাতে বারবারই উঠে আসে সম্প্রতি চলা মিয়ানমারের নৃশংস গণহত্যার বিষয়। মিয়ানমারের অসহায় মুসলমানদের রক্ষায় আল্লাহর রহমত বর্ষণের ফরিয়াদ করেন মুসল্লিরা।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।