রাস্তার ওপর গাড়ি রেখে মেরামত করায় যানজট : দুর্ভোগ পথচারীদের

383

দর্শনা-মুজিবনগর সড়কের দুপাশ জুড়ে সরকারী জায়গায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলে ব্যবসা

দর্শনা অফিস: দর্শনা-মুজিবনগর সড়কে দিনে দিনে বেড়েই চলেছে যানজট। দীর্ঘ দিনেও এ যানজটের কোন প্রতিকার হচ্ছে না। সড়কটির দু’পাশে সরকারী জমিতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান গড়ে ওঠাই এ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে চলাচলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে পথচারীদের। এ সড়কের সবচেয়ে বেশি যানজট লক্ষ করা যায় দর্শনা বাসস্ট্যান্ড থেকে পুরাতন বাজার পর্যন্ত।
পথচারীদের অভিযোগ, দর্শনা-মুজিবনগর সড়কের বাসস্ট্যান্ড থেকে পুরাতন বাজার পর্যন্ত সড়ক সংলগ্ন দু’পাশে বেশকয়েকটি গ্যারেজ রয়েছে। সরকারী জমিতে থাকা এসকল গ্যারেজের সামনে মেরামতের জন্য অসংখ্য গাড়ি রাখা হয়। ফলে সড়কে যানজটের সৃষ্টি হয়। এ গ্যারেজ গুলির মধ্যে হাকিম ভলকানাইজের গ্যারেজ ও রাস্তার অপরপাশে রয়েছে পল্টুর লেদ মেশিং। হাকিম ভলকানাইজে ঢাকাগামী পরিবহনগুলো দীর্ঘ সময় ধরে এ স্থানে পার্কিং করে গাড়ির চাকায় হওয়া দেওয়া, চাকা খোলা, চাকার নাট টাইট দেওয়া ও অপরপাশে অবস্থিত পল্টুর লেদে গাড়ির অন্নান্য মেরামত কাজ করে থাকে। ফলে পরিবহনের দুই চাকা রাস্তার প্রায় মাঝামাঝি অবস্থান করে। এ কারনে মাঝখান দিয়ে যেকোন একটি গাড়ি যাওয়া কষ্ট হয়ে যায়। এ কারনেও অনেক সময় যানজটের সৃষ্টি হয়। আর একটু এগিয়ে গেলে দেখা যায় মালেকের ট্র্যাক্টর গ্যারেজ। যেখানে সড়কের পাশে সরকারী জমি নিজের মনে করে ট্র্যাক্টরের ফাল ও অকেজো ট্রলি রেখে দিয়েছে গ্যারেজ মালিক। ট্র্যাক্টার গ্যারেজের পাশে বকুলের পরিবহন সার্ভিসিং সেন্টার। এখানে দীর্ঘ সময় ধরে পরিবহন সার্ভিসিং করা হয়। যার কারনে পানি রাস্তার উপরে চলে আসে সড়কটির একপাশ পানি জমে নিচু হয়ে সড়কটির ভাঙন ধরার উপক্রম। যা ১২ মাসের সমস্যা হয়ে দাড়িয়েছে পথচারীদের। এর পাশেই সালামের লেদ ও গাড়ির রং করা দোকান। যেখানে দীর্ঘ সময় ধরে লেদের কাজসহ রং করার জন্য রাস্তার উপরে গাড়ি দাড়িয়ে থাকে। ফলে অনেক সময় যানজটের সৃষ্টি হয়। এমনি করে বাসস্ট্যান্ড থেকে পুরাতন বাজার পর্যন্ত সড়কটির দুপাশে কোন না কোন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নির্মাণ করে তার প্রচার বোর্ড ও প্রতিষ্ঠানের সামনে টিনের চালা দিয়ে রেখেছে ব্যবসায়ীরা। এ সকল কারনে সড়কটি দু’পাশ দিয়ে চাপে পড়ে মুল সড়কই অনেক ছোট হয়ে গেছে। এ সকল সমস্যার কারণে সাধারণ মানুষ ও পথচারীরা বলেন, সংশ্লিষ্ট কর্র্তৃপক্ষ যদি একটু নজরদারী করে, তাহলে হয়তো এ যানজট নিরসর সম্ভব হবে।