চুয়াডাঙ্গা বুধবার , ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

যাত্রীদের আর থাকতে হবে না কোয়ারেন্টিনে

সমীকরণ প্রতিবেদন
সেপ্টেম্বর ২২, ২০২১ ৮:৩৯ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

করোনা সংকট : আজ থেকে ব্রিটিশ লাল তালিকার বাইরে বাংলাদেশ
শর্ত সাপেক্ষে জাপান ও মালয়েশিয়ায় প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার
সমীকরণ প্রতিবেদন:
কোভিড মহামারির মধ্যে বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাজ্যে যাওয়া যাত্রীদের প্রাতিষ্ঠানিক বা হোটেলে কোয়ারেন্টিনে থাকার বাধ্যবাধকতা আর নেই। যুক্তরাজ্য সময় আজ বুধবার ভোর ৬টায় (বাংলাদেশ সময় সকাল ১১টা) বাংলাদেশসহ আটটি দেশের নাম ‘রেড লিস্টের’ (লাল তালিকা) বাইরে চলে আসবে। ফলে ওই দেশ থেকে যুক্তরাজ্যে যাওয়া যাত্রীদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে না।
ব্রিটিশ পরিবহনমন্ত্রী গ্র্যান্ট শ্যাপস গত ১৭ সেপ্টেম্বর লাল তালিকা হালনাগাদ করার ঘোষণা দিয়েছিলেন। লাল তালিকায় থাকা দেশ থেকে যুক্তরাজ্যে প্রবেশের আগে কোয়ারেন্টিনের হোটেলে বুকিং দেওয়া বাধ্যতামূলক। ১১ রাতের কোয়ারেন্টিনের জন্য একজন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তিকে হোটেলে একটি কক্ষের জন্য গুনতে হচ্ছিল দুই হাজার ২৮৫ পাউন্ড (প্রায় দুই লাখ ৭০ হাজার টাকা)। কভিড পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে নির্দিষ্ট সময় পর পর যুক্তরাজ্য সরকার ট্রাফিক বাতির মতো রং যেমন ‘রেড’, ‘অ্যাম্বার (হলুদ)’ ও ‘গ্রিন (সবুজ)’ তালিকার মাধ্যমে ঝুঁকি নির্দেশ করে। গত ৭ মে যুক্তরাজ্য সরকার প্রকাশিত তালিকায় বাংলাদেশ ‘রেড লিস্টে’ স্থান পেয়েছিল। ফলে বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাজ্যে যাওয়া নিষিদ্ধ না হলেও নির্ধারিত হোটেলে কোয়ারেন্টিনের বাধ্যবাধকতার কারণে তা ছিল বেশ ব্যয়বহুল। লাল তালিকা থেকে বেরিয়ে আসার ফলে বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাজ্যে যাওয়া যাত্রীদের হোটেলে ব্যয়বহুল কোয়ারেন্টিন করতে হবে না।
বাংলাদেশ থেকে এখন যুক্তরাজ্যে যাওয়ার তিন দিন আগে কোভিড পরীক্ষা করাতে হবে এবং ফল ‘নেগেটিভ’ আসতে হবে। রওনা হওয়ার আগেই ইংল্যান্ডে কভিড পরীক্ষার বুকিং এবং পরীক্ষার জন্য অর্থ পরিশোধ করতে হবে। এ ছাড়া যাত্রীদের অবস্থান সংক্রান্ত ‘প্যাসেঞ্জার লোকেটের ফরম’ পূরণ করতে হবে। যাত্রীর কভিডের টিকা নেওয়া বা না নেওয়া এবং নিয়ে থাকলে কী টিকা নিয়েছেন, তার ওপর নির্ভর করছে যুক্তরাজ্যে পৌঁছার পর করণীয় কী হবে। যুক্তরাজ্য সরকারের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, যুক্তরাজ্যের টিকাদান কর্মসূচি, বিদেশে যুক্তরাজ্যের টিকাদান কর্মসূচি এবং ইউরোপ বা যুক্তরাষ্ট্রে অনুমোদিত টিকাদান কর্মসূচি (সব টিকা ইংল্যান্ডে অনুমোদিত নয়)Íএমন ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে ইংল্যান্ডে পৌঁছার পর দ্বিতীয় দিনে বা পৌঁছার দিনে কভিড পরীক্ষা করাতে হবে। যাত্রী টিকার পূর্ণ ডোজ নেওয়া না থাকলে তাঁকে যুক্তরাজ্যে পৌঁছার পর ১০ দিন বাসায় বা বসবাসের স্থানে ১০ দিন কোয়ারেন্টিন করতে হবে। যাত্রীকে ইংল্যান্ডে পৌঁছার দুই দিনের মধ্যে কভিড পরীক্ষা করাতে হবে।
যাত্রী যুক্তরাজ্য অনুমোদিত কভিড টিকার পূর্ণ ডোজ নিয়ে থাকলে ইংল্যান্ডে আসার দ্বিতীয় দিনে কভিড পরীক্ষা করাতে হবে। আর যাত্রী যদি যুক্তরাজ্য অনুমোদিত কভিড টিকার পূর্ণ ডোজ নিয়ে না থাকেন, তবে তাঁকে বাসায় ১০ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। যুক্তরাজ্যে যাওয়ার পর থেকে দুই দিনের মধ্যে এবং অষ্টম দিনে বা অষ্টম দিনের পর তাঁকে কভিড পরীক্ষা করাতে হবে।
টিকার স্বীকৃতি নিয়ে ‘বিতর্ক’ :
এদিকে যুক্তরাজ্যে অনুমোদিত টিকায় ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে তৈরি অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা ‘কোভিশিল্ড’ না থাকা নিয়ে বিতর্ক দেখা দিয়েছে। ভারত বিষয়টি ব্রিটিশ সরকারের কাছে তুলেছে। বাংলাদেশও ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের কাছ থেকে এক কোটি তিন লাখ ডোজ টিকা পেয়েছে। বিবিসি বাংলার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারত ও বাংলাদেশে কোভিশিল্ড টিকার দুই ডোজ নেওয়া ব্যক্তিদের ‘পূর্ণ টিকা প্রাপ্ত’ হিসেবে ব্রিটেন স্বীকার না করায় বর্ণবৈষম্যের অভিযোগ উঠেছে। ভারতের পররাষ্ট্রসচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা গতকাল নয়াদিল্লিতে সংবাদ সম্মেলনেও এ বিষয়ে প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন। তিনি স্মরণ করিয়ে দিয়েছিলেন, ভারত যুক্তরাজ্যকে ৫০ হাজার ডোজ কোভিশিল্ড টিকা পাঠিয়েছিল। অর্থাৎ যুক্তরাজ্যও এই টিকা নিয়েছে। অন্যদিকে নয়াদিল্লিতে ব্রিটিশ হাইকমিশন এক বিবৃতিতে বলেছে, যুক্তরাজ্যে কোভিশিল্ড টিকার সনদকে স্বীকৃতি দেওয়ার বিষয়ে কাজ চলছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, গত শুক্রবারের একটি ভ্রমণ নির্দেশিকা নিয়ে বিতর্ক ছড়ানো হচ্ছে। বিষয়টি দ্রুতই সুরাহা হয়ে যাবে।
জাপানে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার :
এদিকে ঢাকায় জাপান দূতাবাস জানায়, জাপান সরকার বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ার ছয়টি দেশ থেকে যাত্রীদের জাপানে পুনঃপ্রবেশের (রি-অ্যান্ট্রি) ক্ষেত্রে বিদ্যমান নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেছে। এটি গত সোমবার দিবাগত রাত থেকে কার্যকর হয়েছে। হালনাগাদ কভিড-১৯ প্রতিরোধমূলক নীতিমালা অনুযায়ী, বাংলাদেশ থেকে জাপানে প্রত্যাবর্তনকারীদের নীতিগতভাবে ‘অতি বিশেষ প্রেক্ষাপটের’ আওতায় পুনঃপ্রবেশ করতে দেওয়া হবে। যাঁদের ‘রি-অ্যান্ট্রির’ মেয়াদ আছে, তাঁরা সরাসরি জাপানে পুনঃপ্রবেশ করতে পারবেন। ‘রি-অ্যান্ট্রি’ মেয়াদোত্তীর্ণ হয়ে গেলে ঢাকাস্থ জাপান দূতাবাসের সঙ্গে যোগাযোগ করা যেতে পারে।
নতুন নীতিমালায় জাপানে প্রবেশের পর সরকার নির্ধারিত স্থানে কোয়ারেন্টিনের জন্য বাধ্যতামূলক অবস্থানের সময়কাল ছয় দিন থেকে কমিয়ে তিন দিন করা হয়েছে। তৃতীয় দিনে কভিড পরীক্ষার ফলাফল নেগেটিভ হলে ১৪ দিনের সঙ্গনিরোধের অবশিষ্ট সময়কালে নিজ বাসস্থানে অথবা সরকার নির্ধারিত স্থানে অবস্থান করতে পারবেন।
নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে মালয়েশিয়া :
ঢাকায় মালয়েশীয় হাইকমিশন জানিয়েছে, বাংলাদেশসহ বেশ কিছু দেশ থেকে মালয়েশিয়ায় প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে। মালয়েশিয়ার পার্মানেন্ট রেসিডেন্ট, দীর্ঘমেয়াদি পাসধারী, ব্যবসায়ী ও বিনিয়োগকারীসহ কিছু ক্যাটাগরিতে বৈধ ভিসা ও পূর্বানুমোদন সাপেক্ষে মালয়েশিয়ায় প্রবেশ করা যাবে। ভ্রমণকারীকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা অনুমোদিত টিকার পূর্ণ ডোজ এবং কভিড নেগেটিভ সনদ থাকতে হবে।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।