চুয়াডাঙ্গা রবিবার , ৬ জুন ২০২১
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মেহেরপুরে মোটরসাইকেল মেকানিক ও সাংবাদিকের পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন

সমীকরণ প্রতিবেদন
জুন ৬, ২০২১ ৮:৫৬ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

প্রতিবেদক, মেহেরপুর:
মেহেরপুরের গাংনীতে সাংবাদিক পরিচয়ে ৭০ হাজার টাকা চাঁদাবাজির অভিযোগ করেছেন মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার রামনগর গ্রামের মোটরসাইকেল মেকানিক জান্নাত আলী নামের এক ভুক্তভোগী। গতকাল শনিবার গাংনী প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জান্নাত আলী।
প্রেসক্লাব সভাপতি রমজান আলীর সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি জানান, ‘কিছুদিন আগে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে গাংনী উপজেলার বাওট গ্রামের আনু হকের ছেলে মিনারুল ইসলাম ও একই উপজেলার চরগোয়ালগ্রামের আজাদ আলীর ছেলে রাব্বী হোসেন নামের দুজন আমার দোকানে তাদের মোটরসাইকেল মেরামত করতেন। মোটরসাইকেল মেরামত বাবদ ১ হাজার ৭ শ টাকা বিল হয়। বিল না দিয়ে বাকি রেখে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে চলে আসেন। পরে তাদের মোবাইল ফোন ও রাব্বী হোসেনের বাড়ি আমার পাশের গ্রাম হওয়ায় বিল চাওয়ায় আমার ওপর ক্ষিপ্ত হন তারা দুজনই। পরে আমাকে নানা ধরনের হুমকি-ধামকী দিতে শুরু করেন। আমার নামে অবৈধ পোর্টাল গাংনীর চোখ, জেটিভিতে মিথ্যা বানোয়াট ও মানহানিকর সংবাদ প্রকাশ করে তারা। একপর্যায় একটা মামলায় জড়িয়ে গ্রেপ্তার করে চালান দেয়ারও হুমকি দেয় তারা। এবং মামলা থেকে বাঁচতে হলে এসপি, ডিবি ও গাংনী থানা পুলিশকে ম্যানেজ করতে আমার কাছ থেকে এক লাখ টাকা দাবি করে রাব্বী হোসেন। সে আমাকে চরগোয়ালগ্রামের কবরস্থানের কাছে টাকা নিয়ে আসতে বলেন। আমি আমার বাবা ও দোকানের কয়েকজন কর্মচারী ৭০ হাজার টাকা নিয়ে হাজির হয়ে টাকা প্রদান করি। ওই দিন রাতেই আমাকে গাংনী থানা পুলিশের এসআই জহির রায়হান একটি অপহরণ মামলার আসামী হিসেবে আটক করেন। যদিও মামলার এজাহারে কোন নাম ছিল না। আমি পঁচিশ দিন জেল হাজত থেকে জামিনে মুক্তি নিয়ে বাড়িতে এসে রাব্বীর কাছে প্রদানকৃত ৭০ হাজার টাকা ফেরত চাইলেও তিনি টাকা ফেরত দেন নি। বরং আমাকে আবারো পুলিশ দিয়ে হয়রানীর হুমকি ধামকি দিচ্ছেন।’
বক্তব্যে জান্নাত আরও জানান, ‘আমি খোঁজখবর নিয়ে দেখেছি আমার কাছ থেকে টাকা আদায়ের জন্য সাংবাদিক পরিচয়দানকারী রাব্বী হোসেনকে এসপি, ডিবি বা গাংনী থানা পুলিশ কেউ ম্যাসেজ দেয়নি এবং কেউ বলেনি। তাদের নাম ভাঙ্গিয়ে আমার কাছ থেকে চাঁদাবাজি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে তিনি প্রতিকার চেয়েছেন সেই সাথে হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন প্রশাসনের।’ সংবাদ সম্মেলনে গাংনী প্রেসক্লাবের সকল সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে, মেহেরপুরের গাংনী প্রেসক্লাবে ও গাংনী উপজেলা প্রেসক্লাবে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে মিথ্যা সংবাদ সম্মেলনের প্রতিবাদ জানিয়েছেন অনলাইন পোর্টাল গাংনীর চোখের প্রকাশক ও সম্পাদক, কুষ্টিয়া থেকে প্রকাশিত দৈনিক আজকের আলো পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত জাতীয় দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার এবং মুভি বাংলা টেলিভিশনের প্রতিনিধি রাব্বি আহমেদ। গতকাল শনিবার বিকেলে মেহেরপুর রিপোর্টার্স ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ প্রতিবাদ জানান তিনি।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘একটি কুচক্রী মহলের ইন্ধনে গাংনী উপজেলার রামনগর গ্রামের আজাদ আলীর ছেলে জান্নাত আমার বিরুদ্ধে গাংনী উপজেলা প্রেসক্লাব ও গাংনী প্রেসক্লাবে আলাদা আলাদা সংবাদ সম্মেলন করেছে। প্রকৃতপক্ষে অপহরণকারী জান্নাতের অবৈধ কার্যকলাপের সংবাদ প্রকাশ করায় সে আমার বিরুদ্ধে একটি মহলের ইন্ধনে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে জান্নাত দাবী করে, আমি তার কাছ থেকে ৭০ হাজার টাকা নিয়েছি যা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। আমাকে সমাজের কাছে হেই প্রতিপন্ন করার অভিপ্রায়ে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে একটি কুচক্রি মহলের ইন্ধনে এমনটি করেছে। এছাড়া বলা হয়েছে, আমি তার দোকানে মটরসাইকেল মেরামত করে তাকে টাকা দিইনি। আমি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।
তার অভিযোগের প্রেক্ষিতে আমার বক্তব্য হচ্ছে, আমি তার দোকানে কখনই মোটরসাইকে মেরামত করাইনি। গত ২৬ শে এপ্রিল বেশ কিছু অনলাইন ও আঞ্চলিক দৈনিক এবং জাতীয় দৈনিকে জান্নাতের বিরুদ্ধে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। পরে গত ২৮ এপ্রিল জান্নাত রামনগর গ্রামে সাংবাদিকদের ডেকে আমার বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করে। এরই মধ্যে প্রশাসন তদন্ত সাপেক্ষে গাংনী থানার এসআই জহির রায়হান গত ২৯ এপ্রিল একটি অপহরণ মামলায় জান্নাতকে আটক করে জেলহাজতে পাঠান। সংবাদ প্রকাশের পর থেকে বিভিন্ন মাধ্যমে আমার কাছে মামলা, হামলার হুমকি আসছিল। এর প্রেক্ষিতে আমার নিরাপত্তার স্বার্থে গত ৫ই মে আমি গাংনী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করি। গাংনী থানার জিডি নং ২২৭। এরপর জান্নাত জেল থেকে জামিনে মুক্তি পেয়ে ওই শত্রুতার জের ধরে আমাকে ফাঁসানোর জন্য মিথ্যা অভিযোগ তুলেছে। মিথ্যা ষড়যন্ত্রের জাল থেকে আমাকে মুক্ত করতে এবং আমার নিরাপত্তার জন্য প্রশাসনের সুদৃষ্টি আকর্ষণ কামনা করছি। সেই সাথে জান্নাত আমার বিরুদ্ধে যে মিথ্যা সংবাদ সম্মেলন করে আমাকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করেছে আমি এর সঠিক বিচার চাই।

দৈনিক সময়ের সমীকরণ সংবিধান, আইন ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে।